ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৫৮ মিনিট ১৯ সেকেন্ড

ঢাকা মঙ্গলবার, ৮ মাঘ, ১৪২৬ , শীতকাল, ২৫ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১

বিনোদন, রাজধানী সংবাদ, শিক্ষা, শিল্প-সংস্কৃতি ঢাবি’তে বার্ষিক নাট্যোৎসব-২০১৪ : উদ্বোধন করলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী

ঢাবি’তে বার্ষিক নাট্যোৎসব-২০১৪ : উদ্বোধন করলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী

du 2

ঢাকা, ডিসেম্বর ০২ ২০১৪, নিরাপদনিউজ : সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, নতুন সমাজ বিনির্মাণের লক্ষ্যে অসত্য এবং অন্যায়কে দূরে ঠেলে নাট্যকলার শিক্ষার্থীরা এগিয়ে যাবে।
তিনি সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের বার্ষিক ৯ম কেন্দ্রীয় নাট্যোৎসবের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
এই নাট্যোৎসব সোমবার সন্ধ্যায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে শুরু হয়েছে।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়।

উৎসবের প্রথম পর্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, প্রো-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. সহিদ আকতার হুসাইন ও কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।
বিভাগীয় চেয়ারম্যান সুদীপ চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের সূচনায় দুই দশক পূর্তি স্মারক বক্তৃতা প্রদান করেন থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. সৈয়দ জামিল আহমেদ। ‘থিয়েটার থেকে পারফরম্যান্স : জ্ঞানতত্ত্বের নয়া প্রস্থানবিন্দু ধুরন্ধর রঙ্গকারের বহুরূপী সৃষ্টি উৎসব’ শীর্ষক জ্ঞানগর্ভ বক্তৃতায় বিশ^বিদ্যালয়ের জ্ঞানভিত্তিক নানা বিষয়ের মাঝে নাট্যকলা এবং ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের নাট্যকলা চর্চার প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে তিনি বলেন, ‘ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় প্রথমলগ্ন থেকেই নাট্যচর্চার এক বলিষ্ঠ কেন্দ্র রূপে আত্মপ্রকাশ করে।’ ‘থিয়েটার এবং পারফরম্যান্স জ্ঞানের একটি শাখা হিসাবে ও ডিসকোর্সের ফলাফল হিসাবে ক্ষমতার বহুরকমের কলকব্জা প্রশ্নবিদ্ধ করতে পারে।’
উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক স্মারক বক্তৃতার সূত্র ধরে বলেন, জ্ঞানচর্চার মুখ্য উদ্দেশ্য হলো সন্ধিৎসা ও সত্যকে অনুসন্ধান করা। বিশ^বিদ্যালয়ে শিক্ষক-গবেষকরা নানা একাডেমিক ডিসিপ্লিনে সমন্বিতভাবে শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রমের মাধ্যমে সত্যকে প্রতিষ্ঠিত করে থাকেন।
উপাচার্য আরও বলেন, অভিনয় শিল্পীরা পারিপার্শ্বিক জীবন, ব্যক্তি জীবন এবং সামাজিক জীবনকে উপস্থাপন করেন তাদের শিল্প নৈপুণ্যের মাধ্যমে, তা থেকে আমরা আনন্দিত হই, প্রফুল্ল হই, উদ্ভুদ্ধ হই। উপাচার্য বলেন. সত্যকে প্রতিভাত করে শিল্পের বিকাশ ঘটে, থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগের নিত্য নতুন নাট্য প্রযোজনা ও উৎসবের মাধ্যমে বিশ^বিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক আবহ উজ্জ¦ল হবে এবং ভবিষ্যতে গড়ে উঠবে সংস্কৃতি বিকাশের নির্মল পরিবেশ।
পরিশেষে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন অনুষ্ঠানের সভাপতি বিভাগীয় চেয়ারম্যান সুদীপ চক্রবর্তী।
উৎসবের প্রথম দিনে দ্বিতীয় পর্বে মঞ্চস্থ হয় ‘যামিনীর শেষ সংলাপ’ শীর্ষক নাটক।
উল্লেখ্য, প্রাতিষ্ঠানিক ও পদ্ধতিগত পঠন-পাঠনের ধারায় থিয়েটার এন্ড পারফরম্যান্স স্টাডিজ বিভাগ দুই দশক অতিক্রমের মুহূর্তে আয়োজন করেছে এই ‘ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের ৯ম কেন্দ্রীয় নাট্যোৎসব’। ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র মিলনায়তনে ১ থেকে ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১২ দিনব্যাপী আয়োজিত নাট্যোৎসবে মঞ্চস্থ হবে প্রাচ্য ও পাশ্চাত্যের ২০টি নাটক।-বাসস

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)