আপডেট ২০ মিনিট ৩১ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ৬ শ্রাবণ, ১৪২৫ , বর্ষাকাল, ৭ জিলক্বদ, ১৪৩৯

বিনোদন সালমান শাহ-সামিরার বিয়ে হয়েছিলো আজকের এই দিনে

সালমান শাহ-সামিরার বিয়ে হয়েছিলো আজকের এই দিনে

সালমান শাহ-সামিরার বিয়ে হয়েছিলো আজকের এই দিনে

নিরাপদ নিউজ :  বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে নব্বইয়ের দশকের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ও সুদর্শন নায়কের নাম সালমান শাহ। করেছিলেন ২৭টি ছবি। মৃত্যুর আগে ও পরে সবগুলো ছবিই সুপারহিট। আজও কাঁদে সালমান ভক্তের প্রাণ। আজও তার স্মৃতি হাতরে বেড়ান সালমান যুুগের মানুষেরা।

এক রহস্যজনক মৃত্যুর মধ্য দিয়ে পতন হয় সালমান নামের ধূমকেতুর। তবে একটুও ম্লান হয়নি তার আলোর। আজও ঢাকাই ছবিতে রোমান্টিক, সফল নায়কদের উদাহরণ সালমান। আজও যুবকরা সালমানের ভঙ্গিতে প্রিয়ার উদ্দেেশ্যে গেয়ে ওঠেন রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহর গান- ‌‘ভালো আছি ভালো থেকো, আকাশের ঠিকানায় চিঠি লিখো’।

সালমান শাহ নেই ২১ বছর হয়ে গেছে। গঙ্গার অনেক জল গড়িয়েছে স্মৃতির মহাকাল ছুঁয়ে। সালমান ভক্তদের আগ্রহের শেষ নেই তার জীবনী ও তার সঙ্গে জড়িত প্রতিটি বিষয়ের প্রতি। আরও মজার ব্যাপার, সালমান যুগের না হয়েও এ প্রজন্মের সিনেমাপ্রেমীরাও সালমানকে মানেন নায়কের আদর্শ হিসেবে।

দেশের বিভিন্ন হলে সালমানের পুরনো ছবিগুলো মুক্তি পেলে দর্শক উপস্থিতি তারই প্রমাণ দেয়।সালমান শাহ’র জীবনের গুরুত্বপূর্ণ এক অধ্যায় তার স্ত্রী সামিরা। রহস্যময়ী এই নারীও সালমানের মতোই গেঁথে আছেন বাংলাদেশি সিনেমাপ্রেমীদের মনে; ভালো-মন্দ অনুভূতির মিশ্রণে।

রহস্যময়ী এই নারীকে সালমান শাহ বিয়ে করেন আজকের এই দিনে। ১২ আগস্ট ১৯৯২ বিয়ে করেন তারা। তাঁর স্ত্রীর নাম সামিরা। প্রয়াত নায়ক সালমান শাহ’র ‘মা’ নীলা চৌধুরীর খুব কাছের বান্ধবীর মেয়ে। পেশায় তিনি একজন বিউটি পার্লার ব্যবসায়ী। সামিরার বাবা জাতীয় দলের সাবেক উইকেটকিপার-অধিনায়ক শফিকুল হক হীরা। মা থাইল্যান্ডের নাগরিক চট্টগ্রামের বিউটি পার্লার ব্যবসায়ী লুসি।

বিয়ের পর সালমানের কিছু চলচ্চিত্রে তাঁর পোশাক পরিকল্পনাকারী হিসেবে কাজ করেন। বিয়ের বেশ কিছু সময় ভালোভাবেই তাদের সংসার জীবন কাটছিল। মায়ের মতো সামিরাও বিউটি পার্লারের কাজে বেশ আগ্রহী ছিলেন এবং ঢাকায় একটি বিউটি পার্লারও খুলেছিলেন সামিরা।

এক সময় সালমান-শাবনুর জুটিকে নিয়ে ইন্ডাস্ট্রির ভেতরে-বাইরে কানাঘুষা শুরু হয়। আর এতে করে সালমানের সঙ্গে সামিরার মনোমালিন্য ঘটতে থাকে বলে সূত্রে জানাগেছে।

১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর রহস্যজনকভাবে মারা যান সালমান শাহ। অভিযোগ উঠে যে, তাকে হত্যা করা হয় কিন্তু তার সিলিং ফ্যানে ফাঁসিতে হত্যাকান্ডের কোনো আইনী সুরাহা আজ পর্যন্ত হয়নি।

এক পর্যায়ে একেবারে আড়ালে চলে যান সামিরা। সালমানের মৃত্যুর কয়েক বছর পর ব্যবসায়ী মুস্তাক ওয়াইজকে বিয়ে করেন তিনি। দ্বিতীয় বিয়ের পর দেশ ছেড়ে চলে যান থাইল্যান্ড। সেখানে সামিরার নতুন সংসারে একটি ছেলে ও দুটি মেয়ে। থাইল্যান্ডে সামিরার ছোট দুই বোন ফাহরিয়া হক ও হুনায়জা শেখ তাদের স্বামী সন্তান নিয়ে বাস করেন।

জানা গেছে, সামিরা বাংলাদেশে তেমন আসেন না বললেই চলে। আসলেও শুধু নিকট আত্মীয়দের সঙ্গেই দেখা করেন।

সালমান শাহর মৃত্যু নিয়ে হঠাৎ সরগরম হয়ে ওঠে সোশ্যাল মিডিয়া। আর সেটা শুরু হয় গত সোমবার (৭ আগষ্ট) জনপ্রিয় এই চিত্রনায়কের হত্যা মামলার অন্যতম আসামি রুবির একটি ভিডিও প্রকাশের মাধ্যমে।

অনলাইনে একটি ভিডিও বার্তা ছেড়ে তিনি দাবি করেছেন, সালমান শাহকে খুন করা হয়েছে। সেই খুনের সঙ্গে জড়িত ছিলেন তারই স্বামী। চীনাদেরকে দিয়ে এই খুন করানো হয়। এতে জড়িত ছিলেন সালমান শাহের স্ত্রী সামিরার পরিবারও।

এই তথ্য সম্বলিত ভিডিওটি ভিডিওটি এরইমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে গেছে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)