আপডেট মার্চ ২৮, ২০২০

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই, ২০২০, ২৫ আষাঢ়, ১৪২৭ , বর্ষাকাল, ১৭ জিলক্বদ, ১৪৪১

ভৈরবে কাভার ভ্যানে ঠাসাঠাসি করে যাত্রী পরিবহন: ঘটতে পারে মারাত্মক দূর্ঘটনা

রকিবুল ইসলাম সোহাগ

নিরাপদ নিউজ

মোঃ আলাল উদ্দিন, ভৈরব প্রতিনিধি,নিরাপদ নিউজ: করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে সারাদেশ যখন অঘোষিত লক ডাউনসহ গণপরিবহন বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। আর এই সরকারের সেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে পণ্য পরিবহনের নামে কাভার ভ্যানে যাত্রী পরিবহন করছে অসাধু গাড়ির মালিক ও ড্রাইভারগণ। শুধু তাই নয় কাভার ভ্যানের পাশাপাশি এম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার ও সিএনজি চালিত অটোরিকশায় ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত যাত্রী পরিবহনের অভিযোগ রয়েছে।

গণপরিবহন বন্ধ ঘোষণা করার প্রথম দিন মহাসড়ক সহ আভ্যন্তরিক সড়কে কোন পরিবহন চলতে দেখা না গেলেও গতকাল শুক্রবার ও আজ শনিবার ঢাকা সিলেট মহাসড়কের ভৈরব দূর্জয় মোড়, কমলপুর লোকাল বাসস্ট্যান্ড, নিউটাউন মোড়, মুসলিমের মোড় ও স্টাফ হোটেলের সামনে এক শ্রেণির পরিবহন মালিক ও ড্রাইভাররা তাদের এম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, সিএনজিচালিত অটোরিকশায় বিভিন্ন জায়গায় থেকে যাত্রী আনা নেয়া করছে।

এদিকে আজ শনিবার দুপুরে দুর্জয় মোড়ের পূর্বপাশে একটি কাভার ভ্যানের ভিতর ঠাসাঠাসি করে অন্তত ৩৫ জনের অধিক নারী পুরুষকে ঢুকানো হয়। হবিগঞ্জের উদ্দেশ্য ছেড়ে যাওয়া কাভার ভ্যানে যাত্রী পরিবহনে ঘটতে পারে মারাত্মক দূর্ঘটনা।

স্থানীয়রা জানান, ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন স্থান মাইক্রোবাস সহ বিভিন্ন গণ পরিবহনে আসা যাত্রীরা দূর্জয় মোড়ে ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত অবস্থান নেয়। সেখানে বাসস্ট্যান্ডের আশেপাশের দালাল চক্র টাকার বিনিময়ে অপেক্ষারত যাত্রীদেরকে কাভার ভ্যান, এম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার ও সিএনজি চালিত অটোরিকশায় তুলে দেয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ, ভৈরব কমলপুর লোকাল বাসস্ট্যান্ডের মোল্লা গ্লাস হাউজের গলির ভিতর ও র‍্যাব-১৪, ভৈরব ক্যাম্পের দক্ষিণ পশ্চিম পাশে পার্কিং করে দালালের মাধ্যমে কৌশলে যাত্রী সংগ্রহ করছে পরিবহন মালিক ও ড্রাইভারগণ। ওই সকল যাত্রীদের কাছ থেকে জন প্রতি সর্বনিম্ন ৪৫০- ৬০০ টাকা ভাড়া নিয়ে কিশোরগঞ্জ, কটিয়াদি, বাজিতপুর, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় যাত্রী পরিবহন করছে। অভিযোগ রয়েছে রাস্তায় ঢেউটিরত হাইওয়ে পুলিশের কথিপয় সদস্যদের দৈনিক ৬০০ টাকা উপরি দিয়ে অসাধু পরিবহন মালিক ও ড্রাইভাররা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বিভিন্ন স্থানে যাত্রী পরিবহন করার।

স্থানীয়দের অভিমত, ভৈরব দূর্জয় মোড়ে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা যাত্রীদের মাধ্যমে ভৈরব ছড়াতে পারে করোনা ভাইরাস। ভৈরব দূর্জয় মোড়কে নিয়ন্ত্রণে আনতে পারলেই নিয়ন্ত্রণে আসবে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ। পুরণ হবে অঘোষিত লক ডাউনের উদ্দেশ্য।

ভৈরব হাইওয়ে থানার ওসি মামুন রহমান জানান, যাত্রী পরিবহনের বিষয়টি আমি অবগত নই। মহাসড়কে কেউ এম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস, কাভার ভ্যান, ও সিএনজি সহ যাত্রী পরিবহন করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর যদি হাইওয়ে পুলিশের কেউ যাত্রী পরিবহনে সহোযোগিতা করে তাঁদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান তিনি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার লুবনা ফারজানা জানান, আমরা সারাদিনই এসব বিষয় নিয়ে মাঠেই ছিলাম। যাত্রী পরিবহনের বিষয়টি আমাদের নজরে আসেনি। এখন থেকে এবিষয়ে সতর্ক থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করাবো।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x