ব্রেকিং নিউজ

আপডেট ৫২ সেকেন্ড

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২০, ৯ অগ্রহায়ণ, ১৪২৭, হেমন্তকাল, ৯ রবিউস সানি, ১৪৪২

বিজ্ঞাপন

৩০ ঘন্টায়ও সচল হয়নি সিলেটের বিদ্যুত লাইন

জহিরুল ইসলাম মিশু,সিলেট ব্যুরো

নিরাপদ নিউজ

সিলেটের বাংলাদেশ পাওয়ার গ্রিড ১৩২/৩৩ কেভি বিদ্যুৎ সরবরাহ উপকেন্দ্রে কুমারগাঁও বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্রে অগ্নিকাণ্ডের পর ৩০ ঘণ্টা ধরে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন রয়েছে সিলেট। অগ্নিকাণ্ডের পরই দুই এলাকার ৫ লক্ষাধিক গ্রাহক বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়েন। বুধবার বিকাল ৫ টায়ও বিদ্যুৎ সরবরাহ সচল হয়নি।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার ১৭ নভেম্বর সকালে ১১ টা ২০ মিনিটের দিকে সিলেটের কুমারগাঁও বিদ্যুত উৎপাদন কেন্দ্রে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এরপর ফায়ার সার্ভিসের ৭ টি ইউনিটের প্রায় ১ ঘণ্টা চেষ্টার পর দুপুর সোয়া ১২ টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে।

এদিকে বিদ্যুৎ না থাকায় নগরবাসী চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। বাসা-বাড়িতে পানির জন্য মানুষ অবর্ণনীয় কষ্টে পড়েছেন। এতে করে বিভিন্ন বাসা-বাড়ি ও হাসপাতালে রোগীরাও পড়েছেন বিপাকে। সেসঙ্গে বিদ্যুৎ না থাকায় অফিস আদালতের কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। সিলেটে আবার কখন বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হবে সে বিষয়ে কিছুই বলতে পারছেন না সংশ্লিষ্টরা।

অগ্নিকাণ্ডের পর বিদ্যুৎ না থাকার কারণ জানিয়ে সিলেট নগরীতে মাইকিং করা হয়েছে। তবে কখন বিদ্যুৎ আসবে সেটি জানানো হয়নি।
বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড সিলেটের প্রধান প্রকৌশলী মোকাম্মেল হোসেন দৈনিক বাংলাদেশের আলোকে জানান, আগুনে দুটি ট্রান্সফরমার পুরোপুরি পুড়ে গেছে। দুটি ট্রান্সফরমার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এজন্য গ্রাহকরা বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন আছেন। সিলেট-১, সিলেট-২, সিলেট-৩ ও সিলেট-৪ বিক্রয় ও বিতরণ কেন্দ্রের আওতাধীন ৫ লাখ গ্রাহক বিদ্যুৎহীন রয়েছেন।

তিনি আরও জানান, আগুনে গ্রিড লাইন ও ট্রান্সফরমার অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অনেক যন্ত্রপাতি পুড়ে গেছে। এগুলো সংস্কারের কাজ চলছে। ক্ষতিগ্রস্ত যন্ত্রপাতি সংস্কার ও পরিবর্তন করতে হবে। গতকাল রাত থেকে প্রায় ৪০০ কর্মী কাজ করছেন। আজ বিকেলের আগে মেরামত করা কিছু পিলার পরীক্ষামূলকভাবে চালু করা হবে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আজ বিকেলের দিকে কিছু এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হবে। তবে বাকি এলাকায় কখন বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হবে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

এদিকে বিদ্যুৎ বিভাগের একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে বুধবার সন্ধ্যার মধ্যে একটি পাওয়ার ট্রান্সফরমার দিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ আংশিক চালু করা সম্ভব হতে পারে। আর অন্য একটি ট্রান্সফরমার গাজীপুরের টঙ্গী থেকে সিলেটে এসেছে। নতুন ট্রান্সফরমার বসিয়ে কাজ শুরু করা হবে। কাজ শেষ হলে এ বিষয়ে বুঝা যাবে কখন পুরো বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হবে।

Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x