ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মার্চ ২৭, ২০২০

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ চৈত্র, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ১৩ শাবান, ১৪৪১

রাজশাহী করোনা থেকে সুরক্ষিত থাকতে জনশূন্য বগুড়া

করোনা থেকে সুরক্ষিত থাকতে জনশূন্য বগুড়া

নিরাপদ নিউজ: বগুড়ায় করোনাভাইরাস থেকে সুরক্ষিত থাকতে ফাঁকা হয়ে গেছে শহর। শহরে জরুরি সেবা ছাড়া কোথাও কোন দোকান পাট, খোলা নেই। সাধারণ ছুটির প্রথম দিনে প্রায় জনশূন্য ছিল শহরের জিরো পয়েন্ট সাতমাথা।

পুলিশ, সেনা সদস্য, র‌্যাব সদস্যদের এসময় বিভিন্ন সচেতনমূলক প্রচার প্রচারণা করতে দেখা গেছে। স্বাধীনতা দিবসের কোন অনুষ্ঠানও ছিল না।

বৃহস্পতিবার বগুড়া শহরের শেরপুর রোড, কলোনী, বরানীম খান্দার সড়ক, স্টেশন রোড, হর্কাস মার্কেট, চকযাদু রোড, বড়গোলায়, কাঁটালতলা, চেলোপাদা, নবাববাড়ি সড়ক, নিউ মার্কেট, থানা রোড, সাতমাথা, সপ্তপদী, গালাপট্টি, শহরের জলেশ্বরীতলাসহ বিভিন্ন এলাকায় দোকানপাট বন্ধ ছিল। বিপনী বিতান ও বড় বড় শো-রুমের পাশাপাশি বেসরকারি ব্যাংক বিমা বন্ধ ছিল।

একদিকে স্বাধীনতা দিবসের ছুটির সঙ্গে পড়েছে সরকারের সাধারণ ছুটিও। সব মিলিয়ে বগুড়া শহর ছিল নিশ্চুপ। তবে বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে ওষুধের দোকানের পাশপাপাশি কিছু মুদির দোকান ছিল খোলা। খোলা থাকলেও তেমন কোন ভিড় দেখা যায়নি। শহর থেকে দূরপাল্লার যানবাহন ছেড়ে যায়নি। সকল মেইল ট্রেন বন্ধ থাকায় বগুড়া রেলওয়ে স্টেশনে কোন ভিড় দেখা যায়নি। বৃহস্পতিবার সকালে শহরের সাতমাথায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা ও কর্মীরা জীবাণুনাশক ওষুধ ছিটিয়ে দিয়েছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে কার্যক্রমে সেনা সদস্যরা জেলা প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করছে। শহরের সাতমাথা দিয়ে গাড়িতে করে টহলকালে দেখা গেছে হ্যান্ডমাইকে বিভিন্ন ধরনের সচেতনতামূলক প্রচারনা করছেন সেনা সদস্যরা।কাজ শেষে তারা সেনানিবাসে ফিরে যাবেন বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান জানান, শহরের কোথাও কোন জনসমাগম দেখা যায়নি। স্বাধীনতা দিবসের কর্মসূচি সরকারি ও দলীয়ভাবে পালনকালেও সমাগম তেমন ছিল না। শহরবাসীকে ঘরে থাকতে বলা হয়েছে। বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে পুলিশ সদস্যরা নিরাপত্তার স্বার্থে পাহারা দিচ্ছেন। শহরে বা বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় অযথা কেউ যেন ভিড় না করে সে বিষয়ে বারবার করে সতর্ক করা হচ্ছে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)