ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট মার্চ ২২, ২০২০

ঢাকা শনিবার, ২১ চৈত্র, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ৯ শাবান, ১৪৪১

নিসচা সংবাদ, লিড নিউজ দয়া করে দ্রব্যমূল্য বাড়াবেন না,আল্লাহকে ভয় করুন: ইলিয়াস কাঞ্চন (ভিডিও)

দয়া করে দ্রব্যমূল্য বাড়াবেন না,আল্লাহকে ভয় করুন: ইলিয়াস কাঞ্চন (ভিডিও)

নিরাপদ নিউজ: মহামারি আকার ধারন করেছে করোনাভাইরাস। গোটা বিশ্ব যেখানে ভয়ে কাঁপছে আমরা বাংলাদেশীরা সেখানে নিরাপদে নেই। আমাদের দেশের অবস্থায় ক্রমেই খারাপের দিকে যাচ্ছে। নভেল করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। বাংলাদেশেও ধীরে ধীরে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমন ভয়াবহ একটি সময়ে যে বিষয়টি লক্ষ্য করা যাচ্ছে তা হলো বাজারের দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি। ভাবতে অবাক লাগে আমরা জাতি হিসেবে কেমন। ইসলামের দৃষ্টিতে ব্যবসা-বাণিজ্য অন্যতম সম্মানজনক কাজ। কিন্তু এমন কতগুলো বিষয় আছে যা হালাল ব্যবসায় প্রয়োগ করা হলে পুরো ব্যবসা হারামে পরিণত হয়। তন্মধ্যে অন্যতম হলো অবৈধ মজুদদারির মাধ্যমে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করা ও দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি করা। আমরা পূর্বেও দেখে এসেছি দেশের যেকোন বিপদপূণ্য অবস্থায় হঠাৎ বাজারের দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পায়। আপনারা যারা এই কাজ করেন আপনাদের বুকে কি ভয় নেই? আজ দেশে করোনাভাইরাস আক্রমণ করেছে মানুষ আজ বাঁচা মরা অবস্থায়, সে সময় আপনারা এভাবে মূল্যবৃদ্ধি করছেন। এই করোনাভাইরাস কি আপনাদের ধরবে না? একটিবার কি মনে ভয় আসেনা আপনাদের। বিপদে মানুষের পাশে না দাঁড়িয়ে সুযোগ নিচ্ছেন। এটি অত্যন্ত খারাপ কাজ। দয়া করে এসব বন্ধ করুন। আল্লাহকে ভয় করুন। দেশের কথা ভেবে নিজের কথা ভেবে বর্তমান অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পেতে আসুন আমরা সকলে এক হয়ে একে অপরের প্রতি সহনুভূতি প্রকাশ করি।

আজ সন্ধ্যায় আবারও করোনা ভাইরাস সম্পর্কে দেশবাসীকে সচেতনমুলক কিছু বার্তা দিতে ফেসবুক লাইভ ভিডিওতে আসেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান ও চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। এসময় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি ও খাদ্য মজুতকারীদের নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, আজ আমরা আরো খেয়াল করছি যাদের সামর্থ আছে তাঁরা বাজার থেকে ইচ্ছামতো খাদ্য ক্রয় করে বাসায় মজুদ করছে। আমি নিজে আমার বাসায় কোন বাড়তি খাবার কিনে রাখিনি। কেন রাখব? দেশ যখন সংকটময় অবস্থায় থাকবে গরীবরা সবাই না খেয়ে থাকবে আর আমাদের যাদের সামর্থ্য আছে আমরা পেট ভরে খেয়ে থাকব? এটা কখনোই হতে পারেনা। আমিও সবার মতো না খেয়ে থাকব। অন্যরা যেভাবে থাকবে আমিও তাই থাকব। এটাই নিয়ম। আমি সবার কাছে অনুরোধ জানাই আপনারা কেউ এই কাজগুলো করবেন না। আসুন আমরা সকলে এক হয়ে দেশ ও দেশের মানুষের কল্যাণে এগিয়ে আসি। ব্যক্তিস্বার্থ নয়- দেশের স্বার্থই সবার উপরে। করোনা ভাইরাস আতঙ্কের মাঝে জনমনে স্বস্তি প্রতিষ্ঠার জন্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজার পর্যালোচনা ও মূল্য স্থিতিশীল রেখে জিনিসপত্রের দাম সহনীয় পর্যায়ে নামিয়ে আনার আহবান জানান তিনি।

ভিডিওতে তিনি তার প্রিয় সংগঠন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের সারাদেশ জুড়ে গঠিত শাখার নেতৃবৃন্দদেরও কিছু নির্দেশ প্রদান করেন। তিনি বলেন, আপনারা সকলে নিজ নিজ অবস্থান থেকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতামুলক কর্মকান্ড পরিচালনা করুন। ইলিয়াস কাঞ্চন কর্মিদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, আপনারা অবশ্যই খেয়াল রাখবেন কোন জনসমাগম করে নয়। দুরত্ব বজায় রেখে লিফলেট বিতরণ করতে পারেন। এবং কর্মসূচিতে যাবার সময় অবশ্যই মুখে মাক্স,হাতে গ্লাভস এবং স্যানিটাইজার নিয়ে যাবেন। নিজেরা নিয়ম মেনে চলবেন, ঠিক সেভাবে অন্যদের নিয়ম মানাতে উদ্বুদ্ধ করবেন।

ইলিয়াস কাঞ্চন আরো বলেন, যেহেতু জনসমাগম এই ভাইরাসে বৃদ্ধি পাবে এজন্য চেষ্টা করুন ডিজিটালাই্জ ভাবে কাজ করতে। আপনারা অনলাইন/ ফেসবুকে প্রচুর সচেতন মুলক পোস্ট করুন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রত্যেককে ব্যক্তিগতভাবে কাজ করতে হবে। নাগরিকরা দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে সাবধানতা অবলম্বন করলে সংক্রমণ রোধ অনেকটাই সম্ভব হবে।

ইলিয়াস কাঞ্চন আরো বলেন, আমাদের প্রত্যেকের ব্যবহারের জিনিস, নিয়মিত হাত ধোয়া থেকে শুরু করে সবকিছুইতে সচেতন থাকতে হবে। প্রয়োজনে নামাজ বা প্রার্থনা ঘরে বসে আদায়ের চেষ্টা করতে হবে। নিজেকে রক্ষা করার জন্য সচেষ্ট হলে অন্যজন ভালো থাকবে। আমরা শুধুমাত্র সচেতন থাকলেই করোনা ভাইরাস দূর করতে পারবো।

বিস্তারিত ভিডিওটি দেখতে লিংকে ক্লিক করুন…

Posted by Ilias Kanchan on Saturday, March 21, 2020

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)