ব্রেকিং নিউজ

আপডেট জুন ২৯, ২০২০

ঢাকা শনিবার, ৪ জুলাই, ২০২০, ২০ আষাঢ়, ১৪২৭ , বর্ষাকাল, ১২ জিলক্বদ, ১৪৪১

কোভিড ১৯: বিশ্বে মোট আক্রান্ত ১কোটি ২লাখ ৪৩হাজার ৮৫৮জন, সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫৫লাখ ৫৩হাজার ৪৯৫জন

এস এম আজাদ হোসেন

নিরাপদ নিউজ

বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ২ লাখ ৪৩ হাজার ৮৫৮ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ১ লাখ ৬১ হাজার ২৪০ জন। নতুন করে প্রাণ গেছে ৩ হাজার ১০১ জনের। এ নিয়ে করোনারায় মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ৫ লাখ ০৪ হাজার ৪১০ জন মানুষ।
আর ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫৫ লাখ ৫৩ হাজার ৪৯৫ জন।গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ্য হয়েছেন ৯৪ হাজার ৯৭২ জন।বিশ্বে বর্তমানে মধ্যমমানের আক্রান্ত ৪১ লাখ ২৮ হাজার ২৮৩ জন এবং গুরুতর অসুস্থ্য ৫৭ হাজার ৬৭০ জন।
আজ সোমবার (২৯ জুন) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা পর্যন্ত বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী,

করোনায় বিশ্বে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা সর্বোচ্চ যুক্তরাষ্ট্রে, ২৬ লাখ ৩৭ হাজার ৭৭ জন।সবচেয়ে বেশি মৃত্যুও হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে ১ লাখ ২৮ হাজার ৪৩৭ জন। আক্রান্তের মতো সুস্থ হওয়ার দিক থেকেও সবার শীর্ষে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এ পর্যন্ত অন্তত ১০ লাখ ৯৩ হাজার ৪৫৬ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন।

আক্রান্তের ও মৃতের সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের পরেই উঠে এসেছে ব্রাজিল। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ লাখ ৪৫ হাজার ২৫৪ জন আর আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৫৭ হাজার ৬৫৮ জন। এখন পর্যন্ত ব্রাজিলে ৭ লাখ ৩৩ হাজার ৮৪৮ জন সুস্থ হয়েছেন।

রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৩৪ হাজার ৪৩৭ জন। আর মারা গেছেন ০৯ হাজার ৭৩ জন।অপরদিকে সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ৯৯ হাজার ৮৭ জন।

আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারত আক্রান্তের সংখ্যায় উঠে এসেছে ৪ নম্বরে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫ লাখ ৪৯ হাজার ১৯৭ জন, আর এখন পর্যন্ত মৃত্যু ১৬ হাজার ৪৮৭ জনের।ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৩ লাখ ২১ হাজার ৭৭৪ জন।

এর পরের অবস্থানে যুক্তরাজ্য, এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ১১ হাজার ১৫১ জন। মৃতের সংখ্যায় তৃতীয় দেশটিতে মারা গেছেন ৪৩ হাজার ৫৫০ জন।

যুক্তরাজ্যের পর স্পেনে আক্রান্ত ২ লাখ ৯৫ হাজার ৮৫০ জন, মৃত্যু ২৮ হাজার ৩৪৩ জন আর সেরে উঠেছে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৯৫৮ জন।

পেরুতে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৭৯ হাজার ৪১৯ জন, মোট মৃত্যু ৯ হাজার ৩১৭ জন আর সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৬৭ হাজার ৯৯৮ জন।
চিলিতে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৭১ হাজার ৯৮২ জন।মোট মৃত্যু ৫ হাজার ৫০৯ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ২ লাখ ৩২ হাজার ২১০ জন।

ইতালিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৪০ হাজার ৩১০ জন।দেশটিতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৩৪ হাজার ৭৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে।আর ইতিমধ্যে ইতালিতে সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৮৮ হাজার ৮৯১ জন।

ইরানে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ২২ হাজার ৬৬৯ জন।মোট মৃত্যু ১০ হাজার ৫১০ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৮৩ হাজার ৩১০ জন।
মেক্সিকোতে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ১৬ হাজার ৮৫২ জন।মোট মৃত্যু ২৬ হাজার ৬৪৮ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ২৬ হাজার ৮৪৩ জন।
পাকিস্তানে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ০২ হাজার ৯৫৫ জন।মোট মৃত্যু ৪ হাজার ১১৮ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৯২ হাজার ৬২৪ জন।
তুরস্কে মোট আক্রান্ত ১ লাখ ৯৭ হাজার ২৩৯ জন।মোট মৃত্যু ৫ হাজার ৯৭ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৭০ হাজার ৫৯৫ জন।

জার্মানিতে মোট আক্রান্ত ১ লাখ ৯৪ হাজার ৮৬৪ জন।মোট মৃত্যু ৯ হাজার ২৯ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৭৭ হাজার ৭০০ জন।

সৌদিআরবে মোট আক্রান্ত ১ লাখ ৮২ হাজার ৪৯৩ জন।মোট মৃত্যু ১ হাজার ৫৫১ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ২৪ হাজার ৭৫৫ জন।

ফ্রান্সে মোট আক্রান্ত ১ লাখ ৬২ হাজার ৯৩৬ জন।মৃত্যুতে পঞ্চম অবস্থানে থাকা ফ্রান্সে মারা গেছেন ২৯ হাজার ৭৭৮ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৭৫ হাজার ৬৪৯ জন।

এদিকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও জনের ৪৩ মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে মোট ১ হাজার ৭৩৮ জন কোভিড রোগী মারা গেলেন। এই সময়ে ৩ হাজার ৮০৯ জন শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্ত হলেন ১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৮৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৪০৯ জন এবং মোট সুস্থ ৫৫ হাজার ৭২৭ জন।

রোববার দুপুরে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (মহাপরিচালকের দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭ হাজার ৩৪টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। আগের নমুনাসহ মোট পরীক্ষা করা হয় ১৮ হাজার ৯৯টি। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা হলো ৭ লাখ ৩০ হাজার ১৯৭টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে আরও তিন হাজার ৮০৯ জনের মধ্যে। শনাক্তের হার ২১ দশমিক ০৫ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের এ অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, নতুন করে যে ৪৩ জন মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ২৯ জন ও নারী ১৪জন। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ২৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারী ৪৩ জনের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২১-৩০ বছর বয়সী দু্জন, ৩১-৪০ বছর বয়সী একজন, ৪১-৫০ বছর বয়সী সাতজন, ৫১-৬০ বছর বয়সী ১৩ জন, ৬১-৭০ বছর বয়সী ১২ জন এবং ৭১ থেকে ৮০ বছরের সাতজন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের একজন রয়েছেন।

এর মধ্যে ২১ জন ঢাকা বিভাগের, ১০ জন চট্টগ্রাম বিভাগের, খুলনা বিভাগে তিনজন, রাজশাহী বিভাগে দুজন, সিলেট বিভাগে তিনজন, রংপুরে বিভাগে একজন, বরিশাল বিভাগে দুজন ও ময়মনসিংহ বিভাগে একজন রয়েছেন। হাসপাতালে ৩০ জন, বাড়িতে ১২ জন এবং বাসায় একজনের মৃত্যু হয়েছে।

অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে আরও ৭১৭ জনকে এবং এ পর্যন্ত মোট আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে ২৪ হাজার ৮১০ জনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৪৬১ জন এবং এ পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ১০ হাজার ২২৭ জন।

বর্তমানে আইসোলেশনে রয়েছেন ১৪ হাজার ৫২৩জন। গত ২৪ ঘণ্টায় হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক মিলিয়ে কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে তিন হাজার ৯০ জনকে। এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে তিন লাখ ৫৮ হাজার ২৭১ জনকে।

গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টাইন থেকে ছাড় পেয়েছেন দুই হাজার ৪০৫ জন। এ পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইন থেকে মোট ছাড় পেয়েছেন দুই লাখ ৯৩ হাজার ৬৭৩ জন। বর্তমানে হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক মিলিয়ে কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ৬৪ হাজার ৫৯৮ জন।

মন্তব্য করুন

Please Login to comment
avatar
  Subscribe  
Notify of