আপডেট জানুয়ারী ১৮, ২০২০

ঢাকা বুধবার, ৭ ফাল্গুন, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ২৩ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১

টিভি প্রোগ্রাম এটিএন বাংলায় ধারাবাহিক নাটক ‘হুলুস্থুল’

এটিএন বাংলায় ধারাবাহিক নাটক ‘হুলুস্থুল’

নিরাপদ নিউজ: এটিএন বাংলায় আগামীকাল ১৯ জানুয়ারি রাত ৮.৪০ মিনিটে প্রচার হবে ধারাবাহিক নাটক ‘হুলুস্থুল’। মুহাম্মদ মামুন-অর-রশীদ এর রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন আল হাজেন। অভিনয় করেছেন আমিরুল হক চৌধুরী, চিত্রলেখা গুহ, ওয়াহিদা মল্লিক জলি, আনিসুর রহমান মিলন, নাদিয়া, ম ম ম মোর্শেদ, নাজিরা মৌ, জামিল প্রমুখ।
মতি মিয়া ১০ ছেলের জনক। ইচ্ছা ছিল একটি ফুটবল টিম গঠন করবেন। কিন্তু হলো না। এরপরও বাবার ইচ্ছার প্রতি শ্রদ্ধা রেখে বড় ছেলে প্রস্তাব দিয়েছে, আব্বা আপনি ক্যাপ্টেন হিসেবে থাকলেন। খুব বেশি দৌড়াদৌড়ির দরকার নেই। গোলকিপার হিসাবে থাকলেই বিশ্বকাপ তাদের কাছ থেকে কেউ ছিনিয়ে নিতে পারবে না। মতি মিয়া ভাবেন প্রস্তাব মন্দ না। কিন্তু এই বয়সে কি আর ফুটবল খেলা সম্ভব। তারপরও এ ছাড়া আর গতি কী? মতি মিয়া টার্গেট করে ২০২২ এর বিশ্বকাপ খেলবে তার ছেলেরা। তিনি নিজেই দলের ক্যাপ্টেন এবং কোচ। তার ছেলেদের কেউই এখনও বিয়ে করেনি। বড় ছেলের বয়স ৩০ পেরিয়েছে। সব থেকে ছোটটি প্রাইমারী স্কুলে পড়ে। তাও আবার মাত্র ক্লাস ফ্লোরে। বাবাকে বড় ছেলে মাঝে মাঝেই এসে বিয়ের কথা বলে। দিনের মধ্যে অন্তত কয়েকবার। মাকে গিয়ে বলে এর পরেতো আর কেউ তাকে মেয়ে দেবে না। এসব নিয়ে নিত্য দিন পরিবারে অশান্তি লেগেই থাকে। মতি মিয়া ছেলেদের বলে রাখেন তোমাদের যখন বিয়ে শুরু হবে তখন সাত দিনের মধ্যে সবার বিয়ে শেষ হয়ে যাবে। ছোট ছেলে বাবাকে বলে তার একটা পছন্দের মেয়ে আছে। একই সাথে পড়ে। এত ছোট বয়সেতো তার বাড়ি থেকে বিয়ে দেবে না। এ নিয়েতো বাবার সাথে ছোট ছেলের হেব্বি গ্যাঞ্জাম সৃষ্টি হয়।
যে কোন পথেই বড় ভাইয়ের বিয়ের প্রস্তাব আসলেই ঠেকিয়ে দেয়। বড় ছেলে বিয়ে পাগল লুৎফর এবার এই বয়সে প্রেমের অভিযানে নামে। প্রতিবেশী বিথি ফুপুর সাত মেয়ে। বিথি ফুপু ছেলে দেখে এত মেয়ে বিয়ে দিতে গেলে অন্তত আরো ৭০ বছর লাগবে। আর বিয়ের বাজার যে মন্দা। একটি ঘটনায় দুই পরিবারে বিরোধের সূত্রপাত হয়। যখন দুই পরিবার শত্র“তা করতে করতে সর্বনাশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে তখনই মিলনের সুর বেজে ওঠে। বিথির ছোট মেয়ে একদিন এসে জানায় মতি মামার ছেলেকে সে বিয়ে করে ফেলেছে। এই কথা শুনে বড় বোন বেলি কপাল চাপড়ায়। লুৎফর বলে ওরা পারলো কিন্তু আমরা কেন পারলাম না। তাহলেতো এই সংঘাত এতদূর পর্যন্ত গড়াতো না।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)