ব্রেকিং নিউজ

আপডেট জুলাই ১৬, ২০২০

ঢাকা সোমবার, ১০ আগস্ট, ২০২০, ২৬ শ্রাবণ, ১৪২৭, বর্ষাকাল, ১৯ জিলহজ, ১৪৪১

বিজ্ঞাপন

দুই সেতুর সংযোগ সড়কে ধস, যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন: চরম দুর্ভোগ

জেলা প্রতিনিধি, মুন্সিগঞ্জ

নিরাপদ নিউজ

মুন্সিগঞ্জের টঙ্গীবাড়ি উপজেলার কামারখাড়া-হাসাইল ও কামারখাড়া-আদাবাড়ি সড়কের বাইনখাড়া এলাকার দুটি সেতুর সংযোগ সড়কের মাটি ধসে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। একই সঙ্গে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে উপজেলার বাইনখাড়া, নশংকর, কামারখাড়া, ভঙ্গনিয়া, হাসাইল, আদাবড়ি, ভিটিমালধাসহ ১৫ গ্রামের মানুষের সঙ্গে টঙ্গিবাড়ি উপজেলা হয়ে ঢাকার যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে। এ নিয়ে নারী-শিশু ও বৃদ্ধসহ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ওই এলাকার মানুষ।

বিজ্ঞাপন

বুধবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যায় সরেজমিনে দেখা গেছে, উজান থেকে নেমে আসা পানির স্রোতে উপজেলার ভাঙ্গুনিয়া এলাকার দুটি সেতুর একপাশের সংযোগ সড়কের মাটি ধসে ২৫ থেকে ৩০ ফুট গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। ফলে ওই সড়ক দিয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে চরম বিপাকে পড়েছেন স্থানীয়রা।

স্থানীয়রা জানায়, হাসাইল-কামারখাড়া সেতুর নিচে এলাকাবাসীর উদ্যোগে ইটের দেয়াল নির্মাণ করা হয়। এতে করে কয়েক বছর সেতুর সংযোগ সড়ক ভাঙন রোধ হয়। কিছুদিন আগে প্রশাসন সেতুর নিচের ইটের দেয়াল ভেঙে দিলে সংযোগ সড়কে পদ্মার পানির স্রোত আঘাত আনে। এতে সেতুর দুটির সংযোগ সড়ক ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। প্রশাসনের ভুল পরিকল্পনায় এমনটি হয়েছে বলে দাবি এলাকাবাসীর। জরুরি ভিত্তিতে সংযোগ সড়কের মাটি ভরাট করে জনদুর্ভোগ দূর করার জন্য জনপ্রতিনিধিসহ উপজেলা প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

কামারখাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. মহিউদ্দিন হালদার বলেন, সেতুর নিচের দেয়াল না ভাঙার জন্য আমি অনুরোধ করেছিলাম। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান, নির্বাহী কর্মকর্তা ও ইঞ্জিনিয়ার দেয়াল ভাঙার সিদ্ধান্ত দেন। দেয়ালটি ভেঙে ফেললে সেতুর দুটির সংযোগ সড়কে ধস নেমে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। আপাতত মানুষের যাতায়াতের জন্য বাঁশের সাঁকোর ব্যবস্থা করা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) হাসিনা আক্তার বলেন, ইঞ্জিনিয়ারের মতামতের ভিত্তিতে সেতুর নিচের দেয়াল ভেঙে ফেলা হয়। এখন মানুষের যাতায়াতের জন্য বাঁশ ও বালুর বস্তা দিয়ে বিকল্প ব্যবস্থা করা হবে।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x