ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ২২ মিনিট ৫৯ সেকেন্ড

ঢাকা রবিবার, ৬ মাঘ, ১৪২৬ , শীতকাল, ২৩ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১

কৃষি, রাজশাহী ধুনটে হাইব্রিড মরিচ চাষে কমছেনা কীটনাশকের ব্যবহার

ধুনটে হাইব্রিড মরিচ চাষে কমছেনা কীটনাশকের ব্যবহার

কারিমুল হাসান লিখন, নিরাপদ নিউজ: বগুড়ার ধুনটে চলতি মৌসুমে হাইব্রিড মরিচের পরিচর্যায় কীটনাশকের উপরেই রয়েছে জমিগুলো। জমিতে মরিচের পাতা কুকড়ানোসহ নানা ধরনের রোগ বাইলাই দমনে একই জমিতে কিছুদিন পরপর কীটনাশক ও ছত্রাক নাশক ব্যবহার করছে প্রান্তিক চাষিরা। বর্গা নেয়া চাষিরাই মরিচের রোগ নিয়ে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে । ঔষধ ও নানা ধরনের খরচ ও পরিচর্যার হিসাবে লাভের চেয়ে এবারের মরিচ চাষে লোকসানের আশংকা করছে অনেক চাষি।

সরজমিনে দেখা যায়, গত শুক্রবার ধুনট উপজেলার সরুগ্রাম পূর্ব ও চাপড়া নদীর নিত্তিপোতা এলাকায় মরিচের জমিতে পরিচর্যায় ব্যাস্ত চাষিরা। আইয়ুব আলী নামের প্রান্তিক মরিচ চাষি জানায়, মরিচের জমিতে পাতা কুকড়ানো রোগ প্রতিবারের চেয়ে এবার একটু বেশিই দেখা যাচ্ছে। প্রতিদিন জমিতে এসে কুকড়ানো পাতা তুলে নিয়ে জমি থেকে নিরাপদ দুরত্বে মাটির নিচে পুতে দেই।

যাতে এ রোগ অন্র কোন মরিচের গাছে না যেতে পারে। অপর দিকে মরিচ গাছে নানা ধরনের কীটনাশক ও ছত্রাক নাশক ব্যবহার করার পাশাপাশি রোগাক্রান্ত মরিচের পাতা আগুনে পুড়ে ফেলছে অনেকেই। উপজেলার সরুগ্রাম, চাপড়া ও নিত্তিপোতা মৌজার বেশির ভাগ জমিতে হাইব্রিড জাতের মরিচের চাষ করা হয়েছে।

এধরনের মরিচের গাছে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম হওয়ায় শুধু পরিচর্যাতেই লাভের অনেক আংশ চলে যাচ্ছে । আবু রায়হান নামের এক চাষি জানান মরিচের পাতা কুকড়ানো একটি ছত্রাক বাহিত রোগ বলেই জানি কিন্তু কুকড়ানো পাতার ভীতরে ছোট এক ধরনের পোকা দেখা যায়। কীটনাশক ব্যবহার করেও সেই পোকা মারা যায় কিনা তাতে অনেক কৃষকের সন্দেহ রয়েছে। কারন ঔষধ প্রতিনিয়ত ব্যবহার করার পরেও এ রোগ দিন দিন বেড়েই চলছে। যার ফলে কৃষি চাষে কিছুতেই কমছেনা কীটনাশকের ব্যবহার।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)