ব্রেকিং নিউজ

আপডেট অক্টোবর ১৫, ২০২০

ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০, ১০ কার্তিক, ১৪২৭, হেমন্তকাল, ৮ রবিউল আউয়াল, ১৪৪২

বিজ্ঞাপন

বগুড়ায় গ্যাস সিলিন্ডারের আগুনে ৫টি দোকান ভস্মীভূত, ৫০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি

এস আই সুমন

নিরাপদ নিউজ

বগুড়া সদরের বাঘোপাড়ায় নিমিষেই পুড়ে ছাই হয়ে গেল ৫টি দোকান। মঙ্গলবার দুপুরে বগুড়া সদর উপজেলার গোকুল ইউনিয়নের রংপুর বগুড়া মহাসড়কের বাঘোপাড়া বন্দরে মোখলেছার রহমানের ভাই-ভাই মার্কেটে গ্যাস সিলিন্ডার থেকে আগুন লেগে পর-পর ৫টি দোকান পুড়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা জানান, এতে প্রায় ৫০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। পরে বগুড়া সদর ও শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস টিম যৌথ চেষ্টায় ১ ঘন্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে।

ভাই-ভাই মার্কেটের ব্যাবসায়ী আব্দুর রহিম জানান, মঙ্গলবার দুপুরে তার নিজের ওয়ার্কসপে কর্মচারীদের সাথে তিনি নিজেই লেদের কাজ করছিলেন, হঠাৎ করে গ্যাস সিলিন্ডারে আগুন ধরে চতুর্দিকে ছড়িয়ে যায়। প্রাণ বাঁচাতে ওয়ার্কসপের ভিতর থেকে সবাই ছুটোছুটি করে বাহিরে যায়। সিলিন্ডারের আগুন নিমিষেই আশপাশের আরও ৫টি দোকানে ছড়িয়ে পড়ে।

স্থানীয়ভাবে এলাকাবাসী আগুন নিভানোর চেষ্টা করে। একদিকে গ্যাসের আগুন অন্যদিকে বিদ্যুতের তার। অনেকে দুর থেকে দেখেছে কিন্তু কাছে আসেনি। বগুড়া সদর ও শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসে খবর দিলে প্রায় ১ ঘন্টা পর বগুড়া ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ও শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিট যৌথ চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসে।

ততক্ষণে ৫টি দোকানের মালামাল প্রায় সম্পূর্ণ পুড়ে যায়। ক্ষতিগ্রস্থ ওয়ার্কসপের মালিক শাকিল হোসেন জানায় তার দোকানে প্রায় ২ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়ে গেছে। ভাই-ভাই মেশিনারীর মালিক নূর আলম জানান, তার দোকোনে প্রায় ১০ লক্ষাধিক টাকার মটর পার্টস ছিল সবগুলোয় পুড়ে গেছে। আব্দুর রহিম ওয়ার্কসপ ও মোটর্স পার্টস এর মালিক রহিম জানান, তার তিনটি দোকান মিলে প্রায় ২০ লক্ষাধিক টাকার মালামাল ও নগদ ২ লক্ষ টাকা পুড়ে গেছে। দুই ভাই মেশিনারী এন্ড ওয়ার্কসপের মালিক জাফরুল ইসলাম জানান তার প্রায় ২ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়ে গেছে। শাহীন স্টিল হাউজের মালিক শাহিন মিয়া জানান, তার দোকানে প্রায় ১ লক্ষ টাকার মালামাল পুড়েছে।

বগুড়া ফায়ার সার্ভিসের উপ-সহকারী পরিচালক মানিকুজ্জামান জানান, আমরা ফোন পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে আসার যথাসাধ্য চেষ্টা করি। কিন্তু পথে জ্যাম থাকায় কিছুটা সময় বেশি লেগেছে। তবে বগুড়ার ৩টি ও শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের ২টি ইউনিটের যৌথ চেষ্টায় আমরা অতি তাড়াতাড়ি আগুন নিয়ন্ত্রনে এনেছি। এলাকাবাসীও আমাদের সহযোগিতা করেছে। আগুন লাগার খবর পেয়ে তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন বগুড়া সদর থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) রেজাউল করিম রেজা, বগুড়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সুফিয়ান শফিক, গোকুল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যন মোঃ সওকাদুল ইসলাম সরকার সবুজ প্রমুখ।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x