ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মার্চ ১৩, ২০২০

ঢাকা রবিবার, ১৫ চৈত্র, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ৪ শাবান, ১৪৪১

রংপুর, সড়ক সংবাদ কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ভেঙ্গে গেছে ব্রিজের পাটাতন: ঝুঁকি নিয়ে পারাপার

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ভেঙ্গে গেছে ব্রিজের পাটাতন: ঝুঁকি নিয়ে পারাপার

নিরাপদ নিউজ : কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নের সীমান্ত ঘেঁষা তিনটি গ্রাম গোড়কমন্ডল, চর গোড়কমন্ডল ও কৃষ্ণানন্দ বকসীর একাংশ। এ জনপদ পশ্চিমে ধরলা নদী, উত্তরে ভারত ও পূর্বদিক বারো মাসিয়া নদী দ্বারা বেষ্টিত। এখানে বাস করে প্রায় ১০ হাজার মানুষ।
এ জনপদের মানুষের সারাদেশের সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র পথ চর গোড়কমন্ডল, গোড়কমন্ডল বাজার, ফুলমতি হয়ে বালারহাট পাঁকা সড়কটি। এ পথে গোড়কমন্ডল বাজার ও ফুলমতি উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঝামাঝি স্থানে বারোমাসিয়া নদীর ওপর রয়েছে একটি ব্রিজ।
ব্রিজটি অনেক পুরোনো। এর মাঝখানে পাটাতন ভেঙ্গে গেছে। ভেঙ্গে গেছে দু’পাশের রেলিং। ব্রিজের পশ্চিম প্রান্তের উইং ওয়াল অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। বাঁশের খুঁটি দিয়ে আটকানো হয়েছে সংযোগ সড়কের মাটি।
এমন অবস্থায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে হচ্ছে যানবাহন, পথচারী ও পণ্যবাহী বিভিন্ন বাহনকে। যেকোন সময় এখানে ঘটতে পারে মারাত্মক দুর্ঘটনা। কিন্তু কোনো বিকল্প পথ না থাকায় ঝুঁকি নিতে হচ্ছে এখানকার বাসিন্দাদের। এখানে রয়েছে চর গোড়কমন্ডল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, গোড়কমন্ডল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কান্দাপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কৃষ্ণানন্দ বকসী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। রয়েছে আনন্দ বাজার ও বিডিআর বাজার নামে দু’টি বাজার। বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষক শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী, কৃষক ও সাধারণ মানুষকে প্রতিদিন জীবিকার তাগিদে এ ব্রিজটি দিয়ে যাওয়া আসা করতে হয়। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে ভাঙ্গা ব্রিজটির সংস্কার না হওয়ায় এখানকার জনমনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। জানমালের নিরাপত্তা রক্ষায় তারা দ্রুত বিজটি সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে নাওডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুসাব্বের আলী মুসা বলেন, ব্রিজটি সংস্কারের জন্য এলজিইডি অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তারা স্টিমেট করে নিয়ে গেছে। বাজেট এলে সংস্কার হবে আশা করছি। ব্রিজটি সংস্কারের ব্যাপারে উপজেলা প্রকৌশলী আসিফ ইকবাল রাজিবের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, ক্ষতিগ্রস্ত অংশের সংস্কারের জন্য মেজারমেন্ট রিপ্লেস দিয়েছি। এ বছর আমাদের বরাদ্দ দেয়নি। আগামী বছর বরাদ্দ ‍এলে সংস্কার কাজ করা হবে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)