ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মার্চ ৬, ২০১৯

ঢাকা শুক্রবার, ২৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৫ রবিউস-সানি, ১৪৪১

রাজনীতি, লিড নিউজ ‘খালেদা জিয়া আর ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা এক নয়’

‘খালেদা জিয়া আর ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসা এক নয়’

নিরাপদ নিউজ: আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানো হলেও কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে কেন পাঠানো হচ্ছে না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ওবায়দুল কাদের কোনো কারারুদ্ধ মানুষ নন, তিনি একজন মুক্ত ও স্বাধীন মানুষ। তিনি অসুস্থ হয়েছেন তাই তাকে বিদেশে পাঠানো হয়েছে; জনসাধারণ, বিএনপির অন্যানরাও যেভাবে চিকিৎসার জন্য বিদেশে যায়। খালেদা জিয়া অপরাধের দায়ে একজন দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তি। তার চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়া একই বিষয় নয়।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যায় চাঁদপুর শহরের কদমতলা নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলছিলেন দীপু মনি।

তখন ওবায়দুল কাদেরকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানো ও খালেদা জিয়াকে না পাঠানোর ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বলেন, খালেদা জিয়ার যে অসুস্থতা, সেই অসুস্থতার ভালো চিকিৎসা যদি দেশে না হতো, তাহলে আদালতের নির্দেশেই তাকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা করানো হতো।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- চাঁদপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, সাধারণ সম্পাদক আলী আরশাদ মিয়াজী, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আজিজ বাদল প্রমুখ।

পরে চাঁদপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ডা. দীপু মনি।

দলের চেয়ারপারসন কারাবন্দী বেগম খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসাসংক্রান্ত বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের সাথে বৈঠকে বসেছেন বিএনপি নেতারা। দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে ছয়জন শীর্ষ নেতা আজ মঙ্গলবার বেলা আড়াইটায় সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে বৈঠকে বসেন।

বৈঠকে উপস্থিত আছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মির্জা আব্বাস ও আবদুল মঈন খান।

বিশেষায়িত হাসপাতালে খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য এর আগেও একাধিকবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে বৈঠক করেছে বিএনপির একাধিক প্রতিনিধিদল।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. মো: আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর কারাদণ্ড দেন। ওই দিন থেকেই পুরান ঢাকার সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারের পরিত্যক্ত ভবনে একমাত্র বন্দী তিনি। বিএনপি দীর্ঘদিন ধরে তার সুচিকিৎসা ও মুক্তির দাবি জানিয়ে আসছে। তার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন ধরনের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করে আসছে বিএনপিসহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন। এসব কর্মসূচির মধ্যে বিক্ষোভ মিছিল, মানববন্ধন, অবস্থান ও অনশন কর্মসূচি, গণস্বাক্ষর, স্মারকলিপি প্রদান, কালো পতাকা প্রদর্শন, লিফলেট বিতরণ, জনসভা, আলোচনা সভা এবং প্রতিবাদ মিছিলের কর্মসূচি অন্তর্ভুক্ত ছিল।

সর্বশেষ গত রোববার পরিত্যক্ত কেন্দ্রীয় কারাগারের অস্থায়ী আদালতে এসে খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘আমার শরীরটা ভালো যাচ্ছে না। খুবই অসুস্থ আমি। চিকিৎসকরা দরকারি চিকিৎসাসেবা দিচ্ছেন না। মাত্র একবার এসে চিকিৎসকরা দেখে গেছেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য রক্ত নেয়া হয়নি। ডায়াবেটিসের রোগী হিসেবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে না। থেরাপি ঠিকমতো দেয়া হচ্ছে না। আমি সত্যিই অসুস্থ।’

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)