ব্রেকিং নিউজ

আপডেট জুলাই ৭, ২০২০

ঢাকা বুধবার, ৫ আগস্ট, ২০২০, ২১ শ্রাবণ, ১৪২৭, বর্ষাকাল, ১৪ জিলহজ, ১৪৪১

বিজ্ঞাপন

করোনা: বিশ্বে ২৪ঘন্টায় আক্রান্ত ১লাখ ৮০হাজার ৮৯২জন, নতুন করে প্রাণ গেছে ৩হাজার ৮৯১জনের

এস এম আজাদ হোসেন

নিরাপদ নিউজ

আজ মঙ্গলবার (৭ জুলাই) বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টা পর্যন্ত বিশ্বখ্যাত জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ১৭ লাখ ৪০ হাজার ১০৫ জন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ১ লাখ ৮০ হাজার ৮৯২ জন। নতুন করে প্রাণ গেছে ৩ হাজার ৮৯১ জনের। এ নিয়ে করোনারায় মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ৫ লাখ ৪০ হাজার ৬৭৭ জন মানুষ। আর ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৬৬ লাখ ৪২ হাজার ৭৭৭ জন।গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ্য হয়েছেন ১লাখ ৬ হাজার ৮৭৫ জন।বিশ্বে বর্তমানে মধ্যম মানের আক্রান্ত ৪৪ লাখ ৯৮ হাজার ৬৬৯ জন এবং গুরুতর অসুস্থ্য ৫৭ হাজার ৯৮২ জন। যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বিশ্বে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৩০ লাখ ৪০ হাজার ৮৩৩ জন।সবচেয়ে বেশি মৃত্যুও হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে ১ লাখ ৩২ হাজার ৯৭৯ জন। আক্রান্তের মতো সুস্থ হওয়ার দিক থেকেও সবার শীর্ষে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এ পর্যন্ত অন্তত ১৩ লাখ ২৪ হাজার ৯৪৭ জন করোনা রোগী সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন। আক্রান্তের ও মৃতের সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের পরেই উঠে এসেছে ব্রাজিল। দেশটিতে এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ লাখ ২৬ হাজার ৭১ জন আর আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৬৫ হাজার ৫৫৬ জন। এখন পর্যন্ত ব্রাজিলে ৯ লাখ ৭৮ হাজার ৬১৫ জন সুস্থ হয়েছেন। প্রতিবেশী দেশ ভারত আক্রান্তের সংখ্যায় উঠে এসেছে ৩ নম্বরে। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৭ লাখ ২০ হাজার ৩৪৬ জন, আর এখন পর্যন্ত মৃত্যু ২০ হাজার ১৭৪ জনের।ভারতে সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৪০ হাজার ১৫০ জন। আক্রান্তে চতুর্থ অবস্থানে রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৮৭ হাজার ৮৬২ জন। আর মারা গেছেন ১০ হাজার ২৯৬ জন।অপরদিকে সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৫৪ হাজার ৩২৯ জন। পেরুতে মোট আক্রান্ত ৩ লাখ ৫ হাজার ৭০৩ জন, মোট মৃত্যু ১০ হাজার ৭৭২ জন আর সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬১৯ জন। স্পেনে আক্রান্ত ২ লাখ ৯৮ হাজার ৮৬৯ জন, মৃত্যু ২৮ হাজার ৩৮৮ জন আর সেরে উঠেছে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৯৫৮ জন। চিলিতে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৯৮ হাজার ৫৫৭ জন।মোট মৃত্যু ৬ হাজার ৩৮৪ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ২ লাখ ৬৪ হাজার ৩৭১ জন। এর পরের অবস্থানে যুক্তরাজ্য, এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৮৫ হাজার ৭৬৮ জন। মৃতের সংখ্যায় তৃতীয় দেশটিতে মারা গেছেন ৪৪ হাজার ৩৩৬ জন। মেক্সিকোতে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৬১ হাজার ৭৫০ জন।মোট মৃত্যু ৩১ হাজার ১১৯ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৫৯ হাজার ৬৫৭ জন। ইরানে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৪৩ হাজার ৫১ জন।মোট মৃত্যু ১১ হাজার ৭৩১ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ২ লাখ ৪ হাজার ৮৩ জন। ইতালিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৪১ হাজার ৮১৯ জন।দেশটিতে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ৩৪ হাজার ৮৬৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।আর ইতিমধ্যে ইতালিতে সুস্থ হয়েছেন ১ লাখ ৯২ হাজার ২৪১ জন। পাকিস্তানে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৩১ হাজার ৮১৮ জন।মোট মৃত্যু ৪ হাজার ৭৬২ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৩১ হাজার ৬৪৯ জন। সৌদিআরবে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ১৩ হাজার ৭১৬ জন।মোট মৃত্যু ১ হাজার ৯৬৮ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৪৯ হাজার ৬৩৪ জন। তুরস্কে মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৬ হাজার ৮৪৪ জন।মোট মৃত্যু ৫ হাজার ২৪১ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৮২ হাজার ৯৯৫ জন। সাউথ আফ্রিকায় মোট আক্রান্ত ২ লাখ ৫ হাজার ৭২১ জন। মারা গেছেন ৩ হাজার ৩১০ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৯৭ হাজার ৮৪৮ জন। জার্মানিতে মোট আক্রান্ত ১ লাখ ৯৮ হাজার ৫৭ জন।মোট মৃত্যু ৯ হাজার ৯২ জনের এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১ লাখ ৮২ হাজার ৭০০ জন। ফ্রান্সে মোট আক্রান্ত ১ লাখ ৬৮ হাজার ৩৩৫ জন। মারা গেছেন ২৯ হাজার ৯২০ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ৭৭ হাজার ৩০৮ জন। এদিকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে দুই হাজার ৯৬ জনের। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ২০১। ফলে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল এক লাখ ৬৫ হাজার ৬১৮ জনে। সোমবার (০৬ জুলাই) দুপুরে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এ তথ্য জানান। তিনি ৬৮টি ল্যাবরেটরিতে নমুনা পরীক্ষার তথ্য তুলে ধরে জানান, করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৫ হাজার ২০১টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়। পরীক্ষা করা হয় ১৪ হাজার ২৪৫টি নমুনা। এ নিয়ে দেশে মোট নমুনা পরীক্ষা করা হলো আট লাখ ৬০ হাজার ৩০৭টি। নতুন নমুনা পরীক্ষায় করোনা শনাক্ত হয়েছে আরও তিন হাজার ২০১ জনের মধ্যে। ফলে শনাক্ত করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল এক লাখ ৬৫ হাজার ৬১৮ জনে।গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন তিন হাজার ৫২৪ জন। এতে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৭৬ হাজার ১৪৯ জনে। ব্রিফিংয়ের করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর পরামর্শ দেন অধ্যাপক নাসিমা। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, করোনা মোকাবিলায় তরল খাবার, কুসুম গরম পানি ও আদা চা পান করতে হবে। সম্ভব হলে মৌসুমী ফল খাওয়া ও ফুসফুসের ব্যায়াম করা। এ সময় ধূমপান ত্যাগ করতে হবে। কারণ, এটি ফুসফুসের কার্যকারিতা নষ্ট করে দেয়। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর আরও জানিয়েছে, করোনাভাইরাসের করোনা আক্রান্ত মায়ের দুধপানে শিশুর করোনা আক্রান্ত হওয়ার কোনো তথ্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা পায়নি। অর্থাৎ, শিশুকে দুধপান করানো যাবে। তবে, এই সময়ে গর্ভবতী মায়ের স্বাস্থ্যের দিকে খেয়াল রাখার প্রতি বিশেষ আহ্বান জানানো হয়। চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী ভাইরাস করোনা বাংলাদেশে প্রথম শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। সেদিন তিনজনের শরীরে করোনা শনাক্তের কথা জানিয়েছিল আইইডিসিআর। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় প্রথম মৃত্যুর খবর আসে।

বিজ্ঞাপন
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x