আপডেট ২৮ মিনিট ৩৪ সেকেন্ড

ঢাকা শুক্রবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ , গ্রীষ্মকাল, ৯ রমযান, ১৪৩৯

ব্যবসা-বাণিজ্য ১২ উদ্যোক্তা ও দুই প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করল সিটি ফাউন্ডেশন

১২ উদ্যোক্তা ও দুই প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করল সিটি ফাউন্ডেশন

নিরাপদ নিউজ : ঠাকুরগাঁওয়ের নিশ্চিন্তপুরের মাসুমা খানম পনির তৈরি করেন। পরিচ্ছন্ন পরিবেশে স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে তৈরি করা এসব পনির রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বড় বড় শহরে বিক্রি হচ্ছে। পঞ্চাশোর্ধ্ব এই নারী উদ্যোক্তার কারখানায় কাজের সুযোগ হয়েছে অসহায় আরো অনেক নারীর। কারখানায় প্রতিদিন দুই হাজার ২০০ লিটার দুধের জোগান দিয়ে আর্থিকভাবে সচ্ছল হয়েছেন একই গ্রামের অনেক খামারি।

ক্ষুদ্রঋণ নিয়ে প্রত্যন্ত গ্রামের এই নারী উদ্যোক্তার অসামান্য সাফল্যের স্বীকৃতিস্বরূপ তাঁকে ‘শ্রেষ্ঠ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা’ বিভাগে পুরস্কৃত করেছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় আর্থিক প্রতিষ্ঠান সিটি গ্রুপের মানবকল্যাণমুখী সংগঠন সিটি ফাউন্ডেশন।

গতকাল শনিবার রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে সিটি ফাউন্ডেশন আয়োজিত ‘১৩তম সিটি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা পুরস্কার’ প্রদান অনুষ্ঠানে বন ও পরিবেশ মন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদের হাত থেকে এ পুরস্কারের সাড়ে চার লাখ টাকার চেক ও ক্রেস্ট গ্রহণ করেন মাসুমা খানম।

এ বছর ‘শ্রেষ্ঠ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা’ বিভাগে প্রথম রানার-আপ পাবনার মো. সিরাজুল ইসলাম এক লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় রানার-আপ ফেনীর মো. সলিম উদ্দিন এক লাখ টাকা পুরস্কার পান।

এ ছাড়া ‘শ্রেষ্ঠ নারী ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা’ বিভাগে ফরিদপুরের ফার্নিচার শিল্পী খালেদা আক্তার তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা, প্রথম রানার-আপ বগুড়ার মিলি খাতুন এক লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় রানার-আপ হবিগঞ্জের জাকিয়া আফরিন মুক্তা এক লাখ টাকা পুরস্কার পান।

‘শ্রেষ্ঠ তরুণ ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা’ বিভাগে বিজয়ী কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার পোল্ট্রি খামারি মো. শাহিনুর রহমান তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা, প্রথম রানার-আপ মেহেরপুরের মোছা. সাহিদা খাতুন এক লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় রানার-আপ ঢাকার উম্মে শায়লা রুমকী এক লাখ টাকা পুরস্কার লাভ করেন।

‘শ্রেষ্ঠ কৃষি ক্ষুদ্র উদ্যোক্তা’ বিভাগে বিজয়ী হিসেবে সাতক্ষীরা কলারোয়ার রঙিন মাছ চাষি মো. সাইফুল্লাহ গাজী তিন লাখ ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার পান। মাত্র ছয় জোড়া রঙিন মাছ নিয়ে শুরু করা এই হ্যাচারি মালিক স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে এসব রঙিন মাছ বিদেশেও রপ্তানির স্বপ্ন দেখছেন। একই বিভাগে প্রথম রানার-আপ কুষ্টিয়ার বিউটি বেগম এক লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং দ্বিতীয় রানার-আপ রাঙামাটির শ্যামল বসু এক লাখ টাকা পুরস্কার পান।

স্থানীয় ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের প্রশিক্ষণের পাশাপাশি ভিন্নধর্মী লাভজনক ব্যবসা দাঁড় করানোর মতো ব্যতিক্রমী বেশ কিছু কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বছরের সেরা সৃজনশীল ক্ষুদ্রঋণ সংস্থা বিভাগে বিজয়ী হয়েছে নোয়াখালীর বেসরকারি সংস্থা সাগরিকা সমাজ উন্নয়ন সংস্থা। এ ছাড়া বছরের সেরা ক্ষুদ্রঋণ সংস্থা বিভাগে বিজয়ী হয়েছে মমতা নামের একটি ক্ষুদ্রঋণদাতা প্রতিষ্ঠান।

পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে পরিবেশমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেন, দেশের প্রবৃদ্ধির হার ভালো হলেও এখনো বৈষম্যহীন উন্নয়ন সম্ভব হয়নি। তবু এই ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা বড় ধরনের ভূমিকা রাখায় দেশের অর্থনীতি দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে।

আরলিংকস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও এই পুরস্কারের ভারপ্রাপ্ত উপদেষ্টা পরিষদের চেয়ারপারসন রোকেয়া আফজাল রহমান বলেন, ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা ক্ষুদ্রঋণদাতা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ছোট অঙ্কের ঋণ নিয়ে অর্থনৈতিক উন্নয়নে বড় ধরনের ভূমিকা রাখছে। দেশের ব্যাংকগুলোতে এখনো এরা অনেকটা অবহেলিত। অথচ বড় অঙ্কের ঋণ দিয়ে ব্যাংকগুলোর খেলাপি ঋণের বোঝা বাড়ছে। বড় গ্রাহকরা কোটি কোটি টাকা খেলাপি হচ্ছে; কিন্তু এই এমএফএসগুলো ঠিকই লাভজনকভাবে ব্যবসা পরিচালনা করছে।

অনুষ্ঠানে সিটি বাংলাদেশের ম্যানেজিং ডিরেক্টর, কান্ট্রি অফিসার এন রাজাশেকারান শেখর, সাজেদা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক জাহিদা ফিজ্জা কবির, ক্রেডিট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ফোরামের নির্বাহী পরিচালক মো. আব্দুল আউয়াল, পুরস্কারের উপদেষ্টা পরিষদ এবং বাছাই কমিটির সম্মানিত উচ্চপদস্থ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সিটি ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে সিটি ব্যাংক এনএ ২০০৫ সাল থেকে এ পুরস্কার দিয়ে আসছে। সিটিব্যাংক এনএ ছাড়াও সাজেদা ফাউন্ডেশন ও ক্রেডিট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট ফোরামের (সিডিএফ) উদ্যোগে এ কর্মসূচি পালিত হচ্ছে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)