ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট জুন ১, ২০১৫

ঢাকা সোমবার, ২ আশ্বিন, ১৪২৬ , শরৎকাল, ১৭ মুহাররম, ১৪৪১

জাতীয়, লিড নিউজ ২০ ঘণ্টার পর আগুন নিভলো, পুরো ভবন ধসে পড়াতে পারে

২০ ঘণ্টার পর আগুন নিভলো, পুরো ভবন ধসে পড়াতে পারে

image_228566.1

২০ ঘণ্টার পর আগুন নিভলো, পুরো ভবন ধসে পড়াতে পারে

গাজীপুর, ০১ জুন ২০১৫, নিরাপদ নিউজ : গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলায় ডিগনিটি টেক্সটাইল মিল ভবনের কয়েকটি তলা আগুনে পুড়ে ধসে পড়েছে। পুরো ভবনটি ধসে পড়ার আশঙ্কায় আগেই সকল শ্রমিকদেরকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে ফায়ার সার্ভিস পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে।

রোববার দুপুর ২টার দিকে লাগা আগুন সোমবার সকাল ১০টায় নিয়ন্ত্রণে আসে। প্রায় ২০ ঘণ্টার পর ওই কারখানার আগুন নেভানো সম্ভব হয়। ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ রোববার রাতেই তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। পরে সকালেও ওই কারখানর দুতলায় আগুন জ¦লতে দেখে ফায়ার সার্ভিস সকাল ৯টায় ফের আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজ শুরু করে।

গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক আক্তারুজ্জামান লিটন জানিয়েছেন, স্টিলের তৈরি ওই ভবনটি আগুনে গরম হয়ে যাওয়ায় এবং পানি পৌঁছানো সম্ভব না হওয়ায় আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজে বিঘ্ন ঘটেছে। সাত তলা ওই কারখানা ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ঢাকা, জয়দেবপুর, শ্রীপুর, ঢাকা সদর দফতর, এবং ময়মনসিংহের ভালুকা স্টেশনের ১৪টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে তারা আপ্রাণ চেষ্টা করেও ২০ ঘন্টায় আগুন নেভাতে পারেনি।

পরে সকালে সাততলা ভবনটির উপরের তিন তলা ধসে পড়লে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। পরে ধোঁয়া উড়তে থাকলে ফায়ার দমকল বাহিনী পানি ছিটিয়ে সকাল ১০টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

সকালে ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামান লিটন বলেন, রাত ২টার দিকে কারখানা ভবনের বাইরের দিকের স্টিলের পাত খুলে পড়তে শুরু করে। সকাল ৯টা পর্যন্ত সাত তলা ওই ভবনের তিন তলা পর্যন্ত ধসে পড়েছে। এ কারণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করছে। এই ধরনের ভবনে আগুন নিয়ন্ত্রণের অভিজ্ঞতা তাদের নেই বলে জানান ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা।

তিনি জানান, আগুনের উত্তাপে ভবনের স্টিলের ফ্রেম দুর্বল হয়ে পড়েছে। ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় আগেই আশপাশের বাড়ি থেকে লোকজনকে সরে যেতে বলা হয়েছে। অগ্নিকান্ডের কারণ ও হতাহতের বিষয়ে কোনো ঘটনা ঘটেনি।

কারখানার ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) নাজমুন্নাহার বলেন, আগুনে তৈরি পোশাকসহ বিভিন্ন মালামাল পুড়ে গেছে।

 

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)