ব্রেকিং নিউজ

আপডেট মে ২৩, ২০২০

ঢাকা শনিবার, ৬ জুন, ২০২০, ২৩ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ , গ্রীষ্মকাল, ১২ শাওয়াল, ১৪৪১

নিকলীতে চেয়ারম্যানের মৃত্যুবার্ষিকীতে ৭০০ জনের ইফতার

রেদুয়ানুল হক (শাওন), নিকলী, কিশোরগঞ্জ, প্রতিনিধি

নিরাপদ নিউজ

কিশোরগঞ্জ জেলার নিকলী উপজেলার নিকলী সদরের সনামধন্য পরিবারের কৃতি সন্তান, নিকলী সদর ইউনিয়নের তিন তিনবারের নির্বাচিত প্রয়াত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম কারার বুরহান উদ্দিন সাহেবের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে” বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম কারার বুরহান উদ্দিন স্মৃতি সংসদের এর উদ্যোগে ৭০০ লোকের ইফতারের আয়োজন করা হয়। চলমান বিশ্বমহামারী কোভিট-১৯ এর নির্দেশনা মেনে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে লোকজনের মাঝে ইফতারের বিরিয়ানীর পেকেট বিতরন করা হয় আছরের নামাজের পরপরই যেন তারা ইফতারের সময়ের পূর্বেই নিজ বাড়িতে অবস্থান নিয়ে ইফতার করতে পারেন। জনসমাগম এড়াতে অনেকের ইফতার বাড়িতে পৌছে দেওয়া হয়।

এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মরহুম কারার বুরহান উদ্দিন সাহেবের একমাত্র সু-পুত্র ও সু-যোগ্য উত্তরসূরী নিকলী সদর ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান কারার শাহরিয়ার আহমেদ (তুলিপ)সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। প্রধান অতিথি এসময় উনার পিতার জন্য সকলের কাছে দোয়া চান এবং মরহুম পিতার বিদেহী আত্তার মাগফিরাত কামনা করেন।

বহুমাত্রিক প্রতিভার অধিকারী জনবান্ধব চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা কারার বুরহানউদ্দিন ছিলেন নিকলীর সাংস্কৃকিতিক অঙ্গনের এক উজ্বল নক্ষত্র। তিনি একদিকে যেমন ফুটবল প্রেমি ছিলেন, তেমনি ছিলেন নাট্যামোদি। তিনি বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের তালিকাভুক্ত রেফারি ছিলেন। ছিলেন একজন সু-দক্ষ সংগঠক। নিকলী সদর ইউনিয়নে তিনি একাধিক সমবায়ী প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার পাশাপাশি ছিলেন কৃষিপ্রেমিক ও আধুনিক কৃষির পথদ্রষ্টা। তিনি ছিলেন উপজেলা শিল্পকলা ও নিকলী স্টেডিয়ামের সাধারণ সম্পাদক

উল্লেখ্য গত ১৯ মে ২০১৭ সালে,ভোর ৪টায় রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালের মৃত্যুবরন করেন
নিকলীতে একটি জনবান্ধব নাম কারার বুরহান উদ্দিন যে মানুষটিকে শেষ শ্রদ্ধা জানানো এবং তার জানাজা নামাজে শরীক হওয়ার জন্য স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব আফজাল হোসেনসহ হাজার হাজার মানুষ নিকলীর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠে সমাবেত হন। এ যেন নিকলীতে স্মরণকালের ইতিহাসে সেরা জমায়েত।

ঈদগাহ মাঠ থেকে কিছুটা দুরে উনার জানাজার দিকে বুকচাপা কান্না নিয়ে অপলক দৃষ্টি থাকিয়ে ছিলো হাজারো হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে প্রথমে সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এর উপস্থিতিতে পুলিশ সদস্য কর্তৃক গার্ড অফ অনার দেয়া হয় ।

তারপর জানাজা শেষে উনার মরদেহ দরগাবাড়ী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়। ইহকালে আল্লাহ তাকে খ্যাতি সম্মান দিয়েছে। পরকালেও আল্লাহ পাক যেন তাকে শান্তিতে রাখেন পরম করুনাময়ের কাছে এই দোয়া এলাকাবাসীর।

মন্তব্য করুন

Please Login to comment
avatar
  Subscribe  
Notify of