আপডেট ৮ মিনিট ১৭ সেকেন্ড

ঢাকা রবিবার, ৮ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ২৩ মুহাররম, ১৪৪১

লাইফস্টাইল সাজবাতির খোঁজে

সাজবাতির খোঁজে

নিরাপদ নিউজ: আলো-ছায়ার ছন্দে ঘরের সৌন্দর্য বাড়ায় ল্যাম্প বা সাজবাতি। সুন্দর একটি ল্যাম্প এখন পড়ার টেবিলের পাশেই সীমাবদ্ধ নেই, যে কোনো জায়গায় ছোট বা বড় ল্যাম্প ঘরের শোভা বাড়িয়ে দেয়। আজকাল নানা ধাতব উপাদানের পাশাপাশি বাঁশ, বেত, কাগজ, কাঠ, গাছের গুঁড়ি, চীনামাটি, কাপড় ইত্যাদি উপকরণে তৈরি ল্যাম্প দেখতে পাওয়া যায়

ঘরের আলোকসজ্জার জন্য প্রয়োজন যতটা সম্ভব অন্ধকার দূর করে সৌন্দর্য বাড়ানো। এ প্রয়োজনটা মাথায় রেখেই কিন্তু ঘরে আলো জ্বালানো হয়। গ্রামবাংলায় সন্ধ্যা নামলেই কুপি কিংবা হারিকেন জ্বালানোর প্রচলন, তবে শহরে আধুনিক ইন্টেরিয়র এ আলোক সজ্জার ধারণাকে পরিবর্তন করেছে বেশ নান্দনিক ভঙ্গিতে। তাই ঘরের ইন্টেরিয়রে এখন প্রচলন নানা ধরনের সাজবাতির ব্যবহার।

আলো-ছায়ার ছন্দে ঘরের সৌন্দর্য বাড়ায় ল্যাম্প বা সাজবাতি। সুন্দর একটি ল্যাম্প এখন পড়ার টেবিলের পাশেই সীমাবদ্ধ নেই, যে কোনো জায়গায় ছোট বা বড় ল্যাম্প ঘরের শোভা বাড়িয়ে দেয়। আজকাল নানা ধাতব উপাদানের পাশাপাশি বাঁশ, বেত, কাগজ, কাঠ, গাছের গুঁড়ি, চীনামাটি, কাপড় ইত্যাদি উপকরণে তৈরি ল্যাম্প দেখতে পাওয়া যায়। তবে এসব ল্যাম্প দোকানের পরিবেশে যতই ভালো লাগুক না কেন, ঘরের অন্যান্য আসবাবের সঙ্গে তা মানাবে কিনা, এটা ভাবতে হবে কেনার আগে। আবার যারা রাত জেগে পড়াশোনার জন্য টেবিল ল্যাম্প কিনতে চান, তাদের টেবিল ল্যাম্পের আউটলুকের পাশাপাশি ভাবতে হবে পর্যাপ্ত পরিমাণ আলোর কথাও। তাছাড়া ঘরের আলো যেন সাদা বা সোডিয়ামের আলো ছাড়া অন্য কোনো কিছু না হয়, সেটিও নিশ্চিত হতে হবে।

একটু ভিন্নধর্মী ল্যাম্পের খোঁজে আপনি যেতে পারেন অরণ্য ও আড়ংয়ে। ল্যাম্প প্রসঙ্গে অরণ্যর ম্যানেজার মোহাম্মদ মনির হোসেন বলেন, ‘আমাদের যতগুলো ল্যাম্প রয়েছে, সবই তৈরি হয়েছে দেশে। বেশির ভাগ ল্যাম্প তৈরি হয় সাভারে। হাফ-সিল্ক, মাটি, কাগজ ও কাঠের ল্যাম্প রয়েছে আমাদের। কোনো কিছুই ফেলনা নয়, এ চিন্তা মাথায় রেখে ছোট-বড় ল্যাম্প তৈরি করে থাকি।’ অরণ্যর ছোট-বড় এসব ল্যাম্পের মূল্য ৩০০ থেকে ৪ হাজার টাকার মধ্যে। ভিন্ন আঙ্গিকের ল্যাম্পগুলো ঘরে ঝুলিয়ে কিংবা মেঝেতে রেখে সাজাতে পারেন।

আড়ংয়ে রয়েছে মোগল আমলের রেওয়াজের কারুকাজের ল্যাম্প। পিতলের, টিনের, তালের কাঠ, নারকেলের গুঁড়ো ইত্যাদি দিয়ে তৈরি আড়ংয়ের ল্যাম্পগুলো একদম ভিন্ন ধাঁচের। বিক্রয়কর্মী শম্পা জানান, ‘ল্যাম্পের বিক্রি অন্য পণ্য থেকে ভালো। মানুষ এখন অল্প ফার্নিচার দিয়ে ঘর সাজাতে পছন্দ করে। তাই একটা ছোট কিংবা বড় ল্যাম্প কমবেশি সবাই কিনতে চাই।’ আড়ংয়ের মাটির ল্যাম্পের দাম ৫১১ থেকে ১ হাজার ১০০ টাকা, কাঠের ৮০০ থেকে ২ হাজার টাকা, পিতলের ২ হাজার ৬০০ থেকে ৩ হাজার টাকা, মোগল ডিজাইনের ৬ হাজার টাকা ।

 

টেবিল ল্যাম্পের প্রয়োজন যদি হয় ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য, তাহলে জেনে নিতে হবে আপনি ল্যাম্পটি ঘরের কোন অংশে রাখবেন। যদি শোয়ার ঘরের বেডসাইড টেবিলের ওপর রাখার জন্য ল্যাম্পের প্রয়োজন পড়ে, তাহলে যতটা সম্ভব ছোট আকৃতির টেবিল ল্যাম্প কিনতে হবে। এগুলোর আলো হতে হবে মৃদু ও স্নিগ্ধ। যদি শুধু শোয়ার ঘরের এক কোণে বা খাটের মাথার দিকে একটি স্ট্যান্ডিং টেবিল ল্যাম্প রাখতে হয়, তাহলে এমন আকৃতির ল্যাম্প খুঁজে বের করতে হবে, যেটি খাটের উচ্চতার সঙ্গে মানানসই।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)