আপডেট ১০ মিনিট ৬ সেকেন্ড

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৪ রবিউস-সানি, ১৪৪১

বরিশাল, সড়ক সংবাদ বাউফলে দুটি সেতুর বেহালদশা: প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনার

বাউফলে দুটি সেতুর বেহালদশা: প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনার

কামরুল হাসান ,নিরাপদ নিউজ : পটুয়াখালীর বাউফলের চন্দ্রদ্বীপের পশ্চিম চরমিয়াজান বাজার সংলগ্ন সেতু ও আলগী সেতু চার বছরে সংস্কার না হওয়ায় এলাকাবাসির দুর্ভোগের কারণ হয়ে দাড়িয়েছে। প্রতিদিন পৃথক এই দুই সেতু পাড় হতে গিয়ে স্কুলগামী শিক্ষার্থী, মহিলা ও শিশুসহ বয়বৃদ্ধরা দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন। সেতুর অধিকাংশ স্লাবধ্বসে যাওয়ায় দু’পাশের চর রায়সাহেব, চরমিয়াজান, চরনিমদী, কিসমত পাঁচখাজুরিয়া, চরকচুয়াসহ ৭-৮ চরের হাজারো মানুষ ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। গাছের ডাল, বাঁশ ও কাঠের তক্তা দিয়ে কোনরকম ভাবে মেরামত করে চলাচলের জন্যে স্থানীয়রা। সেতু দুইটি মরণ ফাদে পরিনত হলেও সংস্কার কিংবা পূন:নির্মাণের কোন ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

ধানদী আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ইমরান, শারমীন, নার্গীস, সীফা, মুক্তা, ফারজানা, পুতুল, সীমা, তানজিলা, রেশমা, সাদিয়াসহ অনেকেই জানান, সেতু দুটি দিয়ে পাড় হতে গিয়ে মহা ভোগান্তিতে পড়ছেন শিক্ষার্থী, বয়োবৃদ্ধ, মহিলা ও শিশুরা। অহরহ ঘটছে দুর্ঘটনা। গত এক বছরে অন্তত ৮-১০ বার দূর্ঘটনার শিকার হয়েছে বিভিন্ন শিক্ষার্থী।

চর রায়সাহেব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কলি আক্তার ও পশ্চিম চরমিয়াজানের ইউনুছ মাতুব্বর অভিন্ন ভাবে জানান, ঠিকাদারের কারসাজির কারণে নবগঠিত ইউনিয়ন চন্দ্রদ্বীপ নাজিরপুরের আওতায় থাকাকালিন মাত্র বছর চারেক আগে নির্মাণ করা হলেও এই অল্প সময়েই সেতুদুটির করুন হাল হয়েছে। সিমেন্টের স্লাব ভেঙে যাচ্ছে। গাছের ডাল, কাঠ, বাঁশ দিয়ে মেরামত করা হলেও তা বেশি দিন স্থায়ী হচ্ছে না। প্রতিদিন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ হাসপাতাল, বাজার ও নিমদী লঞ্চঘাটে পাড়ি দিতে হয় হাজারো চরবাসির। বিকল্প কোন পথ না থাকায় এই দুটি সেতু পাড় হতে চরবাসীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এ ছাড়া রায়সাহেব চরের গুচ্ছগ্রামের শিশু শিক্ষার্থীদের শিক্ষার সুযোগ সৃষ্টিতে সেখানেও খালের ওপর একটি সেতু নির্মাণ করা জরুরী ।

চন্দ্রদ্বীপের ১ নম্বর ওয়ার্ডের রায়সাহেব এলাকার মেম্বার ছালাম শরীফ বলেন, ‘সিমেন্টের স্লাব ও লোহার এ্যাঙ্গেলে নির্মিত সেতুদুটির অধিকাংশ স্লাবই ভেঙে পড়ে যাচ্ছে। ব্যাক্তিগত উদ্দ্যোগে সংস্কারের ব্যবস্থা করা হলেও তা স্থায়ী হচ্ছে না। চরের ছেলে-মেয়েরা এমনিতেই অনেক কষ্টে নদী পাড় হয়ে স্কুল-কলেজে যাতায়ত করে। চরবাসি ও এসব শিক্ষার্থীদের কষ্ট লাঘবে রায়সাহেবের গুচ্ছগ্রাম সংলগ্ন খালের ওপার নতুন একটি সেতু নির্মাণসহ এই দুই সেতু খুব তারাতারি সংস্কার করা উচিত।’

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)