আপডেট ২০ মিনিট ৩২ সেকেন্ড

ঢাকা রবিবার, ২২ চৈত্র, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ১১ শাবান, ১৪৪১

ঢাকা ভৈরবে সিলগালা করা গুদামের তালা ভাঙায় ১২ জন আটক

ভৈরবে সিলগালা করা গুদামের তালা ভাঙায় ১২ জন আটক

মো. আলাল উদ্দিন,নিরাপদ নিউজ:  কিশোরগঞ্জের ভৈরবে সরকারি খাদ্য গুদামের ভেতরে চালের হিসাবে ঘাটতিসহ বস্তায় পুরনো চাল থাকার কারণে দুটি গুদাম সিলগালা করে দেন খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সারোয়ার মাহমুদ। কিন্তু সিলগালা করা গুদামের তালা ভেঙে ঘাটতি পূরণের সময় উপজেলা খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা এবং ঠিকাদারসহ ১২ জনকে আটক করেছে ইউএনও লুবনা ফারজানা। আটককৃতরা হলেন, উপজেলা সরকারি খাদ্য গুদামের (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা কামরুল হাসান, শহরের মাম অটো রাইচ মিলের মালিক ও গুদামের মালামাল লোড-আনলোডের ঠিকাদার ফারদুল্লাহসহ ১০ জন শ্রমিক। এ ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ও অতিরিক্ত সচিব সারোয়ার মাহমুদ। খাদ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক ড. এস এম মহসিনকে প্রধান করে এই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে জানা গেছে, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সারোয়ার মাহমুদ (২১ মার্চ) শনিবার সকালে আশুগঞ্জ সাইলো পরিদর্শনে আসেন। পরে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই ভৈরব বাজারে সরকারি খাদ্য গুদাম পরিদর্শনে এসে ২ নম্বর ও ৩ নম্বর গুদামের ভেতরে চালের মজুদে অনিয়মসহ বস্তায় নতুন চালের বদলে পুরনো চাল দেখতে পান। গুদামে নানা অনিয়মের ফলে দুইটি গুদামই সিলগালা করে দেন তিনি। এছাড়াও গুদামের সীমানা প্রাচীর ভেঙে মাম নামে একটি অটো রাইচ মিলে অবাধ চলাচলের জন্য রাস্তা দেখতে পান। পরে রাস্তাটি দ্রুত বন্ধের নির্দেশ দেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন খাদ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত পরিচালক (প্রশাসন) জহিরুল ইসলাম খান। পরে দিন শেষে সন্ধ্যায় তারা চলে যাবার পর (২২ মার্চ) রবিবার সকালে সিলগালা করা গুদামের তালা ভেঙে ঘাটতি পূরণের চেষ্টা করে গুদামের ঠিকাদার ও মাম অটো রাইচ মিলের মালিক ফারদুল্লাহ। খবর পেয়ে খাদ্য অধিদপ্তরের নির্দেশে পুলিশ সদস্য নিয়ে গুদামে হাজির হয় ইউএনও লুবনা ফারজান। পরে সিলগালা করা গুদামের তালা ভেঙে ভেতরে শ্রমিক দিয়ে ঘাটতি পূরণের সময় ঠিকাদার ফারদুল্লাহ ও গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল হাসানসহ হাতেনাতে ১০ জন শ্রমিককে আটক করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) হিমাদ্রী খ্রীসা। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুবনা ফারজানা বলেন, এ ঘটনার সত্যতা যাচাই হওয়ার পর খাদ্য অধিদপ্তরের নির্দেশে পুলিশ সদস্য নিয়ে সিলগালা করা গুদামের তালা ভেঙে ভিতরে শ্রমিক দিয়ে ঘাটতি পূরণের সময় ঠিকাদার ফারদুল্লাহ ও গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কামরুল হাসানসহ হাতেনাতে ১০ জন শ্রমিককে আটক করা হয়। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে তাদের আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সারোয়ার মাহমুদ জানান, এ ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত শেষে অনিয়মগুলোর সত্যতা পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)