ব্রেকিং নিউজ

আপডেট জুলাই ২৭, ২০২০

ঢাকা রবিবার, ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১ ভাদ্র, ১৪২৭, শরৎকাল, ২৫ জিলহজ, ১৪৪১

বিজ্ঞাপন

সাতক্ষীরায় নারীর সঙ্গে আপত্তিকর ছবি তুলে ব্যবসায়ীর কাছে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি

জেলা প্রতিনিধি, সাতক্ষীরা

নিরাপদ নিউজ

সাতক্ষীরায় নারীর সঙ্গে আপত্তিকর ছবি তুলে ব্যবসায়ীর কাছে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি ও চাঁদার টাকা দিতে না পারায় পাঁচ দিন আটকে রাখার অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার (২৭ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

আটকরা হলেন- প্রতারক শহিদুল গাজী, সহযোগী আফসানা বেগম ও আব্দুল্লাহ্কে। সোমবার (২৭ জুলাই) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

কালিগঞ্জ উপজেলার ইউসুফপুর গ্রামের মৃত ইমান আলী গাজীর ছেলে শহিদুল ইসলাম গাজী, মৌতলা গ্রামের মৃত কাজী আব্দুল আহাদের মেয়ে ও একই উপজেলার পারুলগাছা গ্রামের মনিরুজ্জামানের স্ত্রী আফসানা বেগম এবং সদর উপজেলার গয়েশপুর গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে আব্দুল্লাহ্।

পুলিশ জানায়, সিরাজগঞ্জের বেলকুচি এলাকার ওহিদুল্লাহ্ জেলার আশাশুনিতে শ্বশুরবাড়িতে বসবাস করে সাতক্ষীরায় কাপড়ের ব্যবসা করেন। শ্যামনগরে এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে টাকা লেনদেন নিয়ে বিরোধের ঘটনায় প্রতারক শহিদুল গাজী গত বুধবার (২২ জুলাই) ব্যবসায়ী ওহিদুল্লাহ্কে শহরের পলাশপোল অফিসে ডেকে টাকা আদায়ের চেষ্টা করেন। টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় আফসানাকে দিয়ে আপত্তিকর ছবি তুলে ব্ল্যাকমেইল শুরু করেন শহিদুল। পলাশপোল সরদারপাড়া এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় ওহিদুল্লাহ্কে আটক রেখে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। রোববার (২৬ জুলাই) দুপুরে জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে ঘটনা জানান ওহিদুল্লাহ্।

সাতক্ষীরা সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান বলেন, ৯৯৯ নম্বরে এ অভিযোগ পেয়ে সেখানে অভিযান চালিয়ে ভিকটিম ওহিদুল্লাহ্কে উদ্ধার ও প্রতারক শহিদুল গাজী, সহযোগী আব্দুল্লাহ্ ও আফসানাকে আটক করা হয়েছে।

তিনি বলেন, শহিদুল গাজী একজন মহাপ্রতারক। তার পরিচয় শনাক্ত করতে গিয়ে জানা গেছে- সে ঢাকা থেকে প্রকাশিত দৈনিক মানবাধিকার প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক। এছাড়াও পরিবেশ সংরক্ষণ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সাংবাদিক সোসাইটি বাংলাদেশ নামক সংগঠনের চেয়ারম্যান। এই সংগঠনের মহাসচিব সহযোগী প্রতারক আফসানা বেগম। এ ঘটনায় ব্যবসায়ী ওহিদুল্লাহ্ বাদী হয়ে মামলা করেছেন। ওই মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তিনজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x