ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ফেব্রুয়ারী ১০, ২০২০

ঢাকা রবিবার, ১১ ফাল্গুন, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ২৮ জমাদিউস-সানি, ১৪৪১

অপরাধ, রাজশাহী শিবগঞ্জে দপ্তরীর কাণ্ড: স্কুল ছুটির পর ছাত্রীকে কক্ষে ডেকে ধর্ষণ!

শিবগঞ্জে দপ্তরীর কাণ্ড: স্কুল ছুটির পর ছাত্রীকে কক্ষে ডেকে ধর্ষণ!

গোলাম রব্বানী শিপন,নিরাপদ নিউজ: বগুড়ার শিবগঞ্জে লম্পট যৌনলালাসু এক দপ্তরীর কাণ্ড। স্কুল ছুটির পর ৫ম শ্রেণিতে পড়ুয়া এক মেধাবী শিশু ছাত্রীকে কক্ষে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার ১০দিন পর থানায় মামলা করা হয়েছে। এদিকে ধর্ষণের এই ঘটনা মোটা অংকের টাকা খেয়ে এক শ্রেণির টাউট বাটপারেরা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরেজমিনে গিয়ে অসহায় গরীব ভিকটিম পরিবারের সাথে কথা বলে জানা যায়, শিবগঞ্জ উপজেলার কিচক ইউনিয়নের চিইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ম শ্রেণিতে পড়ে স্থানীয় বাসিন্দা মেধাবী ছাত্রী। সে যথা নিয়মে স্কুলে পড়তে যায়। আগে থেকেই ওই স্কুলের দপ্তরী হিমেলের কু-দৃষ্টি পড়তো ৫ম শ্রেনির এই ছাত্রীর ওপর। এরই ধারাবিকতায় গত ২২ জানুয়ারি স্কুল ছুটির পর দপ্তরী যৌনদস্যু হিমেল ওই ছাত্রীর গতিরোধ করে তার স্কুলের ব্যাগ কেড়ে নিয়ে বলে, স্যার তোমাকে স্মরন করছে তোমাকে পরে বাড়ি যেতে বলছে। এদিকে স্কুলছুটির পর লম্পট হিমেল তড়িঘড়ি করে বিদ্যালয়ের অন্যান্য সব কক্ষ বন্ধ করে দেয়। এরপর পাশের একটি কক্ষের ভিতরে নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে বিবস্ত্র করে জোরপূর্বক ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করতে থাকে। এদিকে মেয়ে সময় মত বাড়ি না ফেরায় দু:শ্চিন্তায় থাকে মা জোস্না বেগম। এক সময় মেয়েকে না পেয়ে মা নিজেই ওই স্কুলে প্রবেশ করে খুঁজতে থাকে। সেখানে সব শ্রেণি কক্ষ বন্ধ থাকায় দু:শ্চিন্তা মনে বিদ্যালয় পাশ কাটার সময় পাশের একটি কক্ষ থেকে মেয়ের গাঙিনী আত্মচিৎকার শুনতে পায়। এসময় মা জোস্না চারিদিকে চিৎকার করে দরজা ধাক্কাধাক্কি করলে ধর্ষক দপ্তরী হিমেল অবস্থার বেগতিক দেখে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। এরপর ভুক্তভোগী পরিবার গ্রামের সমাজপতিদের কাছে মেয়ে ধর্ষণের বিচার দেয়ে কোন প্রতিকার না পেয়ে অবশেষে শিবগঞ্জ থানায় লম্পট ধর্ষকের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। এ বিষয়ে শিবগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মিজানুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি জানান, স্থানীয় কিচক চিইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণীর ছাত্রী, স্কুল ছুটির পর বাড়ি ফেরার সময় ওই স্কুলের দপ্তরী হিমেল শ্রেনি কক্ষে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে শিশুটি চিৎকার শুরু করলে এবং তার মায়ের উপস্থিত টেরপেয়ে ধর্ষণ পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটিকে উদ্ধার করে তার মা বাড়িতে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে শিবগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আসামীকে দ্রুত গ্রেফতার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)