ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯

ঢাকা মঙ্গলবার, ১৫ মাঘ, ১৪২৬ , শীতকাল, ২ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১

নিসচা সংবাদ, লিড নিউজ নিসচা চেয়ারম্যানের সাথে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের একটি প্রতিনিধি দলের সাক্ষাৎ

নিসচা চেয়ারম্যানের সাথে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের একটি প্রতিনিধি দলের সাক্ষাৎ

নিরাপদ নিউজ: আজ সন্ধ্য ৬টায় নিরাপদ সড়ক চাই’র কাকরাইলস্থ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জাতীয় সড়ক পরিবহন মটর শ্রমিক ফেডারেশনের (রেজিঃ নং-২৭২৩) সভাপতি মোস্তাকুর রহমানের নেতৃত্বে পরিবহন মালিক ও শ্রমিকদের একটি প্রতিনিধি দল নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের সাথে সাক্ষাৎ করেন।
চেয়ারম্যানের সাথে সাক্ষাৎকালে উপস্থিত ছিলেন নিসচা কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব লিটন এরশাদ, অর্থ সম্পাদক নাসিম রুমি, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন, আন্তর্জাতিক সম্পাদক মিরাজুল মইন জয়, দপ্তর সম্পাদক ফিরোজ আলম মিলন, সমাজকল্যাণ সম্পাদক আসাদুর রহমান প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।
পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা জেলা যানবাহন সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের (রেজিঃ নং-১৭৭৬) এর সভাপতি মোঃ আমির হোসেন, মালিক-শ্রমিক ঐক্য লীগের যুগ্ম আহবায়ক আবদুর রাজ্জাক, জাতীয় সড়ক পরিবহন মটর শ্রমিক ফেডারেশনের (রেজিঃ নং-২৭২৩) সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আশরাফুল শিকদার সবুজ, সহ সাধারণ সম্পাদক মোঃ আরিফুর রহমান আরিফ, প্রচার সম্পাদক মোঃ জমিরুল হক লিটন, অফিস সেক্রেটারী মোঃ মানিক হোসেন ও মালিক-শ্রমিক ঐক্য লীগের সদস্য মনির হোসেন।
প্রতিনিধি দলের পক্ষে মোস্তাকুর রহমান তাদের একটি আলোচনাসভায় ইলিয়াস কাঞ্চনকে প্রধান অতিথির আমন্ত্রণ জানান। এরপর পারস্পরিক আলোচনায় সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮, পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের বিভিন্ন বিষয় ও সড়কে বিদ্যমান সমস্যার ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট কিছু বিষয় তারা ইলিয়াস কাঞ্চনের নজরে এনে সহযোগিতা চান।
শ্রমিক নেতা মোস্তাকুর রহমান বলেন, নিরাপদ সড়ক প্রতিষ্ঠায় আন্দোলনের সাথে আমরা ইলিয়াস কাঞ্চনের প্রতি পূর্ণ সমর্থণ জানাই। আমরাও চাই সড়ক দুর্ঘটনামুক্ত বাংলাদেশ। বাংলাদেশের সর্বত্র নিরাপদ সড়ক প্রতিষ্ঠিত হোক। তিনি সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮- এর বিষয় তুলে ধরে সড়ক দুর্ঘটনার জন্য দায়ী পক্ষকে যেন শাস্তির আওতায় আনা হয় এটা পরিপূর্ণভাবে বাস্তবায়ন হোক। সড়কে ছোট গাড়ির জন্য আলাদা লেন, ডিভাইডার, হাটবাজার অপসারণসহ কিছু বিষয় তুলে ধরেন তিনি। সেইসাথে চালক-হেলপারদের নিয়োগপত্র, কর্মঘন্টা নির্ধারণ, তাদের সন্তানদের শিক্ষার জন্য দ্বাদশ শ্রেনী পর্যন্ত বেতন অর্ধেক করার দাবিও তুলে ধরে নিসচা চেয়ারম্যানের সহযোগিতা কামনা করেন।
ইলিয়াস কাঞ্চন সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮-এর বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, এই আইন করা হয়েছে সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানোর জন্য কাউকে শাস্তি দেয়ার জন্য নয়। এই আইনে সড়ক দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিকেই শাস্তির আওতায় আনা হবে তা নিশ্চিত করা হয়েছে। সেইসাথে এই আইন মানার প্রবণতা সবার মধ্যে থাকতে হবে উল্লেখ করে বলেন, পথচারী-যাত্রী তাদের দায়িত্ব অনেক। নির্দিষ্ট স্থানে পার্কিংসহ গণপরিবহনে উঠানামায় নিয়ম মানতে হবে। মোটকথা আমি মনে করি এই আইন সঠিকভাবে প্রয়োগ হলে পরিবহন মালিক-শ্রমিকরাই লাভবান হবেন। একটা সিস্টেমে আসবেন সবাই এবং সড়ক নিরাপদ হয়ে উঠবে।
ইলিয়াস কাঞ্চন আরও বলেন, বিশেষ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সরকার চালক সংকট নিরসনে উদ্যোগী হয়েছেন, বিদ্যমান চালকদের গ্রেড উন্নীতকরণে প্রকল্প হাতে নিয়েছেন, চালক প্রশিক্ষক তৈরির প্রকল্প শুরু হতে যাচ্ছে। প্রশিক্ষণ চলাকালীন চালকদের ভাতাও দেয়া হবে। প্রশিক্ষণ শেষে পরীক্ষার মাধ্যমে বিশেষ প্রক্রিয়ায় তাদের লাইসেন্স পেতে পারে তারও ব্যবস্থা নিয়েছে। এছাড়া এডিবির অর্থায়নে প্রায় ১৭০০ কিঃমিঃ রাস্তায় সার্ভিস রোড তৈরি ও ডিভাইডার স্থাপনসহ গণমুখি নানা প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। এসব প্রকল্প খুব সহসাই দৃশ্যমান হবে এবং পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়ন হবে দ্রুততম সময়ে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)