ব্রেকিং নিউজ

আপডেট ৩৯ মিনিট ৬ সেকেন্ড

ঢাকা বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০, ৩১ আষাঢ়, ১৪২৭ , বর্ষাকাল, ২৩ জিলকদ, ১৪৪১

রংপুরে নমুনা পরীক্ষার উদ্যোগ সিটি কর্পোরেশনের

রাশেদুল ইসলাম রাশেদ, রংপুর

নিরাপদ নিউজ
মোবাইল ফোনে টেলি মেডিসিন সেবা প্রশংসিত হলেও রংপুরে নমুনা পরীক্ষার ফলাফল জট কমছেনা। সিটি কর্পোরেশন এলাকায় যে হারে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে তাতে খোদ মেয়রসহ সুধিমহল নমুনা পরীক্ষার হার বৃদ্ধি ও দ্রুত ফলাফল প্রদানের দাবি জানিয়েছেন।
রংপুর সিটি কর্পোরেশনের  স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, জেলায় গত মঙ্গলবার পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৮০৯ জন। এর মধ্যে সিটি করপোরেশনেই আক্রান্তের সংখ্য ছয় শতাধিক। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে নয় জনের এবং সুস্থ হয়েছে ৪১০ জন। করোনা ডেডিকেডেট হাসপাতালে রংপুর সিটির ২২ জন রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। বর্তমানে টেলি মেডিসিনের আওতায় রয়েছেন ২৪৮ জন।
সূত্র জানায়, করোনা রোগীর নমুনা সংগ্রহে সিটি করপোরেশনের ছয় জন টেকনেশিয়ান রয়েছে। তারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করেন। করোনা ডেডিকেডেট হাসপাতালে সিটি কর্পোরেশনের   পক্ষ থেকে তিনজন পরিচ্ছন্ন কর্মী নিয়োগ করা হয়েছে। এছাড়া নমুনা পরীক্ষার জন্য নগরীর কাচারি বাজারের পাশে একটি বুথ খোলা হয়েছে। প্রতিদিন ৬০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এসব নমুনা রংপুর মেডিক্যাল কলেজের পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। পিসিআর ল্যাবে প্রতিদিন নমুনা পরীক্ষার সক্ষমতা ১৮৮ জনের। কিন্তু নমুনা জমা হচ্ছে চার শতাধিক। ফলে কোন কোন সময় নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পেতে এক সপ্তাহের বেশি সময় লেগে যায়। এই দীর্ঘ সময়ের কারণে নমুনা দেওয়া ব্যক্তি ও তার ¯^জনরা থাকে চরম উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায়।
নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজেটিভ এলে সিটি কর্পোরেশন এলাকায় করোনা আক্রান্ত রোগীদের টেলি মেডিসিন সেবা দেওয়া হয়। করপোরেশনের পক্ষ থেকে প্রতিদিন ওই রোগীকে চিকিৎসা পরামর্শসহ খাওয়া দাওয়ার ব্যাপারে দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়। দরিদ্র রোগী ও তার পরিবারে খাদ্য সামগ্রীও সরবরাহ করা হয় সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে। সিটির এই উদ্যোগ ও করোনা হাসপাতালের টেলি মেডিসিন সেবা পেয়ে এ পর্যন্ত ৪১০ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন।
রংপুরে করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষায় সাধারণ মানুষের উৎসাহ বেড়েছে। তাই রংপুর মহানগরীর সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে নভেল করোনাভাইরাসের নমুনা সংগ্রহে অস্থায়ী ক্যাম্প পরিচালনা শুরু করেছে রংপুর সিটির স্বাস্থ্য বিভাগ। নগরীর ইঞ্জিনিয়ারপাড়াস্থ বিদ্যালয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নমুনা দিতে আসা মানুষের দীর্ঘ লাইন লক্ষ করা গেছে। এখানে সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য বিভাগের চুক্তিভিত্তিক ল্যাব টেকনিশিয়ান দিয়ে নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। সিটির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. কামরুজ্জামান তাজ জানান, নগরীতে করোনা সংক্রমণের ভয়াবহ অবস্থা, কিন্তু আমরা অসহায়। তাই স্বাস্থ্য বিভাগের সাথে সমন্বয় করে প্রতিদিনই করোনা রোগীদের টেলি মেডিসিন সেবার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে অস্থায়ী ক্যাম্পে নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছে।
সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা জানান, দেশের ১২টি সিটির মধ্যে একমাত্র রংপুর সিটি করপোরেশন বাড়ি বাড়ি গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করছে। কিন্তু পরীক্ষায় বিলম্বের কারণে এ ভাইরাস দ্রুত নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ছড়াচ্ছে। এই নগরবাসীর সুবিধার্থে একটি অস্থায়ী ক্যাম্প পরিচালনা করা হচ্ছে। নমুনা প্রদানে মানুষের আগ্রহ যেভাবে বেড়েছে, এতে কমপক্ষে আরো দুটি ক্যাম্প স্থাপন করা প্রয়োজন। সেই তুলনায় জনবলসহ দক্ষ টেকনিশিয়ান নেই। রেড জোন রংপুরের সাধারণ মানুষের সুবিধার্থে আরো দু’টি নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাব স্থাপন করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্য মন্ত্রীর প্রতি জোর দাবি জানান তিনি।
করোনা প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক শিক্ষাবিদ ফখরুল আনাম বেঞ্জুসহ সাধারণ মানুষ রংপুর সিটি মেয়রের এ উদ্যোগকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘ক্যাম্প স্থাপন করে নমুনা সংগ্রহ করার এই উদ্যোগ একটি মহৎ কাজ। রংপুর মেডিক্যাল কলেজের পাশাপাশি সিটি করপোরেশনে নমুনা পরীক্ষার জন্য দুটি ল্যাব স্থাপন করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি অনুরোধ জানা তারা।
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x