ব্রেকিং নিউজ

আপডেট ১৫ মিনিট ৩১ সেকেন্ড

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর, ২০২০, ৪ কার্তিক, ১৪২৭, হেমন্তকাল, ২ রবিউল আউয়াল, ১৪৪২

বিজ্ঞাপন

দেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে লাইভে এসে যা বললেন ইলিয়াস কাঞ্চন

রকিবুল ইসলাম সোহাগ

নিরাপদ নিউজ

মানুষ জন্মগতভাবে কখনই খারাপ থাকে না। জন্মের পর পরিবেশগত কারণে বা অন্য কোনো বাস্তব কারণে খারাপের পথে অগ্রসর হয়। তবু সব মানুষের ভেতরেই একটি পবিত্র সত্ত্বা রয়েছে। পৃথিবীটিতে অনেক খারাপ কাজের মাঝে নিজেকে ভালো রাখাও অনেক কঠিন একটি কাজ। আমাদের চেষ্টা করতে হবে ভালো মানুষ হবার। নিজেকে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার অঙ্গীকার করতে হবে। একটি সন্তান জন্ম নেবার পর থেকে সে সন্তানকে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার দায়িত্ব বাবা-মায়ের। সব বাবা-মা আমরা কি এই সঠিক দায়িত্বটি পালন করছি। আমাদের নৈদিকতাবোধ জাগ্রত করতে হবে। অনেক মেধাবী ও বিদ্বান মানুষ দেশে আছেন এরপরও তাঁদের মধ্যে প্রকৃত শিক্ষা নেই। তাই তাঁরা দুর্নীতি ও অসততার সঙ্গে জড়িয়ে যাচ্ছেন। আমরা যদি নিজেকে মানুষ হিসেবে গড়ে তুলি, তবে এ দেশের সমস্যার সমাধান শুধু সময়ের ব্যাপার মাত্র।

বিজ্ঞাপন

আমরা আল্লহর সৃষ্টির সেবা জীব। আমরা দুনিয়াতে এসেছি আল্লাহর প্রতিনিধিত্ব করতে। ভালো কাজ করতে। আল্লহর পথে চলতে। এরপরও অনেকে বিপথে যাচ্ছি। আমরা সঠিকভাবে মানুষ হিসেবে গড়ে উঠছিনা বলে আজ দেশে মানবিকতা, নৈতিকতার বড় অভাব। আমরা যে যার মতো চলছি। কেউ কারো কথা ভাবছিনা। কোন আইন মানছিনা। আমাদের মাঝে আজ আইন না মানার প্রবনতা বেশী। এর ফলে প্রতিনিয়ত আমরা ভয়ংকর বিপদের সম্মুখিন হচ্ছি। বাংলাদেশে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রতিদিন কত মানুষ মারা যাচ্ছে। বর্তমান সময়ে করোনা ভাইরাস আমাদের দেশে প্রতিদিন কতো মানুষের প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে এরপরও কি আমরা সচেতন হচ্ছি? শুধু সাধারন মানুষ নয়, দেশ পরিচালনার যায়গায় যেনারা আছেন তারাও কি সব সময় সঠিক কাজগুলো করতে পারছেন। আজ সবখানে দুর্নীতির গন্ধ। মানুষের মানবিকতার অভাব। বর্তমান সময়ের নানান অসংঘতি নিয়ে আজ নিজস্ব ফেসবুক লাইভে এসে কথা বলেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনরে প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন।

লাইভে এসে তিনি শুরুতে তার অগনিত ভক্ত এবং দেশবাসীকে সালাম জানান। ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, করোনাভাইরাস বর্তমানে পৃথিবীর সবচেয়ে আলোচিত ও উদ্বেগের বিষয়। করোনাভাইরাস সমাজে এক ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে যা জনজীবনে আতঙ্ক ও অস্বস্তিতে প্রতীয়মান হয়েছে। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা দেশে বেড়েই চলেছে। যা আমাদের জন্য হুমকিস্বরূপ। হয়তো বা আজ আমাদের জন্য এটি এতটা হুমকির কারণ হতো না। যদি আমরা সকলে শুরু থেকে সঠিক নিয়ম মেনে চলতাম। আমাদের অনক ভূল রয়েছে পাশাপাশি অনেক ভূল সিদ্ধান্ত দেশ পরিচালনার কাজে যারা বসে আছেন তারাও করেছেন। অনেকেই কোয়ারেন্টিনের শর্ত মানছে না, ইচ্ছেমতো ঘুরে বেড়াচ্ছেন। মানুষেকে ঘরে থাকতে বললে খাওয়ার দোহাই দেয়া হচ্ছে। না খেলে বাঁচবনা তাই বাঁচার জন্য ঘর থেকে বাইরে বের হতে হচ্ছে তাঁদের। কিন্তু ওনারা কি এই কথাটি বুঝতে পারেননা, যদি বেঁচেই না থাকি তাহলে খাওয়া দিয়ে কি হবে? ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন আমি দীর্ঘ ২৭বছর ধরে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন করে যাচ্ছি। মানুষকে সচেতন করে যাচ্ছি। আমাদের দেশের মানুষ আজও শতভাগ সচেতন নন।  আমাদের আর এভাবে অসচেতন হয়ে থাকলে চলবে না। আমাদের উচিৎ, আমরা বাঙালিরা সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে যেমন দেশ স্বাধীন করেছিলাম, এবারও আমরা সবাই সম্মিলিত ভাবে স্রষ্টার আশীর্বাদে করোনাভাইরাসকে প্রতিরোধ করতে সক্ষম হব। তিনি আবারো সবাইকে সচেতনতার আহবান জানান।

ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন আমি বিভিন্ন সময় ফেসবুক লাইভে এসে এবং টিভি টকশো-তে বারবার এই কথাগুলো বলে আসছি আপনারা দয়া করে নিয়ম মেনে চলুন। একটু ধর্য্য ধরুন। আজ বর্তমান দেশের অবস্থা দেশে আমি হতাশ! আমরা প্রতিনিয়ত ঝুঁকির দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। তিনি বলেন, শুরুর দিকে যদি আমরা সবাই ঘরে থাকতাম। মার্কেট , ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতাম। আজ আমাদের হয়তো এই দৃশ্য দেখতে হতোনা। হয়তো আজ আমরা ভালো একটি পরিস্থিতিতে ফিরে আসতাম।লাইভে ইলিয়াস কাঞ্চন দেশবাসীকে সড়ক দুর্ঘটনার সম্পর্কেও সচেতনমুলক দিকনির্দেশনা প্রদান করেন। সেই সাথে তিনি শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের কথা স্বরণ করে সেই সব শিক্ষার্থীদের প্রতি ভালোবাসা প্রকাশ করেন এবং সকল শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, আমি তোমাদের দিকে চেয়ে আছি তোমরা আগামীর ভবিৎষত তোমরাই পারবে এই দেশ কে সুন্দর ভাবে গড়ে তুলতে। তোমরা বিগত দিনে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন নিয়ে যেভাবে রাজপথে এসেছিলে এই দেশের সড়ককে নিরাপদ করার জন্য আশা করি আগামীদিনেও তোমরা এগিয়ে আসবে।

ইলিয়াস কাঞ্চন দেশবাসী সবার উদ্দেশ্যে বলেন, আমার বয়স ৬০ বছর পার হয়েছে আমি আর কতদিন বাঁচব। আমি একদিন থাকবনা কিন্তু এই দেশ থাকবে দেশের মানুষগুলো থাকবে। এই দেশ এই দেশের মানুষগুলোর জন্য নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন প্রয়োজন। আমি যতদিন বেঁচে আছি আমি এই আন্দোলন চালিয়ে যাব। আমি চাই আপনারাও আমার পাশে আসুন, যেদিন আমি থাকবনা সেদিন আমার সন্তানদের পাশে থেকে আপনারা নিরাপদ সড়ক গড়ার কাজ চালিয়ে যাবেন। যতদিন দেশ এর সড়ক নিরাপদ না হবে , ততদিন এই আন্দোলন চলবেই।

Posted by Ilias Kanchan on Tuesday, June 9, 2020

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x