আপডেট ৫৭ মিনিট ২৪ সেকেন্ড

ঢাকা রবিবার, ১২ জুলাই, ২০২০, ২৮ আষাঢ়, ১৪২৭ , বর্ষাকাল, ২০ জিলক্বদ, ১৪৪১

অতি পরিচিত সমস্যা পেশীর টান: জানুন বাঁচার সহজ উপায়

রকিবুল ইসলাম সোহাগ

নিরাপদ নিউজ

নিরাপদনিউজ: পেশীর টান মানুষের একটি অতি পরিচিত সমস্যা। হঠাৎ পেশী সম্প্রসারন করতে গেলে অনেকেরই পেশীতে টান লাগে। তবে শীতে এর প্রকট থাকে সবচেয়ে বেশি। এসময় দৌড়াতে গিয়ে বা ভারী কিছু তুলতে গিয়ে হঠাৎ টান লেগে যেতে পারে পেশীতে। এগুলো ছাড়াও পেশীতে টান লাগার আরও কিছু কারণ রয়েছে। পেশীর মধ্যে পানির পরিমাণ কমে গেলে, পেশী তার ফ্লেক্সিবিলিটি বা স্থিতিস্থাপকতা হারায়। সেই কারণেই প্রয়োজন মতো সংকোচন-প্রসারণ করে উঠতে পারে না। তাই হঠাৎ প্রসারণের ফলে সেখানে আঘাত লাগে। পেশীতে প্রয়োজনীয় মিনারেল বা খনিজ পদার্থের অভাবেও এই সমস্যা হতে পারে। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক পেশীর টান থেকে রক্ষার উপায়-

পেশীর দরকার পানি
শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি থাকলে কি পেশীর ব্যাথা হবে না? এ নিয়ে চিকিৎসক মহলে মিশ্র মত রয়েছে। কারো মতে, পর্যাপ্ত পানি থাকলেও পেশীর ব্যথা হতে পারে। তবে একটা বিষয়ে উভয় মহলই একমত। শরীর যদি সঠিক ভাবে হাইড্রেটেড থাকে, তাহলে টান লাগলেও ব্যথার পরিমাণ খুব বেশি হয় না। তাই যখনই তেষ্টা পাবে অল্প করে পানি খান। এতে আপনার পেশী ফ্লেক্সিবিলিটি বাড়বে। আচমকা টান ধরে গেলেও, সেই ব্যথা কম সময়ের জন্য থাকবে।

কার্বোহাইড্রেট-এ না নয়
ভাত বা পাস্তা খেলে শরীর ভারী হয়ে যায় বলে মনে করেন? আসলে এরা কিন্তু আপনার পেশীর জন্য খুবই দরকারি। এই ধরনের হাই-কার্বোহাইড্রেট খাবারগুলো পেশীকে দ্রুত পুষ্টি জোগায়। পেশীর আঘাত সামলে ওঠার জন্য যে প্রয়োজনীয় উপাদানের দরকার হয়, তাও পাওয়া যায়, এই কার্বোহাইড্রেট থেকেই।

লবণ-চিনিতে নজর
শুধু পানির পক্ষে পেশীকে হাইড্রেট রাখা সম্ভব নয়। পেশীর ফ্লেক্সিবিলিটি বা স্থিতিস্থাপকতা বজায় রাখার জন্য দরকার লবণও। কারণ এই লবণে থাকে ইলেকট্রোলাইটস। পেশীর কোষের মধ্যে পানি কীভাবে ঢুকবে, কতটা ঢুকবে, কতটাই বা বেররে, তার পুরোটা নিয়ন্ত্রণ করে এই ইলেকট্রোলাইটস। তাই সোডিয়ামের মতো লবণের শরীরে উপস্থিতিটা খুব দরকারি। না হলে শরীর ডিহাইড্রেট হয়ে যাবে। তাই লবণ-চিনির পানি খেতে পারেন। এছাড়া এক লিটার পানিতে ইলেকট্রল ভিজিয়ে সারা সকাল ধরে অল্প অল্প করে খেতে পারেন। এতে শরীরের প্রয়োজনীয় ইলেকট্রোলাইট শরীর এই পাণীয় থেকে পেয়ে যায়।

মাল্টি ভিটামিনের উপকার
চিকিৎসকের পরামর্শে মাল্টিভিটামিন খাওয়াটাও পেশীর টানের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার অন্যতম ভালো রাস্তা। কারণ সহজলোভ্য মাল্টি ভিটামিনের মধ্যে সঠিক পরিমাণে ক্যালসিয়াম আর ম্যাগনেসিয়াম থাকে। এই দুটি যৌগই পেশীর স্থিতিস্থাপকতা বাড়াতে সাহায্য করে।

ব্যায়াম বা স্ট্রেচিং
যারা নিয়মিত স্ট্রেচিং বা যোগাসন করেন, তাদের পেশীর স্থিতিস্থাপকতা অন্যদের তুলনায় বেশি। শরীরের চাহিদাতেই তারা বেশি পরিমাণে ফ্লুইড নিতে বাধ্য হন। সব মিলিয়ে পেশীর গুণগত মান তাতে ভালো হয়। তাই এই স্ট্রেচিং-এর দিকে নজর দিতে পারেন। এতে পেশীর টান থেকে অনেকটাই মুক্তি পাবেন।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x