ব্রেকিং নিউজ

আপডেট ৪ মিনিট ০ সেকেন্ড

ঢাকা শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০ আশ্বিন, ১৪২৭, শরৎকাল, ৭ সফর, ১৪৪২

বিজ্ঞাপন

পাহাড়, ঝর্ণা, মেঘ সব মিলিয়ে এক অপরূপ সৌন্দর্য্য বিরাজ করছে মেঘালয়ে

আতিকুর রহমান

নিরাপদ নিউজ

বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী ভারতের মেঘালয় রাজ্যে। ছোট বড় বিভিন্ন ধরনের পাহাড় নিয়ে এই রাজ্যের অবস্থান। বাংলাদেশের সিলেট জেলা থেকে শুরু করে জামালপুর জেলা পর্যন্ত মেঘালয়ের সীমান্ত বিস্তৃত। বাংলাদেশ সীমান্ত হতে উঁকি দেয় মেঘালয়ের সবুজ পাহাড়। যারা ঘোরাঘুরি পছন্দ করেন, তারা সবাই জানেন এই মেঘালয় পাহাড় সম্পর্কে। বাংলাদেশের পর্যটকদের কাছে মেঘালয় অত্যন্ত পছন্দের।

বিজ্ঞাপন

মেঘালয়ের পর্যটকদের মধ্যে প্রায় ৭০% পর্যটক বাংলাদেশের। প্রতি বছর অনেক পর্যটক মেঘালয় ঘুরতে যান। বাংলাদেশের সিলেট জেলার তামাবিল সীমান্ত হয়ে মেঘালয় যাওয়া যায়। তামাবিল পেরিয়ে মেঘালয়ের ডাউকি বাজার পড়ে। যারা জাফলং বেড়াতে আসেন, তারা দেখতে পান পাহাড়ের কিনারে ছোট বড় বাড়ি ঘর। এটাই সেই ডাউকি বাজার। ডাউকি থেকে প্রায় ৮৩ কিমি. পথ পেরিয়ে মেঘালয়ের রাজধানী শিলং পৌছানো যায়। মেঘালয় কে বলা হয় ভারতের স্কটল্যান্ড। মেঘালয়ে প্রধানত বসবাস খাসিয়া, জৈতিয়া এবং গারো সম্প্রদায়ের বসবাস। মেঘালয়ের জেলা গুলো জৈন্তিয়া, খাসি এবং গারো নামে বিভক্ত করা। মেঘালয়ের রাজধানী শিলং ইস্ট খাসি হিলস জেলার অন্তর্ভুক্ত।

মেঘালয়ে দেখার মত অনেক উল্লেখযোগ্য স্থান রয়েছে। এদের মধ্যে ডাউকি, স্নোনেংপেডেং, মাওলিনন বাংলাদেশের সীমানার খুব কাছাকাছি। এতটাই কাছাকাছি যে কোথাও কোথাও স্পষ্ট বাংলাদেশের সিম কার্ড কানেক্ট করে কথা বলা যায়। মাওলিনন এশিয়ার সবচেয়ে পরিষ্কার গ্রাম। যা বাংলাদেশের বিছনাকান্দির বিপরীতে অবস্থান করছে। তাছাড়াও শিলং শহরের শিলং গলফ ক্লাব, ওয়ার্ডস লেক, লেডি হায়দারী পার্ক, খ্রিস্টান চার্চ, এলিফ্যান্ট ফলস, ইউমিয়াম লেক বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

তাছাড়াও চেরাপুঞ্জি পর্যটকদের কাছে সবচেয়ে পছন্দের স্থান। চেরাপুঞ্জিতে একইসাথে পাহাড়ের মেঘ এবং ঝর্ণার দেখা দুটোই মেলে। চেরাপুঞ্জি বাংলাদেশের সিলেট জেলার ভোলাগঞ্জ এর সাদা পাথরের বিপরীতে পড়েছে। চেরাপুঞ্জিতে সেভেন সিস্টার ফলস, মৌসুমী কেভ, আওয়ারা কেভস, নোওকালিকাই ফলস, মাওডক ভিউ পয়েন্টস, ইকো পার্ক ইত্যাদি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

এখানে থাকার জন্য ছোট বড় সব ধরনের হোটেল বা হোম স্টেই পাবেন। ভাড়া সাধারণত ১০০০ থেকে ২০০০ রুপি পড়বে। এক রুমে সর্বোচ্চ তিন জন করে থাকা যায়। পাহাড়, ঝর্ণা, মেঘ সব মিলিয়ে এক অপরূপ সৌন্দর্য্য বিরাজ করছে মেঘালয়ে। যা দিন দিন বাংলাদেশের পর্যটকদের কাছে সবচেয়ে পছন্দের স্থান হিসেবে পরিচিত হয়েছে।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x