ব্রেকিং নিউজ

আপডেট ৩ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২১, ১৪ মাঘ, ১৪২৭, শীতকাল, ১৪ জমাদিউস সানি, ১৪৪২

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মাস্ক-স্যানিটাইজার নিয়ে রাজপথে শিল্পী সমিতি

রকিবুল ইসলাম সোহাগ

নিরাপদ নিউজ

নিরাপদ নিউজ: করোনা প্রকোপে উদ্বিগ্ন বিশ্বের মানুষ। চীন, ইতালির দুঃসহ পরিস্থিতি কারো অজানা নয়। সময়ের সঙ্গে এই ভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়ে পড়ছে সারা বিশ্বে। বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাস ছড়িয়েছে। এরইমধ্যে  আক্রান্ত হয়েছে ২০ জন। মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। ভাইরাসটির প্রতিষেধক এখনো আবিষ্কৃত না হওয়ায় মানুষের মনে উদ্বিগ্নতা বাড়ছে।

বিজ্ঞাপন

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত একের পর এক রোগী শনাক্ত হচ্ছে। দেশের শোবিজ তারকারাদের অনেকেই আতঙ্ক না হয়ে সচেতন হওয়ার বার্তা দিচ্ছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

শনিবার (২১ মার্চ) করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে র‌্যালির করার পাশাপাশি হ্যান্ড গ্লাভস, মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিতরণ করে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। দুপুর ২টায় সমিতির অফিসের সামনে থেকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে র‌্যালি করেন শিল্পীরা। এফডিসির ১ নম্বর, দুই, তিন ও চার নম্বর শুটিং ফ্লোরের সামনে দিয়ে র‌্যালি শেষ হয় এফডিসির গেটের সামনে।

এফডিসির গেটে র‌্যালি শেষ করার পর সেখানে উপস্থিত সাধারণ মানুষ, রিকশা চালক, ভাসমান দোকানি, পথচারীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন। ২০ মিনিটের মতো মাস্ক বিতরণের এ অনুষ্ঠানে শতাধিক মাস্ক বিতরণ করা হয় বলে জানানো হয়।

শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খানের নেতৃত্বে এই র‌্যালিতে অংশ নেন অভিনেতা ও নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান ও নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন,অভিনেত্রী দিলারা জামান।আরও উপস্থিত ছিলেন সমিতির সহ-সভাপতি রুবেল, কার্যকরি সদস্য অরুন বিশ্বাস, অঞ্জনা, আলেক জান্ডার বো জয় চৌধুরী জেসমি প্রমুখ।

করোনাভাইরাস ঠেকাতে সচেতনতায় বিকল্প নেই বলে মনে করেন ‘বেদের মেয়ে জোসনা’ খ্যাত নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। তিনি বলেন, সারাবিশ্ব এখন করোনার কারণে থমকে গেছে। এ রোগ থেকে দূরে থাকার উপায় হচ্ছে সচেতন থাকা।

আশঙ্কা প্রকাশ করে এই অভিনেতা বলে, করোনা আক্রান্ত দেশ থেকে বাংলাদেশে যেসব প্রবাসীরা এসেছে তাদের প্রথমদিকে আমরা সচেতন ভাবে রাখতে পারিনি। এজন্য আমরা প্রচণ্ড ঝুঁকির মধ্যে আছি। তাই নিজ উদ্যোগে সচেতন থাকার বিকল্প নেই।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, জনসমাগম এড়িয়ে চলতে হবে। ব্যবহারের জিনিস, নিয়মিত হাত ধোয়া থেকে শুরু করে সবকিছুইতে সচেতন থাকতে হবে। প্রয়োজনে নামাজ বা প্রার্থনা ঘরে বসে আদায়ের চেষ্টা করতে হবে। নিজেকে রক্ষা করার জন্য সচেষ্ট হলে অন্যজন ভালো থাকবে। আমরা শুধুমাত্র সচেতন থাকলেই করোনা সংক্রামক দূর করতে পারবো।

করোনা সচেতনতায় শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর বলেন, ৩১ মার্চ পর্যন্ত শিল্পী সমিতির কার্যক্রম বন্ধ থাকবে। আমরা প্রত্যেকেই সচেতন থাকার চেষ্টা করছি। আমার স্ত্রী-সন্তান আছে নিউইয়র্ক। সেখানে তারা লকডাউন। আমিও যেতে চেয়েও পারিনি।

তিনি বলন, করোনা নিয়ে যতোটা আতঙ্কিত হবো তারচেয়ে বেশি সতর্ক হতে হবে। এটা অপরিহার্য। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং সরকার করোনা নিয়ে অনেক সিরিয়াস। সেখান থেকে নির্দেশনা মানলেই করোনাভাইরাস দূরে থাকা যাবে। তৃণমূল থেকে একেবারে উচ্চপর্যায় পর্যন্ত সবাইকে সচেতন থাকতে হবে।

সমিতির সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান বলেন, আতঙ্কিত না হয়ে সরকারিভাবে জানানো সতর্কতা যদি মানুষ মেনে চলতে পারে তাহলেই করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি সম্ভব। সাধারণ মানুষকে সচেতন করার জন্য রিস্ক নিয়ে ঘর থেকে বের হয়েছি। দিনদিন এ রোগ ভয়াবহ অবস্থায় যাচ্ছে। এটা নির্মূল করতে চাই শুধুমাত্র নিজের এবং পরিবারের সচেতনতা।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কারণে ইতোমধ্যে স্থগিত রাখা হয়েছে নাটক ও চলচ্চিত্রের শুটিং। বন্ধ হয়ে গেছে সিনেমা হল, থিয়েটার।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x