ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৩ মিনিট ৪৬ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ১০ ফাল্গুন, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ২৭ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১

অপরাধ, নারী ও শিশু সংবাদ বাগেরহাটের রামপালে স্বামীহারা নারীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ

বাগেরহাটের রামপালে স্বামীহারা নারীকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ

Reap-15

বাগেরহাট, ১৮ মার্চ ২০১৫, নিরাপদনিউজ : বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায় এক স্বামীহারা নারীকে (৩২) তুলে নৌকায় নিয়ে ধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা।
অবরুদ্ধ অবস্থায় ৬ দিন পর মঙ্গলবার রাতে কুমারখালী গ্রাম থেকে গুরুতর অসুস্থ ওই নারীকে উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার ১২ বছর বয়সী এক মেয়ে রয়েছে।
এ ঘটনার পর রাতেই ওই নারীর দেবর বাদী হয়ে অজ্ঞাত পরিচয় ৪ যুবককে আসামি করে একটি মামলা করেছেন।
এর আগে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাতে রামপাল উপজেলার গৌরম্ভা গ্রামে বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হন খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার শিয়ালীডাঙ্গা গ্রামের এক তরুণী।
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বড় সন্ন্যাসী ফুলতলা পাড়া গ্রামের ওই নারী বলেন, গত বৃহস্পতিবার বিকালে দেবরের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী ডাকরা গ্রামের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে (মহানামযজ্ঞ) যান।
অনুষ্ঠান চলাকালে এক পর্যায়ে রাত ১০টার দিকে বাইরে শৌচাগারে গেলে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা কয়েকজন যুবক তাকে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করে।
তিনি বলেন, ওই সময় সঙ্গে থাকা দেবর তাদের বাধা দিলে তারা তাকে মারধর করে ফেলে রাখে এবং আমাকে তুলে নদীতে একটি নৌকায় নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে তারা আমাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।
এক পর্যায়ে অচেতন হয়ে পড়লে তারা কুমারখালী গ্রামে ওই নারীর বোনের বাড়িতে নিয়ে রাখে এবং বিষয়টি যাতে কাউকে না জানাতে পারে সেজন্য ওই যুবকরা তাকে নজরবন্দি করে রাখে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।
ওই নারী আরও বলেন, কিন্তু মঙ্গলবার আমার ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তালুকদার নাজমুল কবীর ঝিলাম ঘটনাটি লোকমুখে জানতে পেরে লোক পাঠিয়ে এবং স্থানীয় গ্রামবাসী ও পুলিশের সহযোগিতায় আমাকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করেন।
ওই যুবকদের মারধরে আহত তার দেবর মংলা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলেও জানান তিনি।
রামপাল উপজেলার মল্লিকেরবেড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তালুকদার নাজমুল কবীর ঝিলাম বলেন, ডাকরা গ্রামের কয়েকজন যুবক তার ইউনিয়নের এক নারীকে অপহরণের পর ধর্ষণ করে অবরুদ্ধ করে রেখেছে খবর পেয়ে তার লোকজন সেখানে যায়। বিষয়টি টের পেয়ে ওই যুবকরা পালিয়ে গেলে তাকে উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
রামপাল থানার ওসি ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, ধর্ষণের শিকার ওই নারীকে বাগেরহাট সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ৪ যুবকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। তার ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আবুল বাশার বলেন, ঘটনায় জড়িতদের শনাক্তে তদন্ত শুরু হয়েছে। ওই ৪ যুবকের পরিচয় পাওয়া গেলে তাদের গ্রেপ্তার করা হবে।
মোরেলগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার এনামুল হক মিঠু (এএসপি) ওই নারীকে দেখতে হাসপাতালে যান এবং তার শারীরিক অবস্থার খোঁজ খবর নেন বলে জানান এসআই বাশার।- সংগৃহীত

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)