আপডেট জানুয়ারি ১০, ২০১৯

ঢাকা রবিবার, ১১ চৈত্র, ১৪২৫ , বসন্তকাল, ১৭ রজব, ১৪৪০

বহির্বিশ্ব, লিড নিউজ ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে অজ্ঞান নারীর সন্তান প্রসব: বিশ্বব্যাপী তোলপাড়!

১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে অজ্ঞান নারীর সন্তান প্রসব: বিশ্বব্যাপী তোলপাড়!

নিরাপদনিউজ : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যের ফিনিক্স শহরের কাছে একটি কেয়ার হোমে দশ বছরেরও বেশি সময় ধরে অজ্ঞান অবস্থায় থাকা এক নারীর সন্তান প্রসবের ঘটনায় বিশ্বব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়েছে। এই ঘটনার পর ওই কেয়ার হোমের প্রধান নির্বাহী পদত্যাগ করেছেন।

চেতনাহীন ওই নারীর সাথে কে যৌন মিলন ঘটিয়েছে তা অনুসন্ধান করে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। গত ২৯শে ডিসেম্বর ওই নারী একটি সন্তান জন্মদান করেন। তবে তার পরিচয় প্রকাশ করা হয়নি।

অ্যারিজোনার হাসিয়েন্দা হেলথ কেয়ারের একটি ক্লিনিকে ঐ নারী এক দশকেরও বেশি সময় ধরে চেতনাহীন অবস্থায় ছিলেন। এই পুরো সময় ওই নারী চিকিৎসকদের সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন।

স্থানীয় চ্যানেল কেএইচ-ও টিভির সংবাদে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বলেছেন, আমি যেটা শুনছি তা হলো হঠাৎ করেই ঐ রোগী গোঙাতে থাকেন এবং কেউ বুঝতে পারছিলেন যে তিনি কেন গোঙাচ্ছিলেন। তিনি যে অন্তঃসত্ত্বা তা স্টাফদের মাঝে কেউ বুঝতেই পারেনি।

যখন ওই অচেতন রোগীর প্রসব যন্ত্রণা শুরু হয়, তখন হাসপাতালের কর্মীরা হতবাক হয়ে পড়েন। কেয়ার হোমের মালিক কম্পানির নির্বাহী ভাইস প্রেসিডেন্ট গ্যারি অরম্যান বলেন, ‘এই ভয়াবহ ঘটনার পুরোটা না জানা পর্যন্ত আমরা থেমে থাকবো না’।

এবিষয়ে নিউইয়র্ক টাইমস জানিয়েছে যে, ঐ কেয়ার হোমে ‘ভিজিটেটভি স্টেটে’ থাকা এসব জ্ঞানহীন রোগীদের পোশাক পরিবর্তন বা তাদের গোসল করানোর সময় তাদের নগ্ন করে রাখা হতো এবং কোনো ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রক্ষা করা হতো না।

তবে ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর কেয়ার হোমের কিছু নিয়মকানুনে পরিবর্তন আনা হয়েছে। এখন কেয়ার হোম পুরুষ কর্মী কোনো নারী রোগীর ঘরে ঢুকতে চাইলে তাকে একজন নারী সহকর্মীকে সঙ্গে রাখতে হবে।

এই ঘটনায় ফিনিক্স পুলিশের একজন মুখপাত্র বিস্তারিত তথ্য দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বলেন এই ঘটনা নিয়ে তাদের তদন্ত চলছে।

কেয়ার হোম কর্তৃপক্ষ জনিয়েছে, তারা পুলিশের তদন্তের সাথে পরিপূর্ণভাবে সহযোগিতা করছেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)