ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ২৭ মিনিট ১৫ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ১২ মাঘ, ১৪২৬ , শীতকাল, ২৯ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১

বিনোদন আমজাদ হোসেনের চিরবিদায়ের এক বছর আজ

আমজাদ হোসেনের চিরবিদায়ের এক বছর আজ

নিরাপদ নিউজ: আমহাদ হোসেন। বাংলা চলচ্চিত্রাঙ্গণের একটি নিভে যাওয়া নক্ষত্র। একাধারে তিনি ছিলেন লেখক, চলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, সংলাপ রচয়িতা, কাহিনিকার, গীতিকার, প্রযোজক ও অভিনেতা। চলচ্চিত্রের প্রতিটি ক্ষেত্রেই তিনি প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে গেছেন। তার স্বীকৃতিও পেয়েছেন দুহাত ভরে। বাংলা চলচ্চিত্রের অন্যতম সেরা একজন পরিচালক মনে করা হয় তাকে। তার হাতে নির্মিত হয়েছে বহু জনপ্রিয় সিনেমা।

সেই আমজাদ হোসেন পৃথিবী ছেড়েছেন এক বছর হলো। আজ তার প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী। গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর বিকাল তিনটায় তিনি ব্যাংককে চিকিৎসারত অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার আগে ১৮ নভেম্বর গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে রাজধানীর ইমপালস হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহায়তায় উন্নত চিকিৎসার জন্য নির্মাতাকে ব্যাংককে পাঠানো হয়।

১৯৪২ সালের ১৪ আগস্ট জামালপুরে জন্ম নেয়া আমজাদ হোসেন চলচ্চিত্রে এসেছিলেন অভিনয়ের মাধ্যমে। ১৯৬১ সালে ‘তোমার আমার’ নামে একটি ছবিতে তিনি অভিনয় করেন। পরবর্তীতে মনোনিবেশ করেন চিত্রনাট্য রচনা ও চলচ্চিত্র পরিচালনায়। ‘আগুন নিয়ে খেলা’, ‘জন্ম থেকে জ্বলছি’, ‘দুই ভাই’, ‘পিতা পুত্র’ ‘নয়নমনি’, ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘ভাত দে’র মতো ছবিগুলো নির্মাণ করে তিনি ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছেন।

এতসব অনবদ্য সৃষ্টির জন্য বহু পুরস্কৃতও পেয়েছেন আমজাদ হোসেন। ১২ বার জিতেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এর মধ্যে আছে শ্রেষ্ঠ পরিচালক, শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার, শ্রেষ্ঠ গীতিকার, শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা, শ্রেষ্ঠ কাহিনিকার ও শ্রেষ্ঠ প্রযোজকের পুরস্কার। এছাড়া তার ঝুলিতে ছয়টি বাচসাস পুরস্কার, একুশে পদক ও বাংলা একাডেমি পুরস্কারও রয়েছে। এমন একজন কিংবদন্তিকে হারানোর শুন্যতা চিরকালই অনুভব করবে বাংলা চলচ্চিত্র।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)