ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট অক্টোবর ২২, ২০১৫

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৭ অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ , হেমন্তকাল, ১৪ রবিউস-সানি, ১৪৪১

জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস, নিসচা সংবাদ, লিড নিউজ ব্যাপক আয়োজনে সারাদেশে আজ জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস এবং জাহানারা কাঞ্চনের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত (ভিডিও সহ)

ব্যাপক আয়োজনে সারাদেশে আজ জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস এবং জাহানারা কাঞ্চনের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত (ভিডিও সহ)

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এমপি জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালি উদ্বোধনকালে বক্তব্য রাখেন

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এমপি জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালি উদ্বোধনকালে বক্তব্য রাখেন

লিটন এরশাদ (ঢাকা), ২২ অক্টোবর ২০১৫, নিরাপদনিউজ : ব্যাপক আয়োজনে পালিত হলো জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস এবং মরহুমা জাহানারা কাঞ্চনের ২২তম মৃত্যুবার্ষিকী। যাঁর অকাল মৃত্যুতে সড়ককে নিরাপদ করার এই সামাজিক আন্দোলনের জন্ম হয়। নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) দীর্ঘ ২২ বছর ধরে সড়ককে নিরাপদ করার লক্ষ্যে যে আন্দোলন করে আসছে তার ধারাবাহিকতায় এবারো ২২ অক্টোবর জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসে নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে দিবসটি পালিত হয়।
‘চালক-মালিক, যাত্রী-পথচারী ভাই ভাই, সড়ক দুর্ঘটনামুক্ত বাংলাদেশ চাই’- এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে পালিত হলো জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস। দিবসটি উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করে ‘নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’। র‌্যালিতে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। র‌্যালি উদ্বোধন করে তিনি বলেন, গাড়ি অ্যাকসিডেন্ট করলে যে জরিমানা করা হয় তা যথার্থ নয়, আমরা এটা আরো বেশি করতে চাচ্ছি। তবে জরিমানার পরিমান কত বাড়ছে বা কবে বাড়ানো হচ্ছে সে সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করেননি মন্ত্রী।

নিরাপদ সড়ক চাই আয়োজিত র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন ডিএমপির পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া ও নিসচা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন

নিরাপদ সড়ক চাই আয়োজিত র‌্যালিতে নেতৃত্ব দেন ডিএমপির পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া ও নিসচা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে শিল্পকলা একাডেমীর সামনে থেকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালি উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, অ্যাকসিডেন্ট করলে তার শাস্তি তাকে পেতেই হবে। এ ব্যাপারে কোনো ছাড় দেয়া হবে না।
মন্ত্রী আরো বলেন, অনেক সীমাবদ্ধতার মধ্যেও সড়ক দুর্ঘটনারোধে নিরাপত্তা বাহিনী কাজ করে যাচ্ছে। সড়কের নিরাপত্তার জন্য আমরা হাইওয়ে পুলিশ তৈরি করেছি। রাস্তায় জনগণের নিরাপত্তার জন্য প্রয়োজনে আমরা আরো বাহিনী তৈরি করবো। জনগণকে ট্রাফিক আইন মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আমরা রং পার্কিং করবো না, যত্রতত্র গাড়ির গতি বাড়াবো না। আমরা সব সময় ট্রাফিক আইন মেনে চলবো।

গাড়ি অ্যাকসিডেন্ট করলে যে জরিমানা করা হয় তা যথার্থ নয়, আমরা এটা আরো বেশি করতে চাচ্ছি: জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালি উদ্বোধনকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এমপি

গাড়ি অ্যাকসিডেন্ট করলে যে জরিমানা করা হয় তা যথার্থ নয়, আমরা এটা আরো বেশি করতে চাচ্ছি: জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসের র‌্যালি উদ্বোধনকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল এমপি

র‌্যালিতে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডিএমপির পুলিশ কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি বলেন, এদেশে অধিকাংশ সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে থাকে হাইওয়ে রোডের পাশে বাজার-হাট বসানোর কারণে। আমি হাইওয়ে পুলিশে থাকাকালীন এ নিয়ে যথেষ্ট অভিজ্ঞতা অর্জন করেছি। হাইওয়ে রোডের পাশ থেকে বাজার এবং হাট সরানো গেলে দুর্ঘটনা সহনীয় মাত্রায় চলে আসবে। এরপর দরকার সচেতনতা। সবাই যদি আন্তরিক হয়ে কাজ করি তাহলে এদেশ থেকে সড়ক দুর্ঘটনা দূর করা কষ্টসাধ্য হবে না। সেইসাথে যত্রতত্র পার্কিং বন্ধ করতে হবে।
নিরাপদ সড়ক চাই- এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ২২ বছর ধরে নিরাপদ সড়কের কর্মকাণ্ড সফল করতে আমাকে টেনশনে থাকতে হতো। আজ কেন্দ্রীয় কমিটির এ সুশৃঙ্খল আয়োজন দেখে আমি আনন্দিত। আমরা যদি এভাবে সুশৃঙ্খল ও একতাবদ্ধ থাকতে পারি তাহলে অল্পদিনের মধ্যেই আমরা সড়ককে নিরাপদ করতে পারবো। আমরা সাধারণ জনগণ সচেতন হলেই সড়ক হবে নিরাপদ।
তিনি বলেন, পৃথিবীর অন্যান্য দেশে যেখানে ৫০০ অ্যাকসিডেন্ট ঘটলে ৩০০ জন লোক মারা যায়। সেখানে আমাদের দেশে মারা যায় ৫ হাজার মানুষ। এর কারণ ম্যানেজমেন্টের বড় অভাব।
তিনি আরো বলেন, নিরাপদ সড়ক আন্দোলন করতে গিয়ে একটা সময় হতাশ হয়ে গিয়েছিলাম, এখন আর হতাশ নই। সকল ভাঙাচুরা রাস্তাগুলোই আগের চেয়ে অনেক বেশি কাজ হচ্ছে। নিরাপদ সড়ক বিষয়ে ই-বুকে লেখা আসছে, পাঠ্যপুস্তকেও এ নিয়ে একটি অধ্যায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে বলে সরকারের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

নিরাপদ সড়ক চাই আয়োজিত র‌্যালিতে অংশ নেয় সর্বস্তরের মানুষ

নিরাপদ সড়ক চাই আয়োজিত র‌্যালিতে অংশ নেয় সর্বস্তরের মানুষ

নিরাপদ সড়ক দিবসের এ র‌্যালিটি বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর সামনে থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এসময় র‌্যালি থেকে শ্লোগান দেয়া হয়- ‘চালক-যাত্রী ভাই ভাই, নিরাপদ সড়ক চাই।’ ‘বাঁচার মতো বাঁচতে চাই, নিরাপদ সড়ক চাই। জাতীয় শিল্পকলা একাডেমীর সামনের সড়ক থেকে শুরু হওয়া র‌্যালিতে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অংশ নেয়।
র‌্যালী শেষে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও নিসচা’র যুগ্ম মহাসচিব সাদেক হোসেন বাবুল, মহাসচিব শামীম আলম দীপেন, ভাইস চেয়ারম্যান সোহানুর রহমান সোহান, বিটিভির সাবেক মহাপরিচালক ম. হামিদ প্রমুখ। বক্তারা নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়নের জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণকে সাধুবাদ জানিয়ে আগামীতে নিসচার সঙ্গে একাত্ম হয়ে কাজ করার আহবান জানান।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত সমাবেশ

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত সমাবেশ

র‌্যালিতে আরো অংশ নেন ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসান- উল হক কামাল, রফিকুজ্জামান,যুগ্ম মহাসচিব ও জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস উপলক্ষে প্রকাশিত স্মরণিকা ‘নিরাপদ’ এর সম্পাদক লিটন এরশাদ, বেলায়েত হোসেন নান্টু, লায়ন গনি মিয়া বাবুল, অর্থ সম্পাদক নাসিম রুমি, সাংগঠনিক সম্পাদক ও নিরাপদ সড়ক দিবস উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব এস এম আজাদ হোসেন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল মইন জয়, আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিষ্টার এম আর হাসান, দপ্তর সম্পাদক কে এম হাসান মাহবুবুর নিপ্পন, সমাজকল্যাণ সম্পাদিকা মঞ্জুশ্রী বিশ্বাস, মহিলা সম্পাদিকা উম্মে আরা মিতা, সাংস্কৃতিক সম্পাদক জাফর ফিরোজ, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক আবুল হাসেম শিল্পী, যুব বিষয়ক সম্পাদক জুনায়েদুর রহমান মাহফুজ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ, এ কে আজাদ, শেখ আবদুর রহমান, সহ দপ্তর সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান মিজান, সহ প্রচার সম্পাদক আবদুল গফুর সাগর, দুর্ঘটনা অনুসন্ধান ও গবেষণা বিষয়ক সহ-সম্পাদক ওবায়দুর রহমান, কার্যকরী সদস্য সুশীল চন্দ্র বাছার, ফারিয়া ফাতেহ, এরফানুল হক নাহিদ, সুরাইয়া রহমান মনি, ইয়াসমিন কবির চৌধুরী সহনিসচার সাধারণ সদস্যবৃন্দ।

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নিরাপদ সড়ক চাই- এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন নিরাপদ সড়ক চাই- এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন

এছাড়া অংশ নেয় নিসচা শেরে বাংলা নগর শাখা, রামপুরা থানা শাখা, যাত্রাবাড়ি শাখা ও ঢাকাস্থ খুলনা শাখাসহ নিরাপদ সড়ক আমার অধিকার, নারী মৈত্রী, সুইফট সলিউশন, বিভিন্ন সামাজিক – সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং সড়ক দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি ও পরিবারের সদস্যবৃন্দসহ সর্বস্তরের জনগণ।
উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার সড়ক দিবস। ১৯৯৩ সালের ২২ অক্টোবর সড়ক দুর্ঘটনায় স্ত্রী জাহানারা কাঞ্চনকে হারান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। এ ছাড়া ১৯৮৮ সালে নিজে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হন তিনি । জীবনের বাস্তব অভিজ্ঞতা এবং স্ত্রী হারানোর অপার বেদনা বুকে ধারণ করে ১৯৯৩ সালের ১ ডিসেম্বর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থা (এফডিসি) থেকে জাতীয় প্রেসক্লাব পর্যন্ত নিরাপদ সড়ক চাইদ (নিসচা) পদযাত্রায় মিলিত হন তিনি। এতে প্রেরণা জোগান সর্বস্তরের মানুষ। সবাই ইলিয়াস কাঞ্চনকে সহযোগিতা করেন। এরপর থেকে প্রতি বছর ২২ অক্টোবর নিরাপদ সড়ক দিবসদ হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।
উল্লেখ্য আজ থেকে ২২ বছর আগে চট্টগ্রামের অদূরে চন্দনাইশে বান্দরবানে স্বামী ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছে যাবার পথে মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় জাহানারা কাঞ্চন নিহত হন। রেখে যান অবুঝ দুটি শিশু সন্তান জয় ও ইমাকে। ইলিয়াস কাঞ্চন সে সময় ছবির স্যুটিংয়ে বান্দরবান অবস্থান করছিলেন। স্ত্রীর অকাল মৃত্যুতে দুটি অবুঝ সন্তানকে বুকে নিয়ে শোককে শক্তিতে রূপান্তরিত করে ইলিয়াস কাঞ্চন নেমে আসেন পথে। পথ যেন হয় শান্তির, মৃত্যুর নয়- এই শ্লোগান নিয়ে গড়ে তুলেন একটি সামাজিক আন্দোলন ‘নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)’। সেই পথচলায় ক্লান্তি নেই, নেই কোন শংকা। বিরামহীন তিনি হেঁটে চলেছেন দেশের একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে। স্বজন হারানোর বেদনায় আর যেন কাউকে নীল হতে না হয়, তার জন্য ইলিয়াস কাঞ্চন সড়কের মাঝে বেঁধেছেন বাসা। লক্ষ্য একটাই সড়ক দুর্ঘটনামুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা।

বনানীতে মরহুমা জাহানার কাঞ্চনের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে পুষ্পস্তবক অর্পণ, কবর জিয়ারত শেষে দোয়ায় অংশ নেন

বনানীতে মরহুমা জাহানার কাঞ্চনের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে পুষ্পস্তবক অর্পণ, কবর জিয়ারত শেষে দোয়ায় অংশ নেন নিসচা নেতৃবৃন্দ

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাবেশ শেষে দুপুরে নিসচা নেতৃবৃন্দ বনানীতে মরহুমা জাহানার কাঞ্চনের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে কবর জিয়ারত ও পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। বিকেলে বাদ আছর নিসচা প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয় মিলাদ মাহফিল।
একইভাবে নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর দেশব্যাপি বিদ্যমান ৮৭টি শাখার উদ্যোগে সারাদেশে স্থানীয়ভাবে একই সময়ে র‌্যালী, মানববন্ধন ও সমাবেশ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।
নিসচা গৃহীত এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নে আর বি গ্রুপ তথা ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)