ব্রেকিং নিউজ
বাংলা

আপডেট জুলাই ১৪, ২০১৯

ঢাকা রবিবার, ১৩ মাঘ, ১৪২৬ , শীতকাল, ৩০ জমাদিউল-আউয়াল, ১৪৪১

অপরাধ স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে নিজের মেয়েকে তিন মাস ধরে ধর্ষণ করলো বাবা!

স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে নিজের মেয়েকে তিন মাস ধরে ধর্ষণ করলো বাবা!

নিরাপদ নিউজ: একজন বাবা তার সন্তানের কাছে হিরো, সুপার হিরো। আর একটা মেয়ের কাছে বাবা হল নিরাপদ আশ্রয়, নির্ভরতার জায়গা। কিন্তু, সেই বাবা-ই যদি রক্ষকের মুখোশ ছেড়ে ভক্ষক হন তাহলে সেই কন্যা সন্তানের নিরাপদ আশ্রয় কার কাছে হতে পারে তা জানা নেই। সেই বাবা যখন তার মেয়েকে ধর্ষণ করে সেই মেয়েটির জীবন কেমন হয়?

এটা কোনো চিত্রনাট্য কিংবা সিনেমার কাহিনী নয়। নরসিংদীতে স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে নিজের ১২ বছর বয়সী মেয়েকে তিন মাস ধরে ধর্ষণের অভিযোগে বাবা মমিনুলকে (৩৭) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মেয়ের মায়ের দায়ের করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে আজ রবিবার (১৪ জুলাই) দুপুরে মাধবদী পৌর শহরের আনন্দী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নিজ কন্যাকে গত তিন মাসে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ স্বীকার করেছে ওই নরপশু।

পুলিশ জানায়, মমিনুল পেশায় একজন রাজমিস্ত্রি। রাজমিস্ত্রি পেশার সুবাদে গত ৫ বছর ধরে মাধবদী থানার আনন্দি এলাকার হোসেন মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকতো। স্ত্রী ও ভুক্তভোগী মেয়ের মা মাধবদীতে একটি কারখানায় কাজ করে। মায়ের অনুপস্থিতিতে গত তিন মাস আগে কিশোরী মেয়েকে ধর্ষণ করে মমিনুল। ধর্ষণের বিষয়টি কিশোরী মাকে জানালে লোকলজ্জা আর ভয়ে মা বিষয়টি গোপন রাখে। এরপর থেকে প্রায় সময় নিজের মেয়েকে ধর্ষণ করতে থাকে সে। রবিবার পুনরায় মেয়েকে ধর্ষণ করলে দুপুরে মেয়েটির মা মাধবদী থানায় এসে অভিযোগ করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে মমিনুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ওই কিশোরীর মা বলেন, মেয়েকে যখন ওই নরপশু ধর্ষণ করেছে তখন মেয়ে আমাকে জানিয়েছে। আমি তাকে জিজ্ঞাসা করলে ক্ষমা চায়। বলেছে জীবনে আর এ ধরনের কাজ করবে না। পরে মেয়ের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে আর লোক লজ্জার ভয়ে কাউকে কিছু বলিনি। রবিবার যখন আবার একই কাজ করল তখন তাকে আর ক্ষমা করা যায় না। আমি তার সর্বোচ্চ শাস্তি চাই। মমিনুল বাবা নামের নরপশু।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মাধবদী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু তাহের দেওয়ান বলেন, ধর্ষণের শিকার কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছেন।

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)