ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৭ মিনিট ২৮ সেকেন্ড

ঢাকা সোমবার, ১৬ চৈত্র, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ৫ শাবান, ১৪৪১

জীবনযাপন প্রধানমন্ত্রীকে মনের আকুতি জানাতে চান সড়ক দুর্ঘটনায় পরিবার হারানো ফয়সাল

প্রধানমন্ত্রীকে মনের আকুতি জানাতে চান সড়ক দুর্ঘটনায় পরিবার হারানো ফয়সাল

ওয়াসিম এমদাদ,নিরাপদনিউজ: ‘মানুষ মরণশীল’ -একথা চিরন্তন সত্য। কিন্তু মাঝে মাঝে সত্যটা মেনে নেয়া খুবই কঠিন হয়ে পড়ে। তার চেয়েও বেশি কঠিন পরিবারের আপন মানুষদের হারিয়ে স্বাভাবিক জীবন যাপন করা। কিন্তু একজন মানুষ যখন তার পরিবারের সকল সদস্যকে একসাথে হারায়, তখন তার পক্ষে পৃথিবীতে বেঁচে থাকাটা অনর্থক এবং অসম্ভব বলে মনে হয়। তবুও মাতা-পিতা, ভাই-বোন ও মামা সহ সকলকে একসঙ্গে হারিয়ে ১৬টি বছর পার করছেন নোয়াখালীর কোম্পানিগঞ্জের নজরুল ইসলাম ফয়সাল।

আগামীকাল সেই ভয়াবহ ২৭ ফেব্রুয়ারি। ২০০৪ সালের এই দিনে মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনি তার পরিবারের ৬ সদস্যকে একসঙ্গে হারিয়ে পৃথিবীতে একা হয়ে পড়েন। সেই থেকে শুরু হয় তার জীবনের একাকী পথচলা। জীবন সংগ্রামে ১৫/১৬ বছরের একটি বালক দিশেহারা হয়ে পড়ে। তার অসহায় জীবনে অভিভাবক বলতে তেমন কেউই ছিলেন না। তবুও তিনি থেমে থাকেন নি। মৃত বাবার রেখে যাওয়া ডেসটিনি ২০০০ লিঃ এর বিজনেস সেন্টারটি তাকে দেয়া হয় ডেসটিনির পক্ষ থেকে। কিন্তু ২০১২ সালে ডেসটিনির কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়। ফলে আবার ঝড় আসে ফয়সালের জীবনে।

নজরুল ইসলাম ফয়সাল বলেন, এখন আর কেউ খবর রাখেনা আমার’! প্রশ্ন তার আমার খবর কে নেবে? তাই ফয়সাল তার মনের সকল আকুতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চান।

তিনি বলেন, আমাদের মমতাময়ী প্রধানমন্ত্রীও অল্প বয়সে আপনজন হারিয়েছেন। তাই আপনজন হারানোর বেদনা তিনিই বুঝবেন। আমি আমাদের মাদার অব হিউম্যানিটি, বিশ্বনন্দিত প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে এই বার্তা পৌঁছে দিতে চাই। প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুতি জানিয়ে ফয়সাল বলেন, আমি আমার সুন্দর জীবন ফিরে পেতে আপনার হস্তক্ষেপ চাই। একবার শুধু আপনার কাছে আমার মনের কথাগুলো খুলে বলতে চাই। কারণ আমি বিশ্বাস করি, এদেশে একমাত্র আপনিই আমার দুঃখ বুঝবেন। সাংবাদিক ভাইবোনদের অনুরোধ করছি, আমার কথাগুলো মিডিয়ায় তুলে ধরে আমার পাশে থাকুন প্লিজ।

আর কোন মানুষ যেন এভাবে একসঙ্গে পরিবার পরিজন হারিয়ে অসহায় জীবন কাটাতে না হয়, আজকের এই দিনে এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের।

উল্লেখ্য, নজরুল ইসলাম ফয়সাল নিজের দুঃখ ভাগাভাগি করে নেয়ার জন্য বর্তমানে চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন প্রতিষ্ঠিত নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের সাথে যুক্ত আছেন। পাশাপাশি আর আমিন ফাউন্ডেশন ও নিরাপদ চিকিৎসা চাই নামে দুটি সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে থেকে সামাজিক কাজ করছেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)