ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৭ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড

ঢাকা সোমবার, ১ পৌষ, ১৪২৬ , শীতকাল, ১৮ রবিউস-সানি, ১৪৪১

বিনোদন গানের সুর নকলের অভিযোগ!

গানের সুর নকলের অভিযোগ!

নিরাপদ নিউজ: পাসওয়ার্ড ছবি নিয়ে এবার টনক নড়েছে সেন্সর বোর্ডের সদস্যদের। শাকিব খানের ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিটি শুরু থেকেই নানা কারণে সমালোচনার মুখে পড়ে। বিশেষ করে নকলের অভিযোগ এনে তুমুল হৈ চৈ পড়ে যায় চারদিকে। বিশেষ করে ছবিটির বিরুদ্ধে নকলের অভিযোগ এবং সেন্সর বোর্ডে চিঠি দেয়া- শুরু হয় আবার আলোচনা। সেই রেশ যেতে না যেতেই আবারো ছবিটির একটি গান নিয়ে উঠে নকলের অভিযোগ। এরপরই টনক নড়ে সেন্সর বোর্ডের সদস্যদের। শুধু টনক নড়া নয়, ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির প্রযোজককে নোটিশ পাঠিয়েছে সেন্সর বোর্ড। এ বিষয়ে সেন্সর বোর্ডের সচিব মোমিনুল হক জীবন বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে নকলের স্বপক্ষে খবর ও লিখিত অভিযোগ আসায় সিনেমাটির প্রযোজককে নোটিশ পাঠিয়েছি। নোটিশে এক সপ্তাহ কার্যদিবসের মধ্যে নকল প্রসঙ্গে প্রযোজনা সংস্থার অবস্থান জানাতে বলা হয়েছে। সে হিসেবে আগামী বুধবার এক সপ্তাহের কার্যদিবস শেষ হবে। অন্যদিকে একটি গানের সুর চুরির অভিযোগ নিয়ে মোমিনুল হক জীবন বলেন, তিনি (শওকত আলী ইমন) অভিযোগ করলে বিষয়টি খতিয়ে দেখব। ছবিটির ‘আগুন লাগাইলো’ শিরোনামের আইটেম গানটি ইমনের একটি গানের সুর থেকে নকল করা হয়েছে বলে দাবি করলেন তিনি। শনিবার বিকালে শওকত আলী ইমন ফেসবুকে একটি ভিডিও পোস্ট করে এই অভিযোগ আনেন। তিনি বলেছেন এ ব্যাপারে সেন্সর বোর্ডে চিঠি দেয়া হবে। এবার ছবিটির বিরুদ্ধে গানের সুর নকল করার অভিযোগ আনলেন দেশের জনপ্রিয় সংগীত পরিচালক শওকত আলী ইমন।
এদিকে নাটক ও বিজ্ঞাপন নির্মাতা আনন্দ কুটুম ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির প্রযোজক (শাকিব খান ও ইকবাল) এবং পরিচালকের (মালেক আফসারী) বিরুদ্ধে সেন্সর বোর্ডের নীতিমালা অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য লিখিত আবেদন করেছেন। অভিযোগপত্রে আনন্দ উল্লেখ করেছেন, ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির কোথাও উল্লেখ নেই এটি ‘দ্য টার্গেট’ সিনেমার কপিরাইট নিয়ে নির্মিত হয়েছে। কোথাও উল্লেখ নেই এটি বিদেশি সিনেমার ছায়া অবলম্বনে নির্মিত। পুনরায় সেন্সরের মাধ্যমে পরিষ্কার হওয়া যাবে ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিটি নকল। লোকেশন ভিন্ন হলেও দুটো ছবির দৃশ্যধারণ করা হয়েছে একইভাবে। গল্প, দৃশ্য, শর্ট ও অ্যাকশনে নকলের পাশাপাশি প্রপসের ক্ষেত্রেও নকল করার প্রবণতা ছিল। যখন একজন পরিচালক বিদেশি সিনেমা নকল করেও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও গণমাধ্যমে বলেন, ‘এটা নকল নয় গবেষণা’, তখন পরবর্তী প্রজন্মের নির্মাতারা আশাহত হন। অন্যের গল্প এবং দৃশ্যধারণ নিজের নামে চালিয়ে দেওয়া কি নিয়মবহির্ভূত নয়?

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)