ব্রেকিং নিউজ

আপডেট জুন ২৪, ২০২০

ঢাকা মঙ্গলবার, ৭ জুলাই, ২০২০, ২৩ আষাঢ়, ১৪২৭ , বর্ষাকাল, ১৫ জিলক্বদ, ১৪৪১

নায়িকা রওশন আরা: চির বিদায়ের দশ বছর

আজাদ আবুল কাশেম

নিরাপদ নিউজ

নায়িকা রওশন আরার আজ দশম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০১০ খৃষ্টাব্দের ২৪ জুন, ঢাকায় মৃত্যুবরণ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। গুণি এই অভিনেত্রীর প্রতি বিন্ম্র শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করি।

রওশন আরা ১৯৪০ খৃষ্টাব্দের ৩ আগস্ট, পাবনা শহরে জন্মগ্রহণ করেন। দুই বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন ছোট। ছোট বেলায় পরিবারের সাথে রাজশাহীতে চলে যান। রাজশাহীতে পিএন গার্লস স্কুলে ভর্তি হন। এরপরে পারিবারের সাথে বগুড়া ও নড়াইলে থাকা কালে সেখানকার স্কুলেও পড়াশোনা করেন। আবার ১৯৫০ খৃষ্টাব্দে, পাবনায় ফিরে আসেন ও পাবনা গার্লস স্কুল থেকে ১৯৫৪ খৃষ্টাব্দে ম্যাট্রিক পাশ করেন। এ্যাডওয়ার্ড কলেজ থেকে ১৯৫৬ খৃষ্টাব্দে, উচ্চমাধ্যমিক পাশ করে, ঢাকার মিটফোর্ড মেডিকেল কলেজে (বর্তমান স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ) ভর্তি হন এবং এমবিবিএস পাস করেন।

খ্যাতিমান চিত্রপরিচালক মহিউদ্দিনের ‘মাটির পাহাড়’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে, ১৯৫৯ খৃষ্টাব্দে চলচ্চিত্রে পদার্পণ করেন রওশন আরা। তাঁর অভিনীত অন্যান্য ছবি- যে নদী মরুপথে, সূর্যস্নান, নতুন সুর, ইয়েভি এক কাহানী, সোহানা সফর (মুক্তি পায়নি), নদী ও নারী, মেঘের অনেক রং, আমির ফকির, দরদীশত্রু, প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।

ডাঃ রওশন আরা ব্যক্তিজীবনে, চিকিৎসক জহুরুল কামাল-এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। এই চিকিৎসক দম্পতি নিঃসন্তান ছিলেন। তাদের একমাত্র দত্তক কন্যা ঋতি, বর্তমানে কানাডায় বসবাস করছেন।

শান্ত স্নিগ্ধ মুখাবয়ব, মায়াময়ী এক সুন্দর চেহারার অধিকারী ছিলেন, নায়িকা রওশন আরা । মনমুগ্ধকর এক আবেশ ছড়িয়ে থাকতো তাঁর আঁখিপল্লবে। পরিমার্জিত অভিনয় দক্ষতায় দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছেন অনায়াসে। তখনকার সময়ে একজন ডাক্তার হয়েও, অভিনয়কে ভালবেসে চলচ্চিত্রে এসেছেন এবং চলচ্চিত্রশিল্পকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে রেখেছেন অনন্য ভূমিকা। এমন একজন শিক্ষিত অভিনয়শিল্পী আমাদের চলচ্চিত্র ইতিহাসে, চির স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x