আপডেট জানুয়ারী ১৮, ২০২০

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ১৫ ফাল্গুন, ১৪২৬ , বসন্তকাল, ১ রজব, ১৪৪১

মতামত, লিড নিউজ ‘সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সব পক্ষের সচেতনতা প্রয়োজন’

‘সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সব পক্ষের সচেতনতা প্রয়োজন’

নিরাপদ নিউজ: সারাদেশেই সড়ক দুর্ঘটনায় মানুষ মারার এক প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে গেছে। যিনি (নিরাপদ সড়ক চাই এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন) এর প্রতিবাদে দাড়িয়ে আছেন কয়েক দশক ধরে তাকেও শুনতে হয়েছে খারাপ ও অমার্জনীয় বক্তব্য। যিনি খারাপ ও অমার্জনীয় ব্যবহার করেছেন তিনি এক সময়ের দুরদান্ত প্রতাপশালী মন্ত্রী, তিনি আরও ভালো আছেন। মন্ত্রনালয় না থাকলেও সরকার দলীও ডিসিশন মেকিংয়ে এখন তিনি চালকের আসনেই বসে আছেন আর হাসছেন। সড়কে শৃংখলা ফেরাতে কারও যেন কোন চিন্তা নেই। নতুন আইন আছে, কার্যকর নেই। এখনো লাইসেন্স বিহীন ফিটনেসবিহীন গাড়ি হর হামেশা চলছে। সিগনাল মানছেনা অনেক চালক। ড্রাইভিংয়ের সময় ফোনে কথাও বলছে। আর হাই ওয়েতে গতিসীমা আগের ওভার স্পিড ছাড়িয়ে নতুন মাত্রায়। এ অবস্থায় দুর্ঘটনা কমার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীন। মানুষ চালকদের ভুলে, উদাসীনতায়, ওভার স্পিড, রেস্ট বিহীন ড্রাইভিং, রাস্তায় পাল্লা ধরে গাড়ি চালানোর ফলে প্রতিনিয়ত মানুষ, পথচারী, যাত্রী এমনকি চালক নিজেও নিহত কিংবা মারাত্বকভাবে আহত হচ্ছেন।

এর থেকে কি কোন প্রতিকার নেই?
কেউ কি সিরিয়াসলি দেখবেনা?
বিআরটিএ, ডিএমপি কি করছে এ বিষয়ে?
মিডিয়াগুলো কি করছে? প্রতিদিন শুধু খবর প্রচার করছে এতজন নিহত এতজন আহত। আর কিছু বস্তা পচা টক শো।
ছাত্র ও তরুন সমাজ একটু চিন্তা করা উচিৎ
চিন্তা করা উচিৎ নগর, সড়ক বিশেষজ্ঞদের।
সবশেষে চালকদের মানসিক অবস্থা বুঝে তাদের ঠিকমতো ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা। না হলে আপনার নিজের পরিবারের কেউ হয়তো এই দুর্ঘটনার শিকার হতে পারেন। আর জানেনতো একটি দুর্ঘটনা সারা জীবনের কান্না😫

আসুন দেশকে ও দেশের মানুষকে ভালোবেসে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সচেতন সবাই যার যার দিক থেকে এখন থেকেই কাজ করি। ভালবাসি লাল সবুজ পতাকা🇧🇩

(ফেসবুক থেকে সংগৃহীত)

পাঠকের মন্তব্য: (পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য কর্তৃপক্ষ কোন ক্রমে দায়ী নয়)