ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৪ রবিউস-সানি, ১৪৪১

সাহিত্য নাজমীন মর্তুজার দুটি কবিতা

নাজমীন মর্তুজার দুটি কবিতা

বিষাদ বিদায়

বিষাদ বিদায়ের সকালে
রঙ চটে যাচ্ছে টিপ, কাজল, লিপিস্টিক,
খাঁ খাঁ শুন্যতা চতুর্দিকে,
অমনি ভগবান হাতছানি দেন
আয় আয়
সংসারের পাঁকে আর কত ডুবে থাকবি,
হল তো সব,
দেখলি তো
এবার আমায় দেখ
তাকে নিয়ে মগ্নতার
কোন ঘাটতি নেই
তবুও অনুরাগ অভিমান ভর্তি চোখ
যেন টাঙিয়ে রাখে এক মুঠো আকাশ
ছুঁয়ে দেখলে বুঝি ঠাণ্ডা
আসলে ধাতু দিয়ে গড়া তো
আর কতো জাদু কাঠিতে
উন্মোচিত করবে ভগবান!

আধুনিক নান্দনিক ঐতিহ্য
সব গচ্ছিত রেখেছি জুকার বাক্সে
সংসারের দুরন্ত ছুটোছুটির ফাঁকে
তোমার শাসন শৃঙ্খলে আমি তো
বন্দী আগাগোড়া…

পালাবার পথ নাই
তুমি আর ভ্রূ কুঁচকে বোল না
পালাবি কোথায় ?

******
দৃশ্যান্তরে একা

শূন্য থেকে শূন্য
শেষ নাই আকাশের ঠিকানা
কথা রেখে কথার যেমন নেই
কালো হরিণ চোখে…
মনে যে বিল বহমান
তার নাম রাজধলা
তার অন্তরে আঁধার ।

মেঘ সরে যায়
সামনে পিছনের জীবনের
ঘাই হরিণীর কপালে যা ঘটে
যুদ্ধের পর রাতের কুণ্ডলীর উপহার
তবুও হাত বাড়িয়ে ধরতে চায়
সেই প্রেম যার ছায়া পড়েনি
সমবায় পুকুরে।
গায়ক পাখির গান
ঘুম ভাঙাবার জন্য যথেষ্ট
হয়েছে এক জীবনে,
যদিও তোমার বুকে শীতের
দুপুর তাপাই
দৃশ্যান্তরে বড্ড একা।

অনায়াস চিৎকার শোনা যায়
চিড়িয়াখানার মত কাতর অন্তরের…
তোমার অফ সিজনের আবেগ গুনে
যতটুকু কাঁদে চোখ
ভাব গত শ্বেদে
সেই টুকু দিয়ে স্মারক গড়ো
প্রেমিকা স্মরণে।

(এ্যাডেলএইড থেকে)

////

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)