ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মার্চ ২২, ২০১৭

ঢাকা সোমবার, ১৪ মাঘ, ১৪২৬ , শীতকাল, ১ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস, নিসচা সংবাদ, লিড নিউজ উম্মে আরা মিতা স্মরণে ইলিয়াস কাঞ্চন: নিরাপদ সড়ক চাই একজন দক্ষ ও সফল যোদ্ধাকে হারিয়েছে

উম্মে আরা মিতা স্মরণে ইলিয়াস কাঞ্চন: নিরাপদ সড়ক চাই একজন দক্ষ ও সফল যোদ্ধাকে হারিয়েছে

 

উম্মে আরা মিতা স্মরণে ইলিয়াস কাঞ্চন: নিরাপদ সড়ক চাই একজন দক্ষ ও সফল যোদ্ধাকে হারিয়েছে

লিটন এরশাদ, ২২ মার্চ ২০১৭, নিরাপদনিউজ: নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র কেন্দ্রীয় কমিটির আয়োজনে এই আন্দোলনের একজন সহযোদ্ধা উম্মে আরা মিতা স্মরণে দোয়া মাহফিল ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয় গতকাল ২১ মার্চ মঙ্গলবার। এই আয়োজনে মূল বক্তা ছিলেন নিসচা প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।নিসচা কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিলে একপর্যায়ে শোকাবহ পরিবেশের আবহ তৈরি হয়।
আয়োজনে উপস্থিত থেকে মরহুমার কর্মময় জীবন নিয়ে স্মৃতিচারণমূলক আলোচনায় অংশ নেন তাঁর দুই সন্তান রাজীব আল আজাদ, সজিব আল আজাদ, ভাগ্নে জাহিদ চৌধুরী, নিসচা’র ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসান-উল হক কামাল, মহাসচিব শামীম আলম দীপেন, যুগ্ম মহাসচিব সাদেক হোসেন বাবুল, বেলায়েত হোসেন খান নান্টু, লায়ন গনি মিয়া বাবুল, অর্থ সম্পাদক নাসিম রুমি, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুর রহমান, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল মইন জয়, দুর্ঘটনা অনুসন্ধান ও গবেষণা বিষয়ক সহ সম্পাদক মোঃ আলাল উদ্দিন (সাধারণ সম্পাদক নিসচা ভৈরব শাখা) প্রমুখ। আরও উপস্থিত ছিলেন নিসচার প্রশিক্ষণ সম্পাদক ফারিহা ফাতেহ, কার্যনির্বাহী সদস্য কামাল হোসেন খান, কার্যনির্বাহী সদস্য সুরাইয়া রহমান মনি, কার্যনির্বাহী সদস্য আবু বকর সিদ্দিক রাব্বী, কার্যনির্বাহী সদস্য আনারুল হক, আজীবন সদস্য হুমায়ূন কবির, সাধারণ সদস্য বেবী ইসলাম, শেখ কবিরুল ইসলাম, রাজা মান্নান, নিসচা কদমতলী থানা শাখার সদস্য সচিব মোঃ সোলায়মানসহ মরহুমার সুহৃদজনেরা। স্মরণসভা পরিচালনা করেন নিসচা’র যুগ্ম মহাসচিব লিটন এরশাদ।
স্মরণসভায় উম্মে আরা মিতার কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনায় বক্তারা মরহুমাকে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের অকুতোভয় সৈনিক হিসেবে আখ্যা দিয়ে পারিবারিক বন্ধু ও সৃহৃদজন হিসেবে তুলে ধরেন। বক্তারা আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন একজন নিবেদিত প্রাণ কর্মীকে হারিয়েছে। যে শূণ্যতা কোনদিনই পূরণ হবার মত নয়। বক্তারা মরহুমার কর্মময় জীবনের অসমাপ্ত কাজ বিশেষ করে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনকে আরও গতিশীল করে নেয়ার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন। বক্তাদের বক্তব্যে উম্মে আরা মিতার কষ্ট প্রকাশে ছিলেন কৃপণ, গভীর মমত্ববোধ প্রকাশ, আন্তরিকতা, স্বামী অন্তঃপ্রাণ, রাজনৈতিক সচেতন, পারিবারিক দায়িত্ববোধের পরিচয়, সদালাপী, বন্ধুবৎসল, সফল মা, কঠোর পরিশ্রমী, লোভ বিবর্জিত, প্রতিদান চাইতেন না, স্বীকৃতির জন্য কাজ নয়, হৃদয় মাখানো ভালবাসায় সকলকে আপন করে নেয়াসহ বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবনের সাফল্যের বিভিন্ন দিক উঠে আসে। বক্তারা মরহুমার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’র আয়োজনে সহযোদ্ধা উম্মে আরা মিতা স্মরণে দোয়া মাহফিল ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত

পরিশেষে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের প্রাণপুরুষ চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন উম্মে আরা মিতার কর্মময় জীবন নিয়ে আলোকপাত করেন। তিনি বলেন, তাঁর মৃত্যুতে নিরাপদ সড়ক চাই একজন দক্ষ ও সফল যোদ্ধাকে হারিয়েছে। ক্রমবর্ধমান সড়ক দুর্ঘটনারোধে তিনি নিজেকে আত্মনিবেদিত রেখেছেন। এই সংগঠনের সকল কর্মকান্ডে সর্বাঘ্রে অবস্থান ছিল তাঁর। মৃত্যু তাঁকে সামাজিক এই আন্দোলন থেকে দূরে সরিয়ে দিলেও সহযোদ্ধারা তাঁর কর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে এই আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। তিনি মরহুমার স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আরও বলেন, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনকে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছে দিতে একজন নিবেদিত প্রাণ কর্মী হিসেবে কাজ করেছেন উম্মে আরা মিতা। মরহুমাকে নিজের বোন হিসেবে তুলে ধরে বলেন, যখনই কোন ভালমন্দ কিছু হতো ভাইয়ের জন্য সেখানকার একটি অংশ নির্ধারিত থাকতো। এখন আমার বোনও নেই আর ভালবাসার কোন অংশ বা আহবানও আর থাকবে না। তিনি বলেন, উম্মে আরা মিতা চলে গেছেন কিন্তু তাঁর কাজ অসমাপ্ত রয়ে গেছে। সেই কাজ আমাদেরই এগিয়ে নিতে হবে।তাঁর জন্য সবাই দোয়া করবেন।
স্মরণসভায় মরহুমার দুই সন্তান রাজীব ও সজিব কর্মময় জীবনে চলার পথে তাদের মায়ের কোন ব্যবহার বা আচার আচরণে কোন দুঃখবোধ থেকে থাকলে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার আকুতিও জানায়। স্মরণসভা শেষে মরহুমার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
উল্লেখ্য তিনি গত ১২ মার্চ দুপুরে রাজধানীর মিরপুরে একটি হাসপাতালে জটিল রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।২০১০ সাল থেকেই তিনি নানা রোগে ভুগছিলেন।২০১৫ সালে বড় ধরণের একটি অপরেশনও করা হয় তাঁর শরীরে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৮। তিনি দুই ছেলে ও এক কন্যা সন্তানের জননী। মরহুমার স্বামী আবুল কালাম আজাদ নিরাপদ সড়ক চাই’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং প্রতিষ্ঠাতাকালীন সময় থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল কর্পোরেশনে কর্মরত আছেন। মৃত্যুর পূর্ব পর্যন্ত উম্মে আরা মিতা ঢাকা মহানগর উত্তর মহিলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক ছিলেন। মরহুমার দুই ছেলে রাজীব ও সজিব নিরাপদ সড়ক চাই’র সাথে যুক্ত আছেন। বলা চলে পুরো পরিবার এই সংগঠনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত আছেন।
নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের এই সহযোদ্ধার মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। আমরা মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)