English

29 C
Dhaka
সোমবার, জুলাই ৪, ২০২২
- Advertisement -

সল্প মেয়াদে নির্বাচিত হয়ে ব্যাপক উন্নয়নে চমকে দিলেন শফি: আবারও চাইলেন ভোট

- Advertisements -

শহরের মান উন্নয়ন নিশ্চিত করেছেন গ্রামে। যেখানে রাস্তা ছিল কাঁদা এখন তা পাঁকা। সামান্য বৃষ্টিতে রাস্তায় জমানো পানি ডিঙিয়ে আর কাউকে ভোগান্তিতে পড়তে হয় না। আর এই অসম্ভব কে সম্ভব করেছেন রায়নগর ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফি। তাও আবার সল্প মেয়াদে নির্বাচিত হয়ে তিনি ইউনিয়নবাসীকে চমকে দিয়েছেন। রায়নগর ইউনিয়ন ঐতিহাসিক মহাস্থানগড় অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় এই ইউনিয়নকে বলা হয় বগুড়া জেলার একটি গুরুত্বপূর্ণ ইউনিয়ন পরিষদ। এই ইউনিয়নে পরপর ২ বার বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে ছিলেন, বর্তমান শিবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ রিজু।

তিনি নিয়মানুযায়ী রায়নগর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে পদত্যাগ করে উপজেলা নির্বাচন করেন, এবং সে নির্বাচনে কৃতকার্যও হোন। রায়নগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের পদটি তখন শূণ্য হয়ে যায়। উপনির্বাচন করতে এই ইউনিয়ন পরিচালনার জন্য ইউনিয়নবাসীর কথা চিন্তা করে সৎ ও যোগ্য ব্যক্তি হিসেবে এই ইউনিয়নের ভূমিষ্ঠ সন্তান বগুড়ার শিবগঞ্জ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য বীরমুক্তি যোদ্ধা শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ্ ও উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ রিজু, শফিকুল ইসলাম শফি’কে মনোনীত করে প্রস্তাবনা করেন। তাঁদের সঠিক নির্দেশনায় শফি ইউনিয়নের অসহায় মানুষের স্বপ্নের মডেল ইউনিয়ন গড়তে ইউপি নির্বাচনের পথে পা বাড়ান। এরপর একের পর এক আসতে থাকে প্রতিবন্ধকতা। প্রতিপক্ষ তাকে নির্বাচন থেকে সড়ে দিতে নির্বাচন কমিশনারের বরাবর অনেক অভিযোগ করেন।

Advertisements

তখন শফির গণসংযোগ হলেও কোন মার্কা বের হয় না। পরে সকল প্রতিবন্ধকতা ডিঙিয়ে নির্বাচনী চ্যালেঞ্জ বোকাবেলা করে নির্বাচনের শেষ মুহূর্তে মার্কা পায় টেবিলফ্যান। নির্বাচনেও তিনি বিজয়ের মুকুট পড়েন। অনেক বাধা ও প্রতিবন্ধকতা টপকিয়ে একজন সফল চেয়ারম্যান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত শফিকুল ইসলাম শফি।

তিনি সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা পূরণে নিরন্তর কাজ করে যাচ্ছেন। তারপরও মানুষের প্রত্যাশা থাকে। তিনি, তাঁর পরিশ্রম, সাহস, ইচ্ছা শক্তি, একাগ্রতা আর প্রতিভার সমন্বয়ে সাধারণ মানুষের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য, স্থানীয় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড সঠিক ও সুচারুভাবে বাস্তবায়নের জন্য, সর্বোপরি রায়নগর ইউনিয়নবাসীর যে স্বপ্ন রয়েছে সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য আগামী ইউপি নির্বাচনে জয়লাভের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। সকলের সহযোগিতা পাচ্ছেন এবং সহযোগিতার আশাও ব্যক্ত করে চলেছেন। চেয়ারম্যান হিসেবে সফলতা পাওয়ায় তিনি আজ শিবগঞ্জ উপজেলা তো আছেই তাঁর রায়নগর ইউনিয়নের সর্বত্র সম্মানিত হচ্ছেন। তারুণ্যের প্রতীক এ ব্যক্তি তাঁর বয়স ও অভিজ্ঞতা দুটিকেই হার মানিয়েছেন। মাত্র গত ৪/৯/১৯ইং তারিখে ইউনিয়ন পরিষদের দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এ সল্প সময়ে উল্লেখযোগ্য উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রেখে সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছেন।

Advertisements

এলাকার হতদরিদ্র মানুষের উন্নয়নে তাঁর নিরন্তর প্রয়াস সব মহলেই প্রশংসা কুঁড়িয়েছে। ইউনিয়নের রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় বিশেষ অবদান, সামাজিক উন্নয়নসহ বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়নে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে এলাকায় নিজের মুখ উজ্জ্বল করেছেন। রায়নগর ইউনিয়নের এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত ছুড়ে চলেন অনেক মসজিদ, মাদ্রাসা, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠণের অন্যতম পৃষ্ঠপোষক সমাজসেবী শফিকুল ইসলাম শফি। ব্যক্তি জীবনেও তিনি অত্যন্ত নম্র, ভদ্র, সদাহাস্যোজ্জ্বল ও সাদা মনের মানুষ। তাঁর মাঝে কোন অহংকার নেই। নিরহংকারী এই মানুষটি দলমত নির্বিশেষে আজ সকলের কাছে প্রিয়। সর্বোপরি কাজ করছেন সাধারণ মানুষের কল্যাণের জন্য। এলাকায় তিনি একজন সাদা মনের উদার মানসিকতার ও দানশীল মানুষ হিসেবে ইতিমধ্যে পরিচিতি লাভ করেছেন। এলাকার সাধারণ মানুষের মতে, আমরা নেতা বা চেয়ারম্যান বুঝিনা। শফি ভাই একজন ভাল মানুষ। তিনি একজন কর্মঠ ব্যক্তি। তিনি চেয়ারম্যান পদে থাকলে আমাদের তথা এলাকার উপকার হবে। আমাদের দুঃখ দুর্দশায় তাঁকে সহজেই পাশে পাওয়া যায়। ইতোমধ্যে তিনি সমাজের সকল মতাদর্শের মানুষের কাছে একজন দক্ষ, পরিশ্রমী ও মেধাবী সমাজ সেবক এবং উদীয়মান নেতা হিসাবে ব্যাপক পরিচিতি লাভ করেছেন।

নির্বাচনকালীন সময়ে সাধারণ জনগনকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করে একজন সফল ও জনপ্রিয় ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে সবশ্রেনীর মানুষের অন্তরে স্থান করে নিয়েছেন রায়নগর ইউনিয়নের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফি। বিশেষ এক সাক্ষাতে তাঁর সাথে কথা বললে চেয়ারম্যান শফি, তিনি এই প্রতিবেদককে জানান, “সল্প মেয়াদে নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে আমার প্রিয় ইউনিয়নকে উন্নয়নের মাষ্টার প্লানের আওতায় এনে ব্যাপক উন্নয়ন মূলক কর্মসূচি হাতে নিয়েছি”। এই মূহুর্তে আমি একজন জনগণের পরিক্ষিত চেয়ারম্যান। আগামী নির্বাচনে ইউনিয়নবাসী তাঁকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবেন বলে তিনি আশাহত। রায়নগর ইউনিয়ন ঘুড়ে সাধারণ ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, শফি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে এলাকার উন্নয়নে মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন।

গৃহিত পরিকল্পনার আলোকে তিনি একের পর এক উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। সামাজিক সচেতনতা এবং মানবিক সেবার অনন্য উদ্যোগ তাকে একজন মানবদরদী ও মহতী মানুষের উচ্চতায় অধিষ্ঠিত করেছে। তিনি এলাকার দরিদ্র জনগোষ্টির উন্নয়নে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছেন এবং বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। তিনি এ পর্যন্ত ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তার উন্নয়নসহ স্কুল, মাদ্রাসা, মসজিদ, ড্রেনেজ ব্যবস্থা, ব্রিজ, কালভার্ট সংস্কার করে গরীব দুঃখী মানুষের মাঝে বয়স্কভাতা, প্রতিবন্ধীভাতা, বিধবাভাতা, মাতৃকালীনভাতা সঠিকভাবে বিতরণ করেছেন। করোনা কালে অনেক কর্মহীন পরিবারকে খাদ্যে সহায়তা করেছেন। এছাড়াও বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করে গ্রাম্য শালিস ও উঠান বৈঠকের মাধ্যমে ইউনিয়নের বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করে যাচ্ছেন। উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে আগামী নির্বাচনে আবারও সবাই এক জোটে তাঁকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করে রায়নগর ইউনিয়ন আধুনিক মডেল হিসেবে গড়ে তুলবেন এমনটাই প্রত্যাশা ইউনিয়নবাসীর।

সাবস্ক্রাইব
Notify of
guest
0 মন্তব্য
Inline Feedbacks
View all comments
Advertisements
সর্বশেষ
- Advertisements -
এ বিভাগে আরো দেখুন