আপডেট জানুয়ারী ২০, ২০২০

ঢাকা বুধবার, ৭ ফাল্গুন, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ২৩ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১

বহির্বিশ্ব, লিড নিউজ বিজেপি নেতাকে নারী কর্মকর্তার চড়!

বিজেপি নেতাকে নারী কর্মকর্তার চড়!

নিরাপদ নিউজ: সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) সমর্থনে মধ্যপ্রদেশের রাজগড় জেলায় রবিবার বিজেপির তিরঙ্গা যাত্রা ঘিরে পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠল। প্রথমে সেখানে বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে রাজ্য প্রশাসনের বিরোধ বাঁধে। ওই এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি থাকার কারণে রাজগড়ের কালেক্টর নিধি নিবেদিতা  বিজেপি কর্মীদের ওই মিছিল করতে বারণ করেন। কিন্তু তাতে রাজি হননি গেরুয়া দলের কর্মীরা। এই নিয়ে তর্ক-বিতর্ক চলাকালীন এক বিজেপি  নেতাকে চড় মেরে বসেন ওই প্রশাসনিক কর্মকর্তা।

বিজেপি  নেতাকে চড় মারার পরেই পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এলাকায় পুলিশ বাহিনী নামানো হয়।

অভিযোগ, অবস্থা হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে দেখে লাঠিচার্জও করে পুলিশ, যার ফলে ২ বিজেপি কর্মী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, রাজগড় জেলায় ১৪৪ ধারা জারি থাকার কারণে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের সমর্থনে আয়োজিত বিজেপির ওই কর্মসূচিতে অনুমতি দেয়নি প্রশাসন। কিন্তু তা সত্ত্বেও বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে সেখানে হাজির হন বহু বিজেপি কর্মী। প্রথমে কালেক্টর নিধি নিবেদিতা এবং রাজগড়ের পুলিশ সুপার বিজেপি কর্মীদের ওই সমাবেশ না করার বিষয়ে বোঝানোর জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করলেও সেই কথাও কান দেননি গেরুয়া কর্মীরা।

অভিযোগ, এই সময় প্রশাসনিক কাজ সামলানো কিছু কর্মকর্তাকে হেনস্তা করে বিজেপি কর্মীরা। এসডিএম প্রিয়া ভার্মা মিছিল নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টাও করছিলেন। সেই সময়েই কিছু বিজেপি কর্মী ঝামেলা শুরু করলে এক বিজেপি নেতাকে রেগে গিয়ে সপাটে থাপ্পড় মারেন কালেক্টর নিধি নিবেদিতা। ঘটনার পর পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে, পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয়।

শনিবার থেকেই রাজগড় জেলায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। তা সত্ত্বেও, ভারতীয় জনতা পার্টির কর্মীরা সিএএ এবং এনআরসির সমর্থনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে এলাকায় জড়ো হন। সেই পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়েই যত কাণ্ড।

বিক্ষোভ প্রদর্শনকারী ৮-১০ জন বিজেপি কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। তবে অনেকে পালিয়েও যান। ঘটনার ভিডিও ফুটেজ মিলেছে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)