ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৩৮ মিনিট ১৮ সেকেন্ড

ঢাকা সোমবার, ১১ আষাঢ়, ১৪২৬ , বর্ষাকাল, ২১ শাওয়াল, ১৪৪০

অনুসন্ধানী প্রতিবেদন হকারমুক্ত কমলাপুর ফুট ওভারব্রিজ: ভোগান্তি কমেছে সাধারণ মানুষের

হকারমুক্ত কমলাপুর ফুট ওভারব্রিজ: ভোগান্তি কমেছে সাধারণ মানুষের

হকারমুক্ত কমলাপুর ফুট ওভারব্রিজ: ভোগান্তি কমেছে সাধারণ মানুষের

হকারমুক্ত কমলাপুর ফুট ওভারব্রিজ: ভোগান্তি কমেছে সাধারণ মানুষের

ঢাকা, ৩০ জানুয়ারি ২০১৬, নিরাপদনিউজ: সাধারণত কামলাপুর, মুগদা,মান্ডা,বৌদ্ধ মন্দির, মায়াকানন, বাসাবো আহম্মদবাগ সহ আশপাশ এলাকায় হাজারো মানুষ প্রতিদিন যাওয়া আসা করে কমলাপুর ফুট ওভারব্রিজ দিয়ে। বদলে গেছে কমলাপুর স্টেশনের এই ফুট ওভারব্রিজের চিত্র। কিছু দিন আগেও এই ফুট ওভারব্রিজের চিত্র ছিল অনেকটাই হাট-বাজারের মত। সবজি, মাছ, তরকারি, ফল,হাড়ি-পাতিল, জামা-কাপড় বিক্রি থেকে শুরু করে মানুষের ওজন মাপার সার্ভিসও পর্যন্ত পাওয়া যেত সেখানে।
হাজারো মানুষের ব্যবহৃত এই ফুট ওভারব্রিজ ব্যবহার করতে আগে রীতিমত ভোগান্তিতে পড়তে হতো সাধারণ মানুষদের। সকালে যাওয়ার সময় তেমন একটা সমস্যা না হলেও বিকেলে বা সন্ধ্যায় ফেরার পথে ওভারব্রিজের অর্ধেকেরও বেশি হকারদের দখলে থাকায় রীতিমত হিমশিম খেতে হত পথচারীদের। সাম্প্রতি রেলওয়ে পুলিশের চেষ্টায় দখল মুক্ত হয়েছে কমলাপুর ফুট ওভারব্রিজ।
এ বিষয়ে ঢাকা রেলওয়ে থানার ওসি (কমলাপুর) মো. আব্দুল মজিদ সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, সম্পূর্ণ ঢাকা রেলওয়ে থানা পুলিশের প্রচেষ্টায় এই ওভারব্রিজ দখল মুক্ত করা সম্ভব হয়েছে। এমনকি যারা এখানে হকার বসাতে সাহায্য করত তাদের জেলে প্রেরণ করা হয়েছে।
এই ওভারব্রিজ ব্যবহারকারী বেসরকারি চাকরিজীবী প্রতিদিন মতিঝিলে অফিস করেন। হকারদের দখলমুক্ত হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, প্রতিদিন সন্ধ্যায় অফিস থেকে ফেরার পথে হকাররা বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা বসিয়ে ওভারব্রিজ দখল থাকাতো যার কারণে ঠিক মত চলাফেরা করা যেত না। খুব বিরক্তি নিয়ে এই ওভারব্রিজ পার হতে হত। এটা তখন ওভার ব্রিজ ছিল না বরং ছিল হাট বাজার। তবে বর্তমানে হকারদের দখল মুক্ত করায় পথচারীরা ভালো ভাবে এটা ব্যবহার করতে পারছে। তবে এটা কতদিন থাকে সেটা দেখার বিষয়।
ওভারব্রিজটি ব্যবহারকারীরা এটি দখল মুক্ত হওয়ায় সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছেন, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ চমৎকার একটি পদক্ষেপ নিয়েছে। এখন থেকে সবসময় যেন সবাই এভাবেই নির্বিঘ্নে এটা ব্যবহার করতে পারে এই বিষয়েও তারা কর্তৃপক্ষের সজাগ দৃষ্টি কামনা করেছেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)