আপডেট ৪ মিনিট ৩৫ সেকেন্ড

ঢাকা বুধবার, ৭ ফাল্গুন, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ২৪ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১

ঢাকা, নারী ও শিশু সংবাদ ধামরাইয়ে বিয়ের দাবিতে কলেজছাত্রীর অনশন

ধামরাইয়ে বিয়ের দাবিতে কলেজছাত্রীর অনশন

নিরাপদ নিউজ: ধামরাইয়ের গোলাইল গ্রামে বিয়ের দাবিতে তানজিলা আক্তার নামে এক কলেজছাত্রী গত সোমবার থেকে চারদিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন করছেন। এ ঘটনায় এলাকায় কয়েক দফায় সালিশ বৈঠক করেও কোনো সুরাহা করতে পারেনি। বরং একটি চক্র উভয়পক্ষের অভিভাবকদের কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা নেয়ার পাঁয়তারা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিয়ে না করলে ওই কলেজছাত্রী আত্মহত্যা করবে বলে হুমকি দিয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।

সরজমিন গিয়ে জানা গেছে, ধামরাইয়ের কুশুরা ইউনিয়নের গোলাইল গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে সুমন হোসেন চাকরি হওয়ার আগে পাশের বান্নল গ্রামের হারুন অর রশিদের কলেজপড়ুয়া মেয়ে তানজিলা আক্তারকে প্রাইভেট পড়াতো। সেই সূত্রধরেই তাদের মধ্যে দীর্ঘ দুইবছর ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরই মধ্যে সুমনের সরকারি চাকরি হয়।গত সোমবার ছুটিতে এসে সুমন ওই কলেজছাত্রী তানজিলার সঙ্গে দেখা করে। এ সময় সুমন তাকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে দেয়। এরপরই ওই কলেজছাত্রী বিয়ের দাবিতে গত সোমবার সুমনের বাড়িতে গিয়ে অনশন শুরু করে।

 

এক পর্যায় ছুটিতে থাকা সুমন ওইদিনই বাড়ি থেকে গা ঢাকা দিয়েছে। এ নিয়ে মঙ্গলবার রাতে স্থানীয় তোফাজ্জল হোসেন মাস্টারের বাড়িতে কয়েকশ’ লোকের উপস্থিতিতে উভয়পক্ষ সালিশ বৈঠকে বসে। সেখানে সুমনকে দুই লাখ টাকা যৌতুক দেয়ার কথাও উত্থাপন করা হয়। কিন্তু কোনো সুরাহা হয়নি। স্থানীয় মাতাব্বর রেজাউল হক বলেন, এ নিয়ে দফায় দফায় বৈঠক করা হচ্ছে। প্রয়োজন হলে আবারও বসা হবে। কলেজছাত্রী তানজিলা আক্তার বলেন, বিয়ের প্রলোভন দিয়ে দীর্ঘ দুইবছর ধরে আমার সঙ্গে প্রেম করে এখন বিয়ে না করার হুমকি দিচ্ছে সুমন।

 

এখন আমাকে বিয়ে না করলে আত্মহত্যা করা ছাড়া আমার আর কোন উপায় থাকবে না। এ ব্যাপারে সুমনের বাবা আবদুল লতিফ বলেন, আমার ছেলে সুমন এখন তাকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে। আমরাতো ছেলেকে জোর করে বিয়ে করাতে পারি না। সুমনের দুলা ভাই সুকুম উদ্দিন বলেন, সালিশের পর একটি পক্ষ আমার শ্বশুরের কাছ থেকে মঙ্গলবার সাদা স্ট্যাম্পে স্বাক্ষরও নিয়েছে। আমাদের কাছে তারা টাকাও দাবি করছে। না দেয়াতে তারা বিষয়টি আরো ঘোলা করছে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)