ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট জুন ৮, ২০১৯

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৪ রবিউস-সানি, ১৪৪১

দুর্ঘটনা সংবাদ, লিড নিউজ ফাঁকা সড়কে বেপরোয়া বাইকাররা,ঘটছে দুর্ঘটনা: অসচেতনতাকে দায়ী করছেন সংশ্লিষ্টরা

ফাঁকা সড়কে বেপরোয়া বাইকাররা,ঘটছে দুর্ঘটনা: অসচেতনতাকে দায়ী করছেন সংশ্লিষ্টরা

নিরাপদ নিউজ:  ঈদের ছুটিতে ফাঁকা ঢাকায় প্রতিদিনই ঘটছে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা। মূলত আইন না মেনে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানোর কারণেই এমন দুর্ঘটনা ঘটছে। পুলিশের পক্ষ থেকে নানা উদ্যোগ নেয়ার পরও এমন ঘটনা রোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। শুধু আইন প্রয়োগ নয়, সচেতনতা ও পারিবারিক শিক্ষার মাধ্যমে এমন দুর্ঘটনা কমানো সম্ভব বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। সুত্র: আর টিভির ২টার সংবাদ

ঈদের ছুটিতে ফাঁকা রাজধানী ঢাকা। আর সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে আইনের তোয়াক্কা না করে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানো হয়। এসব চালকদের বেশিরভাগেরই বয়স ১৮ এর নিচে। নেই ড্রাইভিং লাইসেন্সও।

রাজধানীতে ছোটখাট দুর্ঘটনাই বলে দেয় কতটা ঝুঁকিপূর্ণ বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালানো। তাতে চালকের তেমন কোনো ক্ষতি না হলেও, গত বৃহস্পতিবার মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারের উপর এক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান সিদ্ধেশ্বরী কলেজের এক শিক্ষার্থী। এমন ঘটনায় চালকের মৃত্যু থেমে নেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ফিল্মি কায়দায় মোটরসাইকেল চালানো।

মোটর চালকরার বলছেন, বয়স কম তাই ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। পরিবার থেকে না দিলেও ঈদে ঘোরাঘুরির জন্যই মোটরসাইকেল নিয়ে বের হওয়া।

বেপরোয়া এসব চালকদের রুখতে নানা উদ্যোগ নিয়েছে ট্রাফিক পুলিশ। কিন্তু তারপরও কতটা থামানো যাচ্ছে তাদের এমন বেপরোয়া আচরণ?

ট্রাফিক সার্জেন্ট মো. মনিরুজ্জামান বলেন, শহরের প্রায় প্রতিটি পয়েন্টে চেক পোস্টে চেক করা হয়ে থাকে। তারপরেও চালকরা যেভাবে বেপরোয়া মোটরসাইকেল চালাচ্ছে তা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। দূর্ঘটনায় ঘটে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হয়। এসব ঘটনা এড়াতে সাধারন নাগরিক যদি সচেতন হয় তাহলে পুলিশের পক্ষ্যে একা এটি দূর করা সম্ভব নয়।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)