ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট ৩ মিনিট ৫৮ সেকেন্ড

ঢাকা শনিবার, ১২ মাঘ, ১৪২৬ , শীতকাল, ২৯ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১

সিলেট সিলেটে ওয়ার্কসপ অন ট্যুর অপারেশন এন্ড ট্যুর ম্যানেজমেন্ট বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

সিলেটে ওয়ার্কসপ অন ট্যুর অপারেশন এন্ড ট্যুর ম্যানেজমেন্ট বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

নিরাপদ নিউজ: যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সিলেট কর্তৃক নিবন্ধিত অরাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ইনসাফ ভিলেজ ডেভেলপমেন্ট ফর ইয়ুথ সোসাইটির উদ্যোগে ও বাংলাদেশ ট্যুরিজম ফর ইনোভেশন বিএসটিআই এর সহযোগিতায় মুজিববর্ষ কে স্বাগত জানিয়ে ওয়ার্কসপ অন ট্যুর অপারেশন এন্ড ট্যুর ম্যানেজমেন্ট বিষয়ক এক কর্মশালা শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) বিকেলে খাদিমনগন জাতীয় উদ্যানে অনুষ্ঠিত হয়।

ইনসাফ ভিলেজ ডেভেলপমেন্ট ফর ইয়ুথ সোসাইটির সভাপতি জাতীয় যুব পুরস্কার প্রাপ্ত মো. নজরুল ইসলাম সভাপতিত্বে ও স্বাগত বক্তব্যের মাধ্যমে সুচিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির সহ সভাপতি রোটারিয়ান এডভোকেট মখলিছুর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন নিরাপদ সড়ক চাই নিসচা সিলেট মহানগরের সভাপতি ও সিলেট সুরমা ট্যুরিষ্ট ক্লাবের সহ-সভাপতি রোটারিয়ান এম ইকবাল হোসেন, সিলেট বিভাগ যুব উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি আফিকুর রহমান আফিক, বাংলাদেশ সোসাইটি ফর ট্যুরিজম ইনোভেশন এর ফাউন্ডার চেয়ারম্যান মো. সাইফুল­ার রাব্বি।

ফোরামের সহ-সভাপতি মো. মোক্তার হোসেনের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন গীতি কবি ইলিয়াস আকরাম, যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের প্রশিক্ষক মো. মুরসালিন, অর্থ সম্পাদক হাবিবুর রহমান, সমাজ সেবা বিষয়ক সম্পাদক সালাউদ্দিন আহমদ, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হেলাল আহমেদ রাজু, প্রচার সম্পাদক রবিউল ইসলাম লেবু, খন্দকার নেওয়াজ শরিফ, মোক্তার খা, আব্দুশ শহিদ, আব্দুল কাদির প্রমুখ। পরে সভায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে সংগঠনের পক্ষ থেকে সার্টিফিকেট তুলে দেন অতিথিবৃন্দ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে রোটারিয়ান মখলিছুর রহমান বলেন, পর্যটন শিল্পে উদ্যোক্তা তৈরী করা খুবই দরকার। আমাদের আগামী প্রজন্মের জন্য কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে। বর্তমান সরকার পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে অনেক পদক্ষেপ নিয়েছেন তার সাথে সম্পৃক্ত হয়ে সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন, সিলেটে পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে হলে পর্যটকদের সাথে বন্ধুত্বসূলভ আচরণ করতে হবে, মনে রাখতে হবে তারা খুশি হলে ভ্রমন শেষে অন্যদেরকেও তারা এখানে আসার জন্য উৎসাহ দিবেন। এভাবেই পর্যটন শিল্পকে আর সামনের দিকে নিয়ে যাওয়া সম্ভব। ইনসাফ ভিলেজ ডেভেলপমেন্ট ফর ইয়ুথ সোসাইটির উদ্যোগ কে প্রসংসা করে তিনি মুজিব বর্ষে পর্যটন শিল্প আর একদাপ এগিয়ে যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রোটারিয়ান ইকবাল হোসেন বলেন, সিলেটে পর্যটন শিল্প বিকাশের অনেক সম্ভাবনা রয়েছে। সিলেটের রাতারগুল বিছনাকান্দি, সাদাপাথর সহ অনেক সুন্দর সুন্দর স্থান রয়েছে সিলেটে ঘুরে বেড়ানোর জন্য। সিলেটে অনেক ব্যবসা এখন সংকুচিত হতে চলছে। সেই জন্য সিলেটকে ইকোনোমিক জোন করে গড়ে তুলতে হবে। শুধু শহরকেন্দ্রিক উন্নয়ন না করে, গ্রামসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলসমূহ উন্নয়নের আওতায় আনা দরকার। তিনি বলেন, সিলেটে পর্যটন শিল্পে কর্মসংস্থান সহ অনেক সুযোগ সুবিধা রয়েছে আর এই সুযোগের জন্য ইনসাফ ভিলেজ ডেভেলপমেন্ট ফর ইয়ুথ সোসাইটি নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে।আগামিতে ও এই ধরনের ভাল কাজ করে যাওয়ার জন্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের প্রতি আহবান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রধান প্রশিক্ষক সাইফুল­াহ রাব্বি বলেন, সিলেটে পর্যটন শিল্পের প্রসারে সরকারী, বেসরকারী সংস্থা সহ ইনসাফ এর মত সামাজিক সংগঠন গুলুকে এগিয়ে আসতে হবে। সিলেটের পর্যটনই পারে সিলেটের অর্থনীতির চাকা ঘুরিয়ে দিতে। কারন প্রকৃতির অপরুপ সৌন্দর্যের লিলাভুমি পর্যটকদের সিলেট মুখি করে তুলেছে ।দিন দিন এর সংখ্যা আরো বৃদ্বি পাচ্ছে। তিনি আরো বলেন প্রয়োজন দক্ষ ট্যুর গাইড় তৈরী করা। আর এজন্য সরকারী ,বেসরকারী খ্যাত থেকে ট্যুরিজম সংগঠনগুলাকে আরো বেশী পৃষ্টপোষকতা করতে হবে। তিনি ট্যুরিজম নিয়ে পরিকল্পনা গ্রহনের তাগিদ দিয়ে বলেন অপরিকল্পিত পর্যটন কোন সুফল বয়ে আনবে না। এতে পর্যটকদের ভুগান্তি আর বাড়বে।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)