ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট আগস্ট ১, ২০১৮

ঢাকা রবিবার, ৬ কার্তিক, ১৪২৫ , হেমন্তকাল, ১০ সফর, ১৪৪০

নিসচা সংবাদ, লিড নিউজ, সাক্ষাৎকার সড়ক দুর্ঘটনারোধে সরকারকে দ্রুত কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে হবে: ইলিয়াস কাঞ্চন

সড়ক দুর্ঘটনারোধে সরকারকে দ্রুত কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে হবে: ইলিয়াস কাঞ্চন

নিরাপদনিউজ : নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। নিরাপদ সড়ক ও দুর্ঘটনারোধে সব সময় সরব তিনি। আগামী শুক্রবার নিসচা’র পক্ষ থেকে মানববন্ধনের ডাক দিয়েছেন এই অভিনেতা। এই প্রসঙ্গসহ আরও নানা বিষয়ে গণমাধ্যমের সাথে  কথা বলেছেন ইলিয়াস কাঞ্চন। তার দেয়া সাক্ষাতকারের বিশেষ কিছু অংশ পাঠক আপনাদের জন্য তুলে ধরা হলো:

নিরাপদ সড়ক চাই এর বর্তমান কার্যক্রম নিয়ে জানতে চাই

আমরা নিরাপদ সড়ক চাই নিয়ে অনেক মানববন্ধন ও র‌্যালি করেছি। প্রতি বছর ২২ অক্টোবর সারাদেশেই র‌্যালি হয়। এগুলো হলো সাধারণ একটা অ্যাওয়ারনেস। কিন্তু আমরা দেখলাম সাধারণ অ্যাওয়ারনেস করলে শুধু সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করা যাবে না। আমাদের মূলত কাজ হলো সড়ক দুর্ঘটনা কীভাবে কমানো যেতে পারে এবং কি করলে কমানো যাবে। ইদানীংকালে আমরা সবচেয়ে বেশি জোর দিয়েছি যে কাজগুলোতে সেটি হলো ড্রাইভারদেরকে মোটিভেশনাল ট্রেনিং দেওয়া। কারণ তারা আমাদের র‌্যালি বা মানববন্ধনেও আসে না। তাই চিন্তা করলাম ড্রাইভাররা যদি ঠিক না হয় তাহলে কোনো লাভ হচ্ছে না। তখন আমরা ২০১০ সাল থেকে ওদের (ড্রাইভার)কাছে গিয়ে টার্মিনালে বা বিভিন্ন জেলায় গিয়ে গিয়ে একদিন বা দুই দিনের মোটিভেশনাল ট্রেনিং শুরু করলাম। এরপর স্কুলেও আমরা প্রোগ্রাম করছি। স্কুলের বাচ্চাদের সচেতন করার জন্যও বিভিন্ন অনুষ্ঠান করি। পাশাপাশি শিক্ষিত ড্রাইভার তৈরি করার জন্য আমরা ‘নিসচা ড্রাইভিং ইনস্টিটিউশন’ থেকে প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যবস্থা করছি। যেখানে গরীব অন্তত এসএসসি পাশ করা মানুষদের বিনা পয়সায় প্রশিক্ষণ এবং লাইসেন্সের টাকা আমরা দিচ্ছি। এভাবে এ পর্যন্ত ৫০০ ড্রাইভার তৈরি করেছি।

এতে কী সুফল পাচ্ছেন?

গত পরশুদিন যে দুর্ঘটনা ঘটেছে বা এর আগেও একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন ছাত্রও সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। এই ঘটনাগুলো ইদানিং ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এই জিনিসগুলো আমার কাছে যা মনে হয়েছে সরকারের মধ্যে থাকা যে মন্ত্রীগুলো, তারা দায়িত্বহীনতার যে কথাবার্তা বলে এই কথাবার্তাগুলোর জন্য চালকরা নেগেটিভ মোটিভেশন হচ্ছে। এই কারণেই কিন্তু এই ধরনের দুর্ঘটনা বেশি হচ্ছে।

আপনার দৃষ্টিতে এটা কি দুর্ঘটনা?

না না, এটা দুর্ঘটনা নয় এটা হত্যাকাণ্ড। ইদানিং এই ধরনের ঘটনাগুলো বৃদ্ধি পাচ্ছে। মন্ত্রীর এই ধরনের কথাবার্তার জন্য নিন্দাজ্ঞাপন করেছি। মন্ত্রীর এমন কাণ্ডজ্ঞানহীন কথাবার্তার কারণেই চালকরা বেপরোয়া হচ্ছে।  এছাড়া স্যোশাল মিডিয়াতে এই ঘটনাগুলো নিয়ে আমাকে রাস্তায় নামার জন্য প্রচুর অনুরোধ করেছেন। তাই মানববন্ধনের আয়োজন করেছি। যারা আন্দোলন করছেন তারাও যেন মানববন্ধনে এসে যুক্ত হয়। কারণ তাদের জন্যই আমি মানববন্ধনের ডাক দিয়েছি। কারণ আমাদের কাজ হলো দুর্ঘটনা কীভাবে কমিয়ে আনা যায়। শুধু প্রতিবাদ করলেই হবে না। দুর্ঘটনা রোধে আমরা বেশি কাজ করছি। তাই ইদানিং মানববন্ধন কম করা হয়। কিন্তু এই ঘটনা আমাকে অনেক আহত করেছে তাই আগামী শুক্রবার ৩ আগস্ট জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধনের ডাক দিয়েছি।

মানববন্ধনের দিন হিসেবে শুক্রবার বেছে নেওয়ার বিশেষ কোনো কারণ আছে?

আসলে শুক্রবার স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকে। তাই শুক্রবারে আয়োজন করেছি যাতে সকলে অংশগ্রহণ করতে পারে। কেউ যেন কোনো অজুহাত দেখাতে না পারে, স্কুল বা কলেজ ছিল। কারণ পরিবহন সেক্টরের মানুষজন কোনো কিছু করলে তারা এক জায়গায় একত্রিত হয় আমরা কিন্তু সেইভাবে একত্র হতে পারি না। যার কারণে সরকারও কিন্তু আমাদের চেয়ে তাদেরকে গুরত্ব বেশি দেয়। সেজন্যই আমি চাচ্ছি এই মানববন্ধন এমনভাবে যেন হয়, মিডিয়াতেও যেন এমনভাবে ছড়ায় সরকারেরও একটু টনক নড়ে। সরকারের মধ্যে এই মানুষগুলো আছে যাদের কারণে এই ধরনের ঘটনা বৃদ্ধি পাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে যেন সরকার একটা ব্যবস্থা নেয়। তিনি আরো বলেন, এভাবে পরিবহন সেক্টরের মাধ্যমে যদি দুর্ঘটনা ঘটতে থাকলে মানুষের পিঠ খুব শিগগিরই দেয়ালে ঠেকে যাবে। আর তখন ঘটবে এর থেকেও আরও ভয়ঙ্কর ঘটনা। যার নমুনা প্রায়ই দেখা যায়। সরকারকে এ ব্যাপারে কঠোর কোনো সিদ্ধান্ত নিতেই হবে। সড়কে মৃত্যুর এ মিছিল বন্ধ করতে যথযথ ব্যবস্থা গ্রহনের সময় এসে গেছে আর দেরি নয়।


সব শেষে চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, চালকদের বেপরোয়া মনোভাবে ঘটে যাওয়া দুর্ঘটনা ও দায়িত্বশীলদের দায়িত্বহীন বক্তব্যের প্রতিবাদে আগামী ৩ অাগষ্ট শুক্রবার ঢাকা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সকাল ১১টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত নিসচার আয়োজনে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে। দেশকে সড়কের মড়ক থেকে রক্ষা করতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবিতে এই মানববন্ধন কর্মসূচীতে সকলকে অংশগ্রহণ করার উদাত্ত্ব আহবান জানাচ্ছি।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)