ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট নভেম্বর ৩০, ২০১৪

ঢাকা বুধবার, ৯ কার্তিক, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ২৪ সফর, ১৪৪১

কৃষি ১৯ লাখ টন পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ

১৯ লাখ টন পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ

২০১৪-১৫ রবি মৌসুমে পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা

২০১৪-১৫ রবি মৌসুমে পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা

ঢাকা, ৩০ নভেম্বর, নিরাপদনিউজ : চলতি ২০১৪-১৫ রবি মৌসুমে সরকার এক লাখ ৯০ হাজার হেক্টর জমি থেকে ১৯ লাখ মেট্রিক টন পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। উত্তরাঞ্চলের কৃষকরা ইতোমধ্যে মসলা জাতীয় ফসলের উৎপাদন শুরু করে দিয়েছে। পেঁয়াজ উৎপাদন কর্মসূচির আওতায় উত্তরাঞ্চলে ৮৫ হাজার ৫৭৯ হেক্টর জমি থেকে আট লাখ ৫৫ হাজার টন পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে, যা জাতীয় উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রার ৪৫ দশমিক ০৪ শতাংশ।
কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের (ডিএই) সূত্র মতে চলতি মৌসুমে দেশে গড়ে প্রতি হেক্টর জমি থেকে ১০ টন পেঁয়াজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে আগাম আবাদ করা শীতকালীন বিভিন্ন ধরনের পেঁয়াজ স্থানীয় বাজারে চলে এসেছে, যা প্রতি কেজি ২৫ থেকে ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। পাশাপাশি পুরোদমে চলছে পেঁয়াজের আবাদ। কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন, বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক ও বিভিন্ন এনজিও পেঁয়াজ আবাদ কর্মসূচি সফল করতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। গৃহীত পদক্ষেপগুলোর মধ্যে রয়েছে উন্নতমানের বীজ বিতরণ, স্বল্প সুদে সহজ শর্তে কৃষি ঋণ প্রদান, প্রশিক্ষণ প্রদান, কারিগরি সহায়তা ইত্যাদি।
ডিএই’র উপ-পরিচালক জুলফিকার হায়দার জানান, সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের কারণে এখন দেশে একবারের স্থলে দুইবার করে পেঁয়াজের আবাদ করা হচ্ছে। এ কারণে প্রতিবছর পেঁয়াজের আমদানি হ্রাস পাচ্ছে। উদ্যান বিশেষজ্ঞ খন্দোকার মো. মেছবাহুল ইসলাম জানান, বছরে দুইবার করে পেঁয়াজ আবাদের ফলে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে পেঁয়াজ আমদানি হ্রাসের পাশাপাশি আত্মনির্ভরশীলতা অর্জন করা যাচ্ছে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)