ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মে ২৭, ২০১৯

ঢাকা শনিবার, ২২ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ৯ রবিউস-সানি, ১৪৪১

লিড নিউজ, স্বাস্থ্য কথা সিরিয়াল অনেক লম্বা থাকায় রোগীকে অস্ত্রোপচারের তারিখ দেয়া হলো ৩ বছর পর!

সিরিয়াল অনেক লম্বা থাকায় রোগীকে অস্ত্রোপচারের তারিখ দেয়া হলো ৩ বছর পর!

নিরাপদ নিউজ: রাজধানীর শ্যামলীতে পঙ্গু হাসপাতালে সিরিয়াল অনেক লম্বা থাকার কারণে রোগীকে অস্ত্রোপচারের তারিখ দেয়া হলো ৩ বছর পর! ঘটনাটি দেখে রীতিমতো ঘাবরে গেছে রোগীও তার পরিবারসহ সকলে। পঙ্গু হাসপাতালে অস্ত্রোপচারের জন্য ভর্তির এমন লম্বা তারিখ পেয়ে রোগী মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি হন। এবং গতকাল সেখানে তাঁর অস্ত্রোপচার করা হয়।

জানা গেছে , একটি দুর্ঘটনায় মো.মাসুম বিল্লাহ (২১) নামের এক তরুণের পায়ের লিগামেন্ট ছিঁড়ে যায়। চিকিৎসা নিতে গত ২৩ মার্চ রাজধানীর শ্যামলীতে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে (পঙ্গু হাসপাতালে) যান তিনি। চিকিৎসক তাঁকে পরীক্ষা করে অস্ত্রোপচারের প্রয়োজনীয়তার কথা জানিয়ে এক মাস পর যেতে বলেন। নির্ধারিত সময়ে তিনি কাগজপত্র নিয়ে হাজির হলে তাঁকে তিন বছর পর ২০২২ সালের ২১ মার্চ অস্ত্রোপচারের জন্য ভর্তির তারিখ দেওয়া হয়।

এতদিনপর ভর্তির তারিখটি দেখে রীতিমতো হতভম্ব হয়ে যান রোগী মাসুম বিল্লাহ। তিনি তার দুর্ভোগের কথা জানিয়ে সময়টা এগিয়ে দেওয়ার অনুরোধ জানালে হাসপাতাল থেকে তাঁকে জানিয়ে দেওয়া হয়, এর আগে তারিখ দেওয়া সম্ভব নয়। প্রয়োজনে তিনি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে পারেন।

মাসুম বিল্লাহ বরিশালের নথুল্লাবাদ এলাকার বাসিন্দা। বাবা হুমায়ুন কবির ও মা আসমা বেগম। তিন ভাই ও দুই বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়। জনতা ব্যাংক, বরিশাল বিভাগীয় কার্যালয়ে ক্যাজুয়াল লেবার হিসেবে কাজ করছেন। একই সঙ্গে বরিশালের ব্রজমোহন কলেজের সমাজকল্যাণ বিভাগে সম্মান দ্বিতীয় বর্ষে পড়ছেন।

রোগী মাসুম গণমাধ্যমকে জানান, বরিশাল শহরে মাস তিনেক আগে সাইকেল চালিয়ে যাওয়ার সময় এক সড়ক দুর্ঘটনার শিকার হন। সেসময় তাঁর বা পায়ের লিগামেন্ট ছিঁড়ে যায়। বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যাপক কবিরুজ্জামানের চিকিৎসাধীন ছিলেন। তিনি তাঁকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পঙ্গু হাসপাতালে পাঠান। তাঁর পরিচিত ডা. হারুনুর রশিদ খানের সঙ্গে দেখা করতে বলেন।

‘২৩ মার্চ মাসুম পঙ্গু হাসপাতালের বহির্বিভাগে যায়। টিকিট কেটে ডাক্তার দেখায়। ডাক্তাররা তার টেস্টের কাগজপত্র দেখেন এবং এক মাস থেরাপি নিতে বলেন। এক মাস থেরাপি নেওয়ার পর তিনি ডাক্তারের সাথে দেখা করেন। সেসময় ২০ থেকে ২২ জনের ফাইলের সঙ্গে তাঁর ফাইল নেন চিকিৎসকেরা। এরপর তাঁরা টিকিটে ২০২২ সালের ২১ মার্চ ভর্তির ডেট লিখে দেন।

মাসুম জানান, তিন বছর পর ভর্তির তারিখ দেখে তিনি হতভম্ব হয়ে পড়েন। বলেন, ‘আমি পায়ে ভর দিয়ে দাঁড়াতে পারি না। পায়ে ব্যথা অনেক। আমার দুর্ভোগের বিষয়টি জানিয়ে দ্রুত অপারেশন করার অনুরোধ জানাই। কিন্তু তাঁরা জানান, সিরিয়াল অনেক লম্বা। আগে করতে চাইল বেসরকারি হাসপাতালে যান।’

এ ব্যাপারে পঙ্গু হাসপাতালের কনসালট্যান্ট হারুনুর রশিদ খানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন।  তিনি বলেন, হাসপাতালে লিগামেন্টের রোগী ভর্তির জন্য মাত্র দুটি বেড আছে। সপ্তাহে দুজনের বেশি ভর্তি করা যায় না। রোগী আসেন দিনে ৬০ জন। তাই অস্ত্রোপচারের দীর্ঘ অপেক্ষার সারিতে থাকতে হয় রোগীকে। একজন রোগী অস্ত্রোপচারের জন্য তিন বছর অপেক্ষা করতে পারেন কি না, তা জানতে চাইলে হারুনুর রশিদ খান বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমার কিছু বলার নেই। কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। এখানে এটাই সিস্টেম। সরকারি হাসপাতালে কোনো রোগীকে “না” বলা যাবে না। কিন্তু এখানে বেডস্বল্পতা রয়েছে। হাসপাতালে ৫০০ বেডের নতুন ভবন হচ্ছে, তখন সমস্যার কিছু সমাধান হতে পারে।’

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)