ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ১২ মিনিট ৩৫ সেকেন্ড

ঢাকা সোমবার, ৭ কার্তিক, ১৪২৫ , হেমন্তকাল, ১২ সফর, ১৪৪০

নিসচা সংবাদ, রাজশাহী, লিড নিউজ ৫০০ চালকের মাথায় হেলমেট পরিয়ে দিলেন জুনাইদ আহমেদ পলক ও ইলিয়াস কাঞ্চন

৫০০ চালকের মাথায় হেলমেট পরিয়ে দিলেন জুনাইদ আহমেদ পলক ও ইলিয়াস কাঞ্চন

নিরাপদ নিউজ: সড়কে নিরাপত্তা ও দুর্ঘটনা রোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে পাঁচ শতাধিক চালকের মাথায় হেলমেট পরিয়ে দিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ও নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ও চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন ।

এ সময় পলক বলেন, সড়কে নিরাপত্তা ও দুর্ঘটনা রোধে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। ইতোমধ্যে নিরাপদ সড়ক আইন সংসদে পাস হয়েছে। ২২ অক্টোবরকে নিরাপদ সড়ক দিবস ঘোষণা করেছে সরকার। নিরাপদ সড়কের জন্য মালিক-শ্রমিক ও পথচারীদের নিজ নিজ ক্ষেত্রে সচেতন হতে হবে। দায়িত্বের প্রতি অবহেলা করা যাবে না।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে নাটোরের সিংড়া উপজেলা কোর্ট মাঠে ‘নিরাপদ সড়ক চাই’ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। পরে ব্যক্তিগত উদ্যোগে পাঁচ শতাধিক চালকের মাঝে হেলমেট বিতরণ করেন প্রতিমন্ত্রী। এ সময় মোটরসাইকেল চালকদের হেলমেট পরিয়ে দেন জুনাইদ আহমেদ পলক ও ইলিয়াস কাঞ্চন।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে আমরা লিফলেট বিতরণ করেছি। স্কুল-কলেজে প্রচারণা চালিয়েছি। মোটরসাইকেল আরোহীদের নিরাপত্তায় হেলমেট বিতরণ করেছি। কারণ আমরা সবাই নিরাপদ সড়ক চাই।

সিংড়া প্রেস ক্লাব ও নিসচার সাবেক সভাপতি মো. এমরান আলী রানার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নিরাপদ সড়ক চাই- এর চেয়্যারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, জীবন একবার, মরণও একবার। জীবনের প্রতি ভালোবাসা থাকতে হবে। দেশের প্রতি, জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ জাগ্রত করতে হবে। সিংড়ায় পলকের উদ্যোগে ফুটওভার ব্রিজ নির্মাণ হচ্ছে। কাজেই পথচারীদের ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করতে হবে। ইলিয়াস কাঞ্চন আরো বলেন, সড়ক দুর্ঘটনারোধে আমাদের সকলের এগিয়ে আসতে হবে এবং ট্রাফিক আইন মেনে চলতে হবে। দেশে যে অবস্থা দাড়িয়েছে তাতে করে শুধু সরকার বা পুলিশের পক্ষে এই দুর্ঘটনা রোধকরা সম্ভব নয়। যারা মোটরসাইকেল চালক তাদের বাবা মায়ের উদ্দেশ্যে বলতে চাই। যে সন্তানরাদের বাবা মা বাইক কিনে দিচ্ছেন। আপনারা কি কখনো ছেলেকে বলেছেন তোমরা ট্রেনিং নিয়েছো কিনা। তোমার ড্রাইভিং লাইসেন্স আছে কিনা? আপনাদের প্রতি আমার আহবান,আপনার সন্তানকে বাইক কিনে দেবার আগে আপনি আপনার সন্তানকে বলুন, তুমি আগে বিআরটিএ থেকে সঠিকভাবে বাইক চালানো শিখে লাইসেন্স এনে দেখাও এরপর তোমাকে বাইক কিনে দেব। সড়কদুর্ঘটনারোধে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, যারা মোটর সাইকেল বিক্রি করেন সরকার পক্ষ থেকে এমন প্রজ্ঞাপন জারি করা হোক যাদের মোটরসাইকেল চালানোর লাইসেন্স নেই তাদের কাছে যেন মোটরসাইকেল বিক্রি করা না হয়।

ইলিয়াস কাঞ্চন আরো বলেন,  অনেক চালক আছেন যারা গাড়ি চালানোর সময় খুবই অসতর্ক থাকেন। সড়ক নিরিবিলি পেলেই অনেক দ্রুত গাড়ি চালান। রাস্তার অনেক জায়গায় স্পীড ব্রেকার থাকে, তারা এগুলো খেয়াল করেন না। অন্য গাড়িকে ওভারটেক করার প্রবণতা থাকে অনেক বেশী। যে ভুলের মাশুল দিতে হয় জীবন হারিয়ে। জেব্রা ক্রসিং এ রাস্তা পারাপাররত মানুষও জীবন ঝুঁকিতে থাকেন এদের কারণে। অনুষ্ঠানে ইলিয়াস কাঞ্চন ৫০০ বাইক চালককে শপথ করান কেউ যেন আজ থেকে আর কখনো আইন অমান্য করে হেলমেট বিহীন না বাইক চালায় সেই সাথে বাইক আরোহীদেরও হেলমেট ব্যাবহারে অভ্যস্থ হবার আহবান জানান।

সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- সিংড়া পৌরসভার মেয়র মো. জান্নাতুল ফেরদৌস, নাটোরের পুলিশ সুপার বিপ্লব বিজয় তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ওহিদুর রহমান শেখ, চৌগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম ভোলা, ইটালি ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম আরিফ, নিসচার জেলা কমিটির সভাপতি গোলাম মোস্তফা, সিংড়া প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, নিসচার উপজেলা শাখার সভাপতি প্রভাষক মিজানুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন অপূর্ব প্রমুখ। অনুষ্ঠানে নিরাপদ সড়ক চাই এর চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন এর সঙ্গে আরো উপস্থিত ছিলেন,নিসচা’র কেন্দ্রিয় মহাসচিব ও প্রধান প্রশিক্ষক সৈয়দ এহসান উল হক কামাল, নিসচা’র কেন্দ্রিয় যুগ্ম মহাসচিব লিটন এরশাদ,সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম আজাদ হোসেন ,নিসচার কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্মমহাসচিব বেলায়েত হোসেন খান নান্টু।

পাঁচ শতাধিক চালককে নিজ উদ্যোগে হেলমেট বিতরণের কারণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, এই উদ্যোগটি আমি নিয়েছি ব্যক্তিগত একটি অভিজ্ঞতা থেকে। বেশ কিছুদিন থেকে আমি নিজের একটি কাজের ভুলের জন্য মনে মনে নিজেকে অপরাধি মনে করছিলাম। বিষয়টি খুলে না বললেই নয়। সম্প্রতি আমার এলাকায় শিক্ষামন্ত্রী এসেছিলেন। কাজের ব্যাস্ততায় তারাহুড়ো করতে গিয়ে মন্ত্রীর কাছে পৌছতে অামি একজনের মোটর সাইকেলে চড়ে সেখানে যাই। তারাহুড়োর কারণে আমি নিজে হেলমেট পড়তে ভুল করি। এই হেলমেট ছাড়া মোটরবাইকে ওঠার একটি ছবি ফেসবুকে কেউ একজন পোস্ট করে দেন এরপর এটি ভাইরাল হয়ে পড়ে। বিষয়টি নিয়ে আমি সত্যি অনেক লজ্জিত ছিলাম। নিজে নিজে উপলব্ধি করতে থাকি। আমি একজন দায়িত্বশীল মন্ত্রী। আমি যদি এভাবে চলি ভবিষ্যতে অন্যরা আমাদের কাছ থেকে তাহলে কি শিখবে। এই দায়বদ্ধতা থেকেই আমার এই উদ্যোগ মোটরসাইকেল চালকদের মাঝে হেলমেট বিতরণ করা। তিনি আরো বলেন, আমি সত্যি আজ অনেক আনন্দিত এই কারণে যে, আমার এই অনুষ্ঠানে আমাদের সকলের প্রিয় ব্যক্তিত্ব পর্দা এবং বাস্তবের নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনকে পেয়েছি। ইলিয়াস কাঞ্চন আজ শুধু রূপালী পর্দার নায়ক নন তিনি বাস্তব জীবনের একজন সত্যিকারের নায়ক। এই মানুষটির হাত দিয়ে আজ এতগুলো বাইক চালকদের মাঝে হেলমেট বিতরণ করতে পেরে সত্যি আজ অনেক ভালো লাগছে। তিনি সকল মটর বাইক চালকদের সাবধানতা অবলম্বন করে পথ চলার আহবান জানান এবং হেলমেট ছাড়া বাইক না চালানোর দিক নির্দেশনা দেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)