ব্রেকিং নিউজ

আপডেট এপ্রিল ১৮, ২০২০

ঢাকা মঙ্গলবার, ২ জুন, ২০২০, ১৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ , গ্রীষ্মকাল, ৯ শাওয়াল, ১৪৪১

শরীয়তপুরে ৫৬ জনের বেতনের ব্যবস্থা করুন: বিনা বেতনে স্বাস্থ্যসেবা

রকিবুল ইসলাম সোহাগ

নিরাপদ নিউজ

নিরাপদ নিউজ: শরীয়তপুরের সিভিল সার্জন সেখানকার স্বাস্থ্য বিভাগের ৫৬ জন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন, কারণ তাঁরা করোনাকালে ঝুঁকি নিয়ে স্বাস্থ্যসেবা দিয়েছেন। তাঁদের অস্থায়ীভাবে নিয়োগ দেওয়া হয় গত বছরের জুন মাসে, কিন্তু ১০ মাস ধরে তাঁরা বেতন পাননি। স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ বলেছে, নিয়োগে অনুমোদন নেই, তাই বরাদ্দও নেই। তাহলে এই ১০ মাস তাঁদের কাজ করানো হলো কেন? কাজ করেও বেতন না পাওয়া কেমন কথা? সর্বোপরি এই কর্মীরা করোনা দুর্যোগে গুরুতর স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছেন। বিনা বেতনে এই দুঃসময়ে পরিবার–সন্তানাদি নিয়ে তাঁরা কেমন করে চলবেন?

লোকবলের অভাব ছিল বলেই শরীয়তপুরের স্বাস্থ্য বিভাগ গত বছরের জুন মাসে এই ৫৬ জনকে নিয়োগ দেয়। এ পর্যন্ত তাঁরা শরীয়তপুরের হাসপাতাল ও স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে কাজ করে যাচ্ছেন। করোনার সময় ঝুঁকি নিয়ে সেবা দিয়ে যাওয়া কম কথা নয়। হাসপাতালের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ কাজগুলোই তাঁরা করছেন। অথচ তাঁরা বেতন পান না, তাঁদের পিপিইসহ সুরক্ষা সরঞ্জামেরও কোনো বালাই নেই। এটা কোনো গ্রহণযোগ্য অবস্থা হতে পারে না। কাজ করলে কর্মীকে অবশ্যই বেতন দিতে হবে।

গত অর্থবছরে স্বাস্থ্য খাতে প্রচুর ব্যয় হয়েছে যন্ত্রপাতি কেনা, ভবন বানানো ইত্যাদিতে। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে এসব যন্ত্রপাতি কতটা কাজে আসছে? যদি লোকবলই না থাকে, তাঁদের বেতনই যদি না দেওয়া যায়, তাহলে এত বিপুল অর্থ ব্যয়ের কী মানে? দুদকের প্রতিবেদন অনুসারে, গত অর্থবছরে সবচেয়ে বেশি দুর্নীতি বাড়ার তিনটি ক্ষেত্রের মধ্যে অন্যতম হলো স্বাস্থ্য খাত।

বলা হচ্ছে গত বছরের জুন মাস পর্যন্ত তাঁদের নিয়োগের অনুমোদন ছিল। তার অর্থ মাত্র ১১ দিনের জন্য এতজন কর্মী নিয়োগ করা হয়েছিল? অর্থবছরের হিসাব যদি প্রধান কারণ হয়, তাহলে বলতে হয় নতুন অর্থবছর শেষ হতে চলল, এত দিনেও নিয়োগের অনুমোদন দেওয়া গেল না? আর অনুমোদনই যদি না থাকবে, তাহলে তাঁদের কাজে রাখা কেন?

করোনার কারণে সব স্বাস্থ্য বিভাগেই অতিরিক্ত জনবলের দরকার হচ্ছে, বিশেষ করে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের ছাড়া চিকিৎসাব্যবস্থা চলতেই পারবে না। সার্বিক বিবেচনায় শরীয়তপুরের স্বাস্থ্য বিভাগের এই ৫৬ জন কর্মীকে আত্তীকরণ করে তাঁদের চলতি বেতনসহ বকেয়া পরিশোধ করা জরুরি।

মন্তব্য করুন

Please Login to comment
avatar
  Subscribe  
Notify of